একটি মেয়েলি হরমোনাল কথোপকথন

572

বার পঠিত

-   রেললাইনের ওখানে রিক্সা ধরে বসিস একটু।

-   কেন?

-   আসার সময় দেখি ওখানে এক মহিলা রিক্সা থেকে পড়ে গেছে। পায়ের আঙ্গুল থেতলে গেছে। পাঁচটা আঙ্গুল থেকেই প্রচুর ব্লিডিং হচ্ছিল।

-   ও!

মিতুর কথা শুনে হঠাতই কেমন জানি মেজাজ খারাপ হয়ে গেল। মনে মনে মহিলার উপর কেমন জানি রাগ লাগছিল। নিছক একটা দূর্ঘটনায় অকারণে মহিলার উপর রাগ ওঠায় নিজের উপর আরও বেশি রাগ হচ্ছিল। চিনি না, জানি না, ঘটনাটাও দেখিনি- খামোখা অযৌক্তিকের মত একজনকে দোষ দিচ্ছি ভেবে মেজাজ খারাপ হচ্ছিল আরো ।

-   কিরে? কোন কথা বলছিস না যে?

-   মেজাজ খারাপ লাগছে। about cialis tablets

-   কেন?

-   জানি না। ঘটনাটা শুনে কেন জানি মেজাজ খারাপ হয়ে গেল।

-   পা থেতলে যাবার কথা ভেবে মনে হয় খারাপ লাগছে।

-   উহু, না।

-   কয়েকদিন আগে সিফা এভাবে রিক্সা থেকে পড়ে ব্যাথা পেয়েছে। বারবার একই ঘটনা শুনে হয়ত।

-   হুম। সেটাই। কিন্তু আমার মেজাজ খারাপ লাগছে কেন জানি ঐ মহিলার উপর।

-   কেন? তুই তো ওনাকে দেখিসনি। কিছুই জানিস না।

-   রিক্সা থেকে পড়ে মেয়েরাই বেশি ব্যাথা পায়- না?

-   উমম… আমি মেয়েদেরটাই বেশি শুনেছি।

-   এজন্যই মনে হয়। কেন মেয়েরাই বেশিই ব্যাথা পায়?

-   কি জানি! আমি তো রিক্সা থেকে পড়িনি। আমি কিভাবে জানব?

-   হুম্ম…

-   হঠাত এইটা নিয়ে পড়লি??? বাদ দে।

মিতুর সাথে এই বিষয় নিয়ে কথা ওখানেই শেষ হয়ে যায়।

গতকাল আমার এক বান্ধবীর বাসায় বেড়াতে গিয়েছিলাম। তাহিয়া তখন ইফতারীর দাওয়াতে বাইরে গেছে। তাহিয়া না থাকায় ওর বড় বোনের সাথে গল্প করতে বসলাম। private dermatologist london accutane

-   কিরে কি খবর তোর?

-   আমার খবর ভাল। তুমি এমন ঠ্যাং লটকায়া শুইয়া আছ ক্যান? accutane prices

-   আর কইস না। এক্সিডেন্ট।

-   ক্যামনে করলা?

-   ফাইনাল প্রফে যে সাবজেক্টে ফেল করসি ঐটার রিটেস্ট দিলাম। এইবারের পরীক্ষা ভাল হইসে। খুশিতে তাড়াতাড়ি একটা রিক্সা নিয়া বাসায় আইতে নিসি। রিক্সাওয়ালা পাগলা না ছাগলা! সোজা রিক্সা চালাইতে চালাইতে যেই কোন মোড় আসে অমনি একেবারে শেষ মাথায় গিয়ে টার্ন নেয়। আর জোরে চিল্লান দেয় ‘ডাইইইইনে…’ ‘বাঁআঁআঁআঁইয়ে’… এমন করতে করতে ধলপুরের গলিতে আয়া উল্টায়া পড়ল।

-   হা হা… রিক্সাওয়ালার মে বি ড্রিফটিং-এর শখ হইসিলো।

-   রিক্সা নিয়া হ্যারে ড্রিফটিং করতে কে কইসে??? আর করবিই যখন খালি রিক্সা নিয়া কর। আমারে ফেলতে গেলি ক্যা???

-   হ্যার কিছহু হয় নাই? irbesartan hydrochlorothiazide 150 mg

-   এহ! হ্যাতে তো প্রোফেশনাল রিক্সা ড্রিফটার। যেই রিক্সা উল্টাইতে লইসে ফাল দিয়া নাইমা গেসে।

-   তুমি বয়া ছিলা ক্যান?

-   তোর যা বুদ্ধি। ইফতারীর সময় এত মাইনষের সামনে আমিও অলিম্পিক হাই জাম্প দিমু না?

-   তো দিবা না?

-   তুই দিস। will metformin help me lose weight fast

-   দিমু তো। তোমার মত কি পড়তে আছি তো পড়তেই থাকব?

-   পড়তে আছি তো পড়তেই থাকব। তারপরও লজ্জা শরমের মাথা খায়্যা ফাল পারুম না।

-   ওহ! লজ্জা নারীর ভূষন না!!! তো পইড়া যাইতে লজ্জা লাগে না লাফ দিতে লজ্জা লাগে?

-   ব্যাপারটা লাফ দেয়ার সাথে রিলেটেড না। puedo quedar embarazada despues de un aborto con cytotec

-   কিসের সাথে রিলেটেড?

-   অই। আমাদের বাসায় আসতে যে দেড় ফুট উঁচু ঢিপিটা আছে তুই কি অইটা লাফ দিয়া পার হস? viagra vs viagra plus

-   না। ক্যান?

-   তাসিন ঐটা লাফ দিয়া পার হয়। দিপুও লাফ দিয়া আর হয়ে। ইয়াং সবগুলা পোলা এমনে লাফ দিয়া পার হয়্যা যায়। তুই হস না ক্যান? thuoc viagra cho nam

-   আমি তো উইঠ্যা অভ্যস্ত না। উঠতে গিয়্যা পইড়া গেলে! আমার তো ঐ পড়ারই ভয়। পড়তে তো আমার লজ্জা লাগব।

-   হারামী! কখনো ভাবসোস? এই লাফঝাপের অভ্যাসটা ছেলেদের ক্যান বেশি?

-   না ভাবি নাই। ক্যান?

-   কারণ তাগো শরীরে টেস্টোস্টেরন বেশি থাকে। মেয়েদের শরীরেও থাকে। কিন্তু মূলত ধরা হয় টেস্টোস্টেরন পুরুষ হরমোন। যেহেতু ছেলেদের শরীরে বেশি থাকে। ছেলেরা খেলাধুলায় বেশি ভাল হয় কারণ তাদের শরীরে টেস্টোস্টেরন বেশি। আর স্ট্যাটিস্টিক বলে খেলাধুলা করলে টেস্টোস্টেরন ক্ষরণ বৃদ্ধি পায়। মেয়েদের মধ্যে যারা খেলাধুলা করে তাদের টেস্টোস্টেরন বেশি ক্ষরিত হয়। টেস্টোস্টেরন যেহেতু পুরুষ হরমোন তাই এর ক্ষরণ বৃদ্ধি মেয়েদের জন্য পজিটিভলি দেখা হয় না। তাই বিবর্তনের ধারায় আমরা বরাবরই এই লাফ ঝাপে কম পারদর্শী। এখনো সেভাবেই আমাদের দেশে একটা মেয়ে ২ ফুট উঁচু ঢিপি লাফ দিয়ে পার হয়ে যাচ্ছে সেটা খুব একটা শোভন না। আর সাথে জরা পল্টানো পোষাক আষাক তো আছেই।

-   বাহ! ডাক্তার হবার আগেই তো ভাল পরীক্ষা চালাইসেন।

-   এমনি কি বউ হবার পর আমাকে শান্ত শিষ্ট মেয়েটি হয়ে বসে থাকতে হয়?

-   মেয়েদের চপলা স্বভাবও মানুষ পছন্দ করে। কেন তুমি পদ্মা নদীর মাঝিতে পড় নাই_ চপলা-কপিলা?

-   সেই কবে পড়সি!!! যাই হোক। সেটা পছন্দ তো করবই। এখানে ব্যাপারটা যৌনতার সাথে রিলেটেদ। সেক্সুয়াল আট্রাকশন টেস্টোস্টেরন দ্বারা প্রভাবিত। এমনিতো আর কপিলারে লাস্যময়ী বলা হয় নাই!

-   তুমিও পার! তোও ঘটনা কি দাড়াইলো_ বিবর্তনের ধারায় মেয়েরা পড়তে আছে তো পড়তেই থাকবে? আর পইড়া ঠ্যাং লটকায়্যা বলবে লজ্জা নারীর ভূষন?

-   হইসে! আমারে আর পচাইতে হইব না। ইফতারী করতে যা।

-   আমি রোজা না।

-   ভাল হইসে। আমারটা নিয়া আয় তাইলে…

 

ইফতারী নিয়ে এসে আপুর সাথে বসলাম। আমি অবশ্য তখন আপুর কথাগুলো ভাবছিলাম। আপু জিজ্ঞেস করে বসল, ‘কিরে চিন্তাশীল!’

-   রবীন্দ্রনাথ আমার অত পছন্দের না। all possible side effects of prednisone

-   এইটা ভাবস? can your doctor prescribe accutane

-   না। মেয়েটি বিবর্তিত শুনে হই মর্মাহত।

-   হা হা… তুই ছোট ছোট জিনিসের যে সার্জারী শুরু করস তাতে তোর কাছে কোন রোগীই আইব না।

-   ভুলেও আমি ডাক্তার হইতেসি না। যাই হোক। তোমার পড়তে থাকার যুক্তিটা হাস্যকর।

-   ও তাই! এটা সর্বস্বীকৃত যে আমার সেন্স অফ হিউমার বেশি।

-   সেন্স অফ হিউমার দিয়েই তুমি বিশ্বস্ত সূত্রে সব উল্টায়া দাও।

-   আচ্ছা ক তোর যুক্তি।

-   আপু, তোমাদের মত শিক্ষিতরা যখন এরকম বায়োলজিকাল অপব্যাখ্যা দেয় তখন কিন্তু খুব রাগ লাগে।

-   এখানে অপব্যাখ্যার কি দেখলি?

-   অপব্যাখ্যা না তো কি? মেয়েরা কেন লাফ না দিয়ে হাত পা ভাঙ্গবে সেই যুক্তি দিলে না? কি মেয়েদের স্ট্রং হতে বলবে। না উলটা উইকনেসটাকে জাসটিফাই করছ।

-   ওমা! আমি বায়োলজিকাল ব্যাখ্যা দিলাম সেটাই ভুল হয়ে গেল?

-   ফ্রয়েড বৈজ্ঞানিকভাবে মেয়েদের ছেলেদের চেয়ে হীন প্রমাণ করেছিল। তুমি ফ্রয়েডের মতই এদিক দিয়ে ফ্রড।

-   হা হা। তুই হাসালি।

-   টেস্টোস্টেরন মেয়েদের শরীরে থাকেই। এটা স্বাভাবিক।

-   তাতে তো সমস্যা না। সমস্যা তো মাত্রায়। খেলাধুলায় বা লাফ ঝাপে মাত্রা বেড়ে যায়। এটা প্রকাশ করাটা তো স্বাভাবিক না।

-   বাহ! কি সুন্দর কথা! মেয়েরা কি তাইলে খেলবে না?

-   খেলবে না কেন? কিন্তু বাংলাদেশে রাস্তা ঘাটে নিশ্চই তুই ফুটবল নিয়ে খেলবি না? আমি শুধু বলেছি। আমরা কেন খেলি না। কিভাবে এই অভ্যাসটা আমাদের মাহে ঢুকে গেছে সেই কথাটা।

-   দেখ, এই অভ্যাসটা আমাদের মধ্যে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে। তুমি ভালমতি জান আমাদের বডির দু’টো পার্ট থেকে টেস্টোস্টেরন ক্ষরিত হয় যার মধ্যে ওভারি (ডিম্বাশয়) থেকে ক্ষরিত টেস্টোস্টেরন oestradiol (নারী হরমোন)-এ কনভার্ট হয়ে যায়। তাছাড়া শক্তিও বাড়ায়। muscle strength, insulin resistance reduction, endurance বাড়ানোর জন্য নারীর শরীরে টেস্টোস্টেরন ক্ষরণ জরুরী।

-   এগুলোর জন্য যে মাত্রায় দরকার। সে মাত্রা আমাদের শরীরে কি থাকে না?

-   তাহলে তো আর শুনতে হত না মেয়েদের শক্তি কম!

-   তোরে আমি ঔষধ দেই। তুই সরমোন বাড়ায়া শক্তি বৃদ্ধি কর। আর আস্তে আস্তে ছেলে হয়ে যা।

-   ভাল কথা, এস্ট্রোজেন তো নারী হরমোন। স্টাডিজ বলে alcohol খেলে এস্ট্রোজেন হরমোন নিঃসরণ মাত্রা বেড়ে যায়। ছেলেরা তো এস্ট্রোজেনের প্রভাব বেড়ে যাবে এই ভয়ে alcohol কম খায় না। অন্তত বাংলাদেশে ছেলেরাই বেশি খায়। ছেলেদের উপর বিবর্তনে এস্ট্রোজেন ভীতি কাজ করে না? ওরা কি নারী হরমোন বেড়ে যাবে ভেবে alcohol খাওয়া কমায়?

-   তা কমাইলে তো কাজই হইত।

-   সেটাই পুরুষতান্ত্রিক সমাজে ছেলেদের কোন কাজে বাধা নাই। মেয়েরা কিছু করতে গেলেই ব্যাখ্যা শুরু হয় তাও আবার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা! বাই দা ওয়ে। England এর University Bath এটা প্রকাশ করেছে যে prenatal testosterone বুদ্ধিমত্তার বিকাশ ঘটায়। টেস্টোস্টেরনের এই প্রভাবের জন্যই ছেলেরা টেকনোলজির প্রতি মেয়েদের চেয়ে বেশি আগ্রহী হয়। তো আমরা এক কাজ করি, ICT –র এই যুগে টেকনোলজির প্রতি আগ্রহ টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বৃদ্ধি প্রকাশ করতে পারে এই ভয়ে প্রযুক্তির সব শিক্ষা থেকে দূরে থাকি। ভাল হবে না? নারীত্বের পূর্ণাঙ্গ বহিপ্রকাশ ঘটবে।

-   টেস্টোস্টেরন একটা নির্দিষ্ট মাত্রায় তো থাকেই নারীর শরীরে। walgreens pharmacy technician application online

-   এই জন্যই যেটুকু প্রয়োজন ঐটুকুই টেকনোলজি শিখি। বেশি শেখার আগ্রহ দেখানোর দরকার নেই নাকি? আর যাই বল, পার্কে প্রেমিক প্রেমিকার বাদাম খাবার কথা বেশ শোনা যায়। তুমিও খাইসো। তখন কি ভাব নাই, এটা anti estrogen হরমোনাল ক্রিয়া ঘটাচ্ছে। নারীত্ত্বের পথে প্রতিবন্ধকতা! বাদাম খাওয়া তো কমায় নাই কোন প্রেমিকা!

-   একটা ছোট বিষয় নিয়া মহাভারত বানানোর ক্ষমতা তোরই আছে। zithromax azithromycin 250 mg

-   হুম আছে। তোমাদের এই উলটা পালটা ব্যাখ্যা মানতে আমি রাজি নই।

-   মাথাটা ধরে গেছে… levitra 20mg nebenwirkungen

-   উম্ম… ভাল কথা । এস্ট্রোজেনের প্রভাবেও মাথা ধরতে পারে। ব্যাপার কি?! কোন সুসংবাদ???!!!

-   তুই আমার মাথাটা ছাইরা দিলেই আর ‘মাথাধরা’ থাকবে না।

-   তাহিয়া না আসা পর্যন্ত তোমার মাথাটা ক্যামনে ছাড়ি!!!

-   পা ভাঙ্গা না থাকলে লাত্থি মাইরা বাইর কইরা দিতাম…

-   বাইচা গেসি…

You may also like...

  1. অংকুর বলছেনঃ

    হাহ হাহ হাহ। শেষের অংশ টা মজার ছিল। আর উপরের পুরো অংশটাই ছিল গুরুত্ব দিয়ে দেখার বিষয়। আসলে মেয়েরা নিজেরাই নিজেদেরকে গুটিয়ে রেখেছে। এটা ঠিক না। যার যতটা প্রাপ্য তা আদায় করে নেয়া উচিত। চমৎকার লেখা

  2. থিমটা চমৎকার ছিল। তবে একটানা সংলাপ দিয়ে যাওয়া পাঠক অনেক ক্ষেত্রে খেই হারিয়ে ফেলতে পারে।

    acquistare viagra in internet
  3. মজার লাগছে তবে একটা মাত্র চিত্রগল্পে গোটা কাহিনী শেষ কেমন হয়ে গেল! আর ভাল লেগেছে লেখিকা গল্পে নারীকেই একটু বেশী দিয়েছে বলে! শেষে গল্পে হিরো ছেলেটাই!! সবই যেহেতু বুঝেন এইবার আপনার দায়িত্ব আপনি প্রথম পরিবর্তনে উদ্যোগ নিন…

  4. আসলেই। স্কুলে যখন নাইনে উঠলাম, হঠাৎ সব মেয়েদের খেলা বন্ধ হয়ে গেল। যদি ডাকতাম খেলবি না, তারা বলত বাচ্চা আছি নাকি!! অথচ ছেলেপেলে ঠিকই খেলত। সিক্সের পোলাপানের সাথে খেলছি যেখানে ক্লাসমেটরা আয়না নিয়ে ব্যস্ত থাকত।

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.