জন্ম মৃত্যু

245

বার পঠিত

  half a viagra didnt work

বাসার দরজা বন্ধ দেখে ছাদে উঠে আসলাম, আন্দাজ করেছিলাম ছাদেই পাওয়া যাবে শ্বরণী বাবুকে| আন্দাজ সঠিক, দেখি কুচকুচে কালো রঙের  পাঞ্জাবি পড়া শ্বরণী বাবু ছাদে একটা বেতের তৈরী মোড়ার উপর বসে আছে| শুধু বসে আছে বললে ভুল হবে, বাম হাতে ধরে থাকা খোলা বইটির উপর মাথাটা নিচু করে মনোযোগ দিয়ে পড়ছে আর কিছুক্ষন পর পর ডান হাতের জলন্ত সিগারেট ঠোটে ঠেকিয়ে লম্বা লম্বা টান দিয়ে সিগারেটের ধোয়া দিয়ে ফুসফুস ভর্তি করছেন, সেই ধোয়া গুলোই কয়েক সেকেন্ড পর নাক দিয়ে বের করে ফেলছেন| শ্বরণী বাবুর পরনের কুচকুচে কালো রঙের পাঞ্জাবি দেখে প্রথমে মনে হয়েছিল, কোন শিয়া মুসলিম আলী, হাসান এবং হোসেইনের মৃত্যুর মাতম করতে কালো কপড় জড়িয়ে আছে| আমি শ্বরণী বাবুর কাছে গিয়ে জিজ্ঞাস করলাম

- কি বই পড়ছেন? মনোযোগ দেখে মনে হচ্ছে খুবই গুরুত্ব পুর্ন কোন বিষয়ের উপর লেখা বইটা|

বইয়ের পাতা হতে চোখ না সড়িয়েই খুবই স্বাভাবিক ভঙ্গিতেই উত্তর দিলেন doctorate of pharmacy online

- হুজ্জাতুল ইসলাম ইমাম গাযযালী রহের লেখা মরণের আগে ও পরে|

- মৃত্যুর ভয় ঢুকে গেলো নাকি মনে? আপনি কবে থেকে পরকালের উপরে বিশ্বাস করা করা শুরু করলেন? walgreens pharmacy technician application online

এবার শ্বরণী বাবু তার ডান হাতের শেষ হয়ে আসা সিগারেটে উইলিয়াম শেক্সপিয়রের টান দিয়ে, ধোয়া ছাড়তে ছাড়তে খুবই তীক্ষ্ণ দৃষ্টি দিয়ে আমার দিকে ফিরে তাকালেন| শ্বরণী বাবুর তীক্ষ্ণ দৃষ্টি দেখে ভেবেছিলাম বোধহয় বোকার মত প্রশ্ন করায় এবার একটা কঠোর ধমক শুনতে হবে, যদিও আশাহত হলাম, কারণ তিনি বলে উঠলেন

- সিগারেট বের কর, একটা সিগারেট খাবো|

পকেট থেকে সিগারেটের প্যাকেট বের করে দিলাম, শ্বরণী বাবু একটি সিগারেট বের করে ফিল্টারটা দু’পাটি দাতের মাঝে আলতো করে কামড়ে মুখটা আমার দিকে একটু এগিয়ে দিয়ে ইশারা করে বুঝিয়ে দিলেন যে “সিগারেটে আগুন ধরিয়ে দে”| আমি সিগারেটের প্যাকেটের সাথে বিনে পয়সায় পাওয়া ডলফিন ম্যাচের একটি কাঠি বের করে ম্যাচ বক্সের বারুদে ঘষা দিয়ে আগুন ধরিয়ে সিগারেট জালিয়ে দিলাম| শ্বরণী বাবু পরপর কয়েকবার সিগারেটে টান দিলেন ঠিকই কিন্তু ধোয়া ছাড়লেন না, প্রায় ২০ সেকেন্ড পর মুখটা গোল করে বুকের ভেতর জমিয়ে রাখা সব ধোয়া দিয়ে একটার পর একটা রিং তৈরী করলেন, কম করে হলেও প্রায় আটটা রিং হবে| শ্বরণী বাবুর এই অভ্যাসটা খুব পুরাতন, প্রায়ই এমনটা করে থাকেন| দেখতে ভালই লাগে, মনেহয় মুখের ভেতর হতে একের পর এক ধোয়ায় তৈরী রিং জন্ম নিয়ে ধীরে ধীরে নিজেদেরকে বাতাসের সঙ্গে মিলিয়ে দিয়ে মৃত্যু বরণ করছে| ধোয়া দিয়ে রিং বানানোর প্রতিভা প্রদর্শন পর্ব শেষ হলে শ্বরণী বাবু হাসি মুখে আমার দিকে তাকিয়ে খুই ঢিলেঢালা কন্ঠে বললেন

- মৃত্যুর ভয় মনে ঢুকলো কিনা এমন ফালতু এবং হাস্যকর প্রশ্ন আমাকে অন্তত করিস না| আমিমৃত্যুকে ভয় পাবো কেন? কারণ যতক্ষণ আমি অস্তিত্বশীল ততক্ষণ মৃত্যুঅবর্তমান, আর যখন আমি মৃত আমি অস্তিত্বহীন আর অস্তিত্বহীন অবস্থায় অনুভুতিঅবর্তমান। অর্থাত যে জিনিষের স্বাধ আমি অনুভব করতে পারছিনা তাকে ভয় পাবোকোন যুক্তিতে?

নগন্য জ্ঞানে জ্ঞানী হওয়া করনে শ্বরণী বাবুর উক্তিটির অর্থ আমি বুঝতে পারিনি, তবুও সব বুঝেছি এবং আপনি ঠিকই বলেছেন মার্কা মাথা নাড়ালাম| শ্বরণী আমার দিকে তাকিয়ে বললেন

- জানি, না বুঝেই তুই মাথা ঝাকাচ্ছিশ! যাই হোক দাড়িয়ে আছিস কেন, ওই চেয়ারটা টেনে বসতে পারছিস না?

সত্যি তো, কিছু দুরে একটা কাঠের চেয়ার রাখা, এতক্ষণ চোখে পড়ে নি| চেয়ারটা বোধহয় অনেকদিন ব্যবহার হয়নি, এভাবেই ছাদে অবহেলায় ফেলে রাখা হয়েছিল, কেননা ধুলোবালি, বৃষ্টির পানি এবং সূর্যের তাপে রং চটে যাওয়া চেয়ারের চেহারাটা এমনটাই সাক্ষ্য দিচ্ছিলো| চেয়ারটার উপর জমে থাকা ধুলো খালি হাতে কোন রকম ঝেড়ে নিয়ে, শ্বরণী বাবুর কাছে টেনে এনে সামনা সামনি রাখলাম| চেয়ারে বসতে বসতে একটা প্রাসংগিক একটা প্রশ্ন করে বসলাম will i gain or lose weight on zoloft

- আচ্ছা শ্বরণী বাবু ধার্মিকেরা বলে পরকালে জীবন অফুরন্ত, পরকালের মানুষেরা অমর| এ বিষয়ে আপনার মন্তব্য কি?

“বেচে থেকেও যে আমি আজীবন বাচতে পারবো না, মরার পর নাকি সেই আমি আজীবন বেচে থাকবো?” কথাটা বলেই শ্বরণী বাবু হো হো করে উচ্চস্বরে হেসে উঠলো, যেন পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ কৌতুক তিনি আজ শুনেছেন| হাসিটা পুরোপুরি থামেনি, সেই হাসির রেশে রসালো স্বরে তিনি বলতে লাগলেন

- আসলে বিষয়টা কি জান লেখক, ধার্মিকদের মধ্যে মরার পর আজীবন বেচে থাকার ধারণাটার সুত্রপাত সেই প্রাচীন কালেই। মানুষের অমর হবার আকাঙ্খা সৃষ্টির শুরু থেকেই রয়েছে। কিন্তু মানুষের মনের সেই আকাঙ্খা চরম তীব্র হওয়া সত্তেও বাস্তবতা হল মানুষ মরণশীল| হাজার চেষ্টা করেও মানুষ আজ পর্যন্ত অমরত্ব কেউ লাভ করতে পারেননি| ভবিষ্যতের কথা জানিনা, উন্নত চিকিত্সা বিজ্ঞানের বদৌলতে হয়তো অদূর ভবিষ্যতে মানুষ অমরত্ব লাভ করতেও পারে|

শ্বরণী বাবু কথা হঠাত করে থামিয়ে দিয়ে খুই সুরেলা গলায় গেয়ে উঠলেন “কোথাও আমার হারিয়ে যাবার নেই মানা, মনে মনে।” আমি কিছুটা অবাক ভঙ্গিতেই জানতে চাইলাম

- হঠাত করে রবী ঠাকুরের গান গাইলেন যে?

- কারনটা একটু পরেই বুঝতে পারবি| যাই হোক যেটা বলছিলাম, বাস্তবে মানুষ অমর হয়ে থাকতে না পারলেও নিজের মনের কল্পনার ঘরে মানুষ অমর হয়ে থাকতে চাইলে কেউ বাধা দেয়না, এই প্রসংগানুশারেই গানটা মনে পড়ে গিয়েছিলো| বাস্তবতাকে অস্বিকার করা অসম্ভব! তাই কিছু কিছু মানুষ বাস্তবতার কাছে হার মেনে মাথা নত করে নিজের অতৃপ্ত মনকে সান্তনা দিতে কল্পনা এবং প্রচার করতে শুরু করলোযে “আমি মরে আজীবন বেচে থাকবো”!তারা বাস্তব সত্য জানা সত্তেও মরে যাবার দুঃখ ঘুচাতে এমনটা ভাবতো। এমন ধারণার প্রচলিত গল্প গুলো এক সময় ধর্ম বিশ্বাসে রূপ নিল, অবশ্য এর পেছনে ছিল অনেক বুধিমানের হস্তক্ষেপ।

বুদ্ধিমান মানুষ লক্ষ্য করলো যারা আজীবন বেচে থাকার কাল্পনিকতাকে সত্য বলে মেনে নিয়েছে, তাদের মনে মৃত্যুর দুঃখ অনেকটা কম|তাই তারা ভাবলো যদি মুর্খ মানুষদের অন্ধ বিশ্বাসের অন্তরালে অমর হবার অবাস্তবতাকে বাস্তব হিসেবে ঢুকিয়ে দেয়া যায়, তবে মরে যাবার দুঃখটা প্রতিটি বিশ্বাসীদের মন থেকে উঠে যাবে। যেহেতু ধর্ম হল অজস্র কাল্পনিক এবং অযৌক্তিক বিশ্বাসের সমন্বয়ে সৃষ্টি, তাই সেই বুধিমানেরা খুব সহজেই মৃত্যুর পর আজীবন বেচে থাকার ধারনাটা জুড়ে দিতে সক্ষম হয়েছিল, যা এখন পরকাল নামে আমাদের কাছে পরিচিত। আবার কিছু মানুষ যারা কিনা কাল্পনিক স্বর্গ নরক থেকে বাস্তব পৃথিবীকে বেশি ভালবাসে, তাদের কাছে পরকাল অর্থাত মরে যাবার পর অমর হবার ধারনাটা পছন্দ হলো না, তাই বুধিমানেরা তাদের জন্য এনে দিলো মৃত্যুর পর আবারও পৃথিবীতে ফিরে আসার কাল্পনিক ধারণা, যা আমরা পুনর্জন্ম নামে জানি।

হঠাত কথা থামিয়ে শেষ হয়ে যাওয়া সিগারেটের ফিল্টার ছুড়ে ফেলে দিয়ে শ্বরণী বাবু বললেন

- জানিস না, গুরুর বয়ান শুনতে হলে গুরু দক্ষিনা দিতে হয়?

আমি হাসি মাখা মুখে আমার মাথাটা একটু নত করে জিজ্ঞাস করলাম

- কি দক্ষিনায় আপনি টুষ্ট হবেন গুরু? kamagra pastillas

- গুরু দক্ষিনা আমার মাত্র দুটো, এক সিগারেট আর দ্বিতীয় রতন পন্ডিতের কলিজা মিঠা চা| চা পরে খোয়ালেও চলবে, আপাতত সিগারেট দে|

আমি আবারও প্যাকেট বের করে দিলাম, তিনি একটা সিগারেট বের করে মুখে রাখতেই আমি ম্যাচের কাঠি দিয়ে সিগারেট ধরিয়ে দিতে দিতে জানতে চাইলাম

- গুরু যেহেতু আপনি পরকাল কিংবা পুনর্জন্মে মানেন না, তবে আপনি কি মানেন?

শ্বরণী বাবু আমার ধরিয়ে দেয়া সিগারেটে জোরে একটা টান দিয়ে এক গাল ধোয়া ছাড়তে ছাড়তে বললেন side effects of drinking alcohol on accutane

- ধর্মকে যারা মানে তারা আস্তিক, আর যারা ধর্মকে জানে তারা নাস্তিক। আমি পরকাল কিংবা পুনর্জন্ম মানি না কারণ আমি এগুলা সম্পর্কে ভালো করে গভীর ভাবে জানি| আমি যেটা জানি সেটা হল জন্মের আগে যেমন কারো কোনো কাল থাকে না, মৃত্যুর পরেও তেমনই কোনো কাল নেই। জন্মের আগে যেমন একটা ঘুটঘুটে অবচেতনায় ছিলাম, মৃত্যুর পরেও ঠিক একই অনুভুতি, এককথায় বলতে গেলে “জন্মের আগে আমি মৃতই ছিলাম”। আমার কাছে জীবনটা হল রবি ঠাকুরের সেই গানের মতো “না চাহিলে যারে পাওয়া যায়”, জন্মের আগে সেই ঘুটঘুটে অবচেতনায় থেকে অবশ্যই করো চাওয়া পওয়ার ক্ষমতা থাকা সম্ভব না, আমারও ছিল না, কারণ আমি কারো থেকে বেতিক্রম নই। ঠিক অন্যদের মতই আমিও বাবা-মায়ের যৌনক্রিয়ার ফসল হিসেবে জন্মেছি, তাই অন্য সবার মতই এখন আমারও ইচ্ছা শক্তি আছে, জীবন চাইনি ঠিকই, কিন্তু এখন আমি এই সুন্দর জীবনটাকে হারাতে চাই না, জন্মের আগের অনুভুতিতে আবারও ফিরে যেতে চাইনা। অমর হবার ইচ্ছা আমারও আছে, তাই বলে আমি সকল বাস্তবতা জেনে বুঝে ধার্মিক মূর্খদের মত মিথ্যা সান্তনায় পরিপূর্ণ কল্পনার চাদরে নিজেকে মুড়ে রেখে, মনটাকে অবুঝ বানিয়ে রাখতে আমি রাজি নই।

nolvadex and clomid prices

You may also like...

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

Question   Razz  Sad   Evil  Exclaim  Smile  Redface  Biggrin  Surprised  Eek   Confused   Cool  LOL   Mad   Twisted  Rolleyes   Wink  Idea  Arrow  Neutral  Cry   Mr. Green

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.