এ অকাল-মৃত্যূর দায় কার ঘাড়ে ?

333

বার পঠিত

জিয়াদকে উদ্ধার করতে ফায়ার সার্ভিসের দীর্ঘ ২৩ ঘণ্টার তৎপরতার ইতি টানার ঠিক ১০ মিনিট পর স্থানীয় ছেলেদের বিশেষ উদ্যোগে জিয়াদকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। কিন্তু উদ্ধারকৃত জিয়াদ ততক্ষনে লাশ,দায়িত্বরত ডক্টর তাকে মৃত ঘোষণা করেছেন। সেই সাথে একটি সাড়ে তিন বছরের সম্ভাবনাময় প্রানের অকাল প্রয়ান আমাদের চোখে আঙুল দিয়ে অনিয়ম ও সীমাবদ্ধতাকে দেখিয়ে দিলো। acquistare viagra in internet

এখন প্রশ্ন হলো- কার উপর পড়বে এই নিস্পাপ শিশুর অকালে ঝরে যাওয়ার দায়? ওয়াসার এই প্রোজেক্টে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান ইঞ্জিনিয়ারকে পূর্বেই বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে আমি মনে করি শুধুমাত্র দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধানকে বরখাস্ত বা গ্রেফতার করলেই এর দায় মুক্ত হওয়া যাবেনা।তাতে জনগনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবেনা। যদিও এই অনুশীলনীটা সবার মুখস্ত হয়ে গেছে; কোন বিভাগে অনিয়ম হলেই সাথে সাথে সেটার সকল দায় দায়িত্ব বর্তায় একমাত্র সেই প্রকল্পের প্রধানের কাঁধে।এটা একদিক দিকে ঠিক,কিন্তু সব দিক দিয়ে ঠিক নয়। আমার কাছে এটা লোক দেখানো  বা দায়সার ভাব ছাড়া  আর কিছুই মনে হয়না। এখন প্রশ্ন, তাহলে দায় কার কার? জনগনের জানমালের নীরাপত্তা যে কোন দেশের প্রধান ইস্যু।সেটা নিশ্চিত করা সরকারের দায়িত্ব।দেশের আপামর জনসাধারণের জীবনের  যে কোন ধরনের নীরাপত্তার বিধান করবে সেই দেশের সরকার।আইনের সঠিক প্রয়োগ না থাকায় আমাদের সরকার এখনও সেদিক দিয়ে অনেক পিছিয়ে।

এবার এই দূর্ঘটনার পেছনের কয়েকটি বিষয়ে নজর দেয়া  যাক,কি কি কারণে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে! যেহেতু এটা ওয়াসার অধিভুক্ত প্রকল্প,সেহেতু এমন জনাকীর্ণ জায়গায় ৬০০ ফিট পাইপের ঢাকনা খোলা থাকার সকল দায় দায়িত্ব ওয়াসার ঘাড়েই পড়ে। সাধারন বুদ্ধিতে যতটুকু বুঝি, ঐ রকম জায়গার ওমন গভীর পাইপের মুখে স্লাপ বা ঢাকনা না থাকাটা বড় ধরনের উদাসীনতা।কিন্তু এত গভীর একটি পাইপের মুখের ঢাকনা গেল কোথায়! এই ঢাকনা না থাকার পিছনে যুক্তিগত কি কি কারন থাকতে পারে, একটু তলিয়ে দেখি- para que sirve el amoxil pediatrico

  • সরকার থেকে এই প্রকল্পের জন্য যখন তহবিল গঠন করা হয়েছিল, তখন নিশ্চয় ঐ ঢাকনাটির কেনার অর্থও বাজেটের অন্তর্ভুক্ত ছিল।ঢাকনাসহ পুরা প্রোজেক্টের প্রয়োজনীয় অর্থ সরকার নিশ্চয় ওয়াসার কাছে হস্তান্তর করেছিল। এই পর্যন্ত কোন সমস্যা দেখছিনে। কিন্তু প্রশ্ন হলো- তা দিয়ে ঢাকনা কেনা হয়েছিলো কিনা!নাকি চোরে নিয়ে গেছে।যদি কেনা না হয়ে থাকে তাহলে বরাদ্দকৃত  টাকা কিভাবে খরচ হয়েছে তা তলিয়ে দেখতে হবে সরকারের।সরকারের দায়িত্ব সর্ব-প্রধান।

 

  • পরবর্তীতে ডাটা শীট ধরে প্রত্যেকটি প্রয়োজনীয় জিনিস কেনা হয়েছিল কিনা সেই দায়িত্বটা ওয়াসার  প্রধানের উপর বর্তায়। একজন প্রধান দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরাসরি প্রজেক্টে কাজ করে না, বড়জোর মাঝে মাঝে মাঠ পর্যবেক্ষণ যান। কিন্তু শেষমেষ বাজেট ও নির্দেশনা অনুযায়ী প্রত্যেকটি প্রোজেক্টের কাজ সুন্দরভাবে সম্পন্ন হচ্ছে কিনা সেটা দেখার দায়িত্ব তার। সে অর্থে অন্যতম প্রধান দায় প্রধানের।মাঠ পর্যায়ের প্রধান ইন্জিনিয়ারও দায়ী।

 

  • এছাড়া  হতে পারে সরকার পক্ষের কেও এই প্রজেক্টের সাথে জড়িত।যার ক্ষমতাবলে চুরিবিদ্যায় সমস্ত ব্যাপারটায় নিপাতনে সিদ্ধ হয়েছে,যার কারনে অনেক ম্যানহোলের ঢাকনা শুরু থেকেই বসেনি । যেটা আপাত দৃষ্টিতে আমদের দেশে খুবই সাধারন একটা ব্যাপার।কারন,আমাদের দেশে যে যে রকমই অপরাধ করুক না কেন, সে যদি সরকারের ছত্রছায়ার কেও হয় তাহলে শেষ পর্যন্ত পার পেয়ে যায়।সে দায় তো স্বীকার করেই না,বরঞ্চ তার দায় অন্যের উপর চাপিয়ে দেয়,আঙ্গুল তুলে দেখিয়ে দেয় অধিভুক্ত প্রতিষ্ঠানের উপরের কর্মকর্তাদেরকে। doctus viagra

 

  • চুরি বিদ্যায় শ্রমিক-কর্তা সবাই কম বেশি সিদ্ধ হওয়ায় দ্বায় সবার উপরে কম-বেশি পড়ে।একেবারে সুইপার থেকে সর্বোচ্চ কর্তা সবাই কম-বেশি দায়ী হতে পারে।সুতরাং এটা একটা দুষ্ট চক্র,সিস্টেমের গলদ।

 

  • শুধু তাই-ই নয়,আমরা দেশের সাধারন জনগনও নিজেদের অধিকার ও দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন নই।যার জন্য এতো বড় দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

যাইহোক, গতকাল দুপুরেও জিয়াদ নামের ঐ শিশুটি বেঁচে ছিল;পূর্বের নানা পর্যীয় মানুষের বহুমাত্রিক দ্বায়িত্বহীনতার কারনে মাত্র ২৩ ঘণ্টার ব্যবধানে সেই জিয়াদ এখন মৃত।পৃথিবীতে তার অস্তিত্ব বলতে এখন কেবল স্মৃতি। যে দুঃসহ স্মৃতিকে আঁকড়ে ধরে আমৃত্যু ঢুঁকরে ঢুঁকরে কেঁদে যাবে তার বাবা-মা,আত্মিয় পরিজন।এ অন্যায়,অনিয়মের প্রধান দায় যার কাঁধে পড়ে সেই সরকারকে বলছি-যদি ১৬ কোটি মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা দিতে চান তবে এক-কে নয়,সকল স্তরকে নিয়ে ভাবুন। সঠিক কান ধরে টানুন সকল মাথা এসে হাজির হবে।আর অতি শীঘ্রই এই প্রোজেক্টের অনিয়মকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।আর তা নাহলে আবার হয়ত কয়েকদিন পর বিদেশের মাটিতে বসে দেখব নতুন কোন এক জীবনের অকালে মিলিয়ে যাওয়া।

A nation is known by it’s citizen, A civilization by it’s humanity, And a society by it’s? People. not by the hypocrites ……….. !!!!

বি: দ্র: লেখাটি পূর্বে অনলাইন ভিত্তিক নিউজপেপার http://news.zoombangla.com/ এর মতামত/বিশেষ শাখায় প্রকাশিত হয়েছে।

You may also like...

  1. দুরন্ত জয় বলছেনঃ

    আমরা সব কিছুতেই সরকারের দোষ খুজে বেরাই।
    ওয়াসা হতে ঢাকনা দিয়েছে কি না জানি না। সেই ঢাকনা প্রতিদিন চেক করা নিশ্চয় সম্ভব না সরকারের পক্ষে।
    আমরা যেখানে সরকার বলতে শুধুই রাজনৈতিক দলকে বুঝি সেখানে সরকারকে দোষ দেয়া টা কি ভুল নয়? zithromax azithromycin 250 mg

    আপনি নাগরিক, নাগরিক হিসেবে কি দ্বায়িত্ব গুলো পালন করেন?
    আগে আমরা নিজের দোষ কেন দেখি না। nolvadex and clomid prices

    রাস্তা পার হতে গিয়ে মারা গেলে সরকারের দোষ , আরে সেখানে তো ফুট ওভার ব্রিজ ছিল তুমি ব্যবহার কর নি কেন? এটা বলবে না। বলবে আইনের কঠোর প্রয়োগ। কয়েকদিন তো অভিযান চালালো এখন আবার ঠিকই রাস্তা দিয়ে পার হচ্ছি।

    সুতরাং আমরা শুধু যে দোষ দেই এটা ভুল।

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong> metformin tablet

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.

doctorate of pharmacy online
half a viagra didnt work