আনন্দ সঙ্গম… (প্রাপ্তবয়স্ক পাঠকের জন্য)

8888

বার পঠিত

শেফালী আপা বসে আছেন বারান্দার ইজি চেয়ারে, তার আঙ্গুলের ডগায় অনেকখানি চুন। অনুরাগ অবাক হয়ে লক্ষ্য করলো তিনি পান খাচ্ছেন না, তাকে সে কখনোই পান খেতে দেখেনি! সে ভেবে পেলোনা একটা মানুষ শুধু শুধু চুন কিভাবে খাবে!
তাকে অবাক করে দিয়ে শেফালী আপা চুনটুকো তার মুখে মেখে নিলেন, তাকে আগের’চে একটু ফর্সা দেখালো। তখনি অনুরাগ বুঝতে পারলো ক্রিমকে সে চুন ভেবে ভুল করেছিলো। accutane prices

‘কি রে কি ভাবছিস?’
অনুরাগ তার পায়ের বুড়ো আঙ্গুলের দিকে তাকিয়েছিলো, সেদিকে তাকিয়েই জবাব দিল,
- কিছু ভাবছিনা তো!
‘কিছু তো বটে! কাল না তোর জন্মদিন ছিলো? স্যরি রে আসতে পারিনি। তোর বয়েস কতো হলো এবার?’
- চৌদ্দ
‘বাহ! বড় হয়ে যাচ্ছিস। প্রেম টেম করছিস?’
অনুরাগ লজ্জা পেয়ে গেলো। শেফালী আপা তার সাথে প্রেম নিয়ে কথা বলছেন ব্যাপারটা তাকে কেমন অস্বস্তিতে ফেলে দিলো। শেফালী আপার বয়েস পঁয়তাল্লিশ। শহরের একজন নামকরা ডাক্তারের সাথে আঠারো বছর সংসার করার পর দুবছর হলো ডিভোর্স নিয়ে একা থাকছেন, পেশায় তিনি নিজেও ডাক্তার। দূরসম্পর্কের আত্মীয়তার সুবাদে অনুরাগের বাবার দোতলায় ভাড়া থাকছেন তিনি। যেদিন চেম্বার বা ডিউটি থাকেনা সেদিন শেফালী আপার বাসায় গিয়ে তার পাশে বসে থাকতে ভালো লাগে অনুরাগের। অদ্ভুত একটা টান অনুভব করে সে। বুঝতে পারেনা কেনো এমনটা হয়।

‘লজ্জা পেলি?’
অনুরাগ খেয়াল করলো মুখে দুষ্টুমির হাসি নিয়ে শেফালী আপা তার দিকে তাকিয়ে আছেন। সে মাথা উপর নীচ করলো।
‘ওরে আমার লজ্জারে! পুরুষ মানুষের লজ্জা মানে অন্য জিনিস। যে যতো লাজুক সে ততো লুচ্চা’
অনুরাগ হেসে দিল। সে আসলে মোটেও লাজুক নয়। শুধু শেফালী আপার সামনে এলে কেমন যেনো হয়ে যায়। সে সরাসরি চোখের দিকে তাকিয়ে বললো,
- তোমাকে অনেক সুন্দর লাগছে আজ!
‘ধুর ছাই বাল লাগছে! বয়েস হলে শরীরে ভাটা আসে। রূপ থাকেনা।’
শেফালী আপার মুখে ‘বাল’ শব্দটা শুনে অনুরাগের শরীরে কেমন কাটা দিয়ে উঠলো। কোথায় যেনো একটা সুরসুরির মতো খেলে গেলো শরীরে। মাঝে মাঝে এমনটা হয়। অনুরাগ ঠিক বুঝতে পারেনা। দখিনা হাওয়া প্রবল বেগে বারান্দায় এসে লাগছিলো। শেফালী আপার শাড়ীর আঁচল বুক থেকে খসে গড়াগড়ি খাচ্ছিলো মাটিতে। তার কালো ব্লাউজের ভেতরে প্রায় অর্ধেক বুক আর ম্যারুন রঙের ব্রার ফিতে দেখতে পাচ্ছিলো অনুরাগ। ইচ্ছে থাকার পরও সে চোখ ফেরাতে পারছিলোনা।

‘ড্যাবড্যাব করে কি দেখছিস?’
শেফালী আপার এমন প্রশ্নে গলা শুকিয়ে কাঠ হয়ে গেলো অনুরাগের। কি জবাব দেবে বুঝে উঠতে পারছিলোনা। তোতলাতে তোতলাতে শুধু বললো,
- কই না তো!
শেফালী আপা হেসে দিলেন।
‘হলো আর বিব্রত হওয়া লাগবেনা। পুরুষ মানুষের স্বভাবই এমন, দেখলেই তাকিয়ে থাকবে! একটু ঘনিষ্ঠ হলে ছুঁয়ে দেখতে চাইবে, তারপর কামড়ে, চুষে…

কি রে? ওমন কাঠ হয়ে আছিস যে?’

অনুরাগ ঠান্ডা মেরে বসে আছে। শেফালী আপার আজকের কথাবার্তা, আচরন অন্যরকম লাগছে তার কাছে। অনুরাগের খুব ইচ্ছে হলো সত্যি সত্যি শেফালী আপাকে একটু ছুঁয়ে দেখে। শেফালী আপা চেয়ার টেনে তার দিকে আরেকটু ঝুঁকে এসে বললেন,
‘পুরুষ মানুষের আরেকটা গোপন ব্যাপার কি জানিস?’
- কি?
‘সেক্সের সময় তিন মিনিটকে তারা ত্রিশ মিনিট ভাবতে পছন্দ করে। যদি জিজ্ঞেস করিস আপনি বিছানায় কতোক্ষন পারেন? বেশীরভাগ বাঙালী পুরুষের জবাব হবে, ত্রিশ মিনিট। পনেরোর নীচে তো কেউ যাবেই না। কেউ কেউ এক ঘন্টাও বলে দেবে। অথচ এরাই একটু চাপে রস খসিয়ে দেয়।’
শেফালী আপা হাসতে হাসতে অনুরাগের হাঁটুতে গড়িয়ে পড়লেন। অনুরাগের কান দিয়ে গরম হাওয়া বেড়ুচ্ছিলো। শেফালী আপা মুখ তোলে তার দিকে তাকালেন, দু’চোখ ভর্তি অদ্ভুত নেশা, ঘোর লাগা ঘোলাটে দুটো চোখ। কেমন মায়াময় মনে হয়। প্রচন্ড কাছে টানে। কপালে বিন্দু বিন্দু ঘাম।
যন্ত্রচালিতের মতো সেখানে চুমু খেলো অনুরাগ। ঠোঁটে তার নোনতা স্বাদ লেগে রইলো। শেফালী আপা চোখ বন্ধ করে বসে ছিলেন, ঠোঁট সরাতেই চোখ খুলে তাকালেন। উড়ুতে প্রবল বেগে নাক ঘষতে ঘষতে উপরে উঠে এলেন, একদম অনুরাগের বুকের কাছে। গলায় প্রচন্ড আবেগ মেখে জিজ্ঞেস করলেন,
‘তুই আমায় চাস অনুরাগ?’
এখানে চাওয়া পাওয়ার কি আছে বুঝতে পারলোনা সে! শেফালী আপার চুল থেকে আসা গন্ধ নিতে নিতে বললো,
- চাই!
শেফালী আপার প্রবল অস্থিরতা টের পাচ্ছিলো অনুরাগ! তার গোপনীয়তাটুকো হাতের মুঠোয় নিয়ে বললেন,
‘তোর দাঁড়িয়ে গেছে অনু… তোর আদর দিতে ইচ্ছে করছে তাইনা?’
কথা শেষ হতে অনুরাগের হাত ধরে টেনে বিছানায় নিয়ে গেলেন শেফালী আপা। অনুরাগ জানেনা কি হচ্ছে। সে শুধু জানে যা হচ্ছে তার ভালো লাগছে।
শেফালী আপা সম্পূর্ন বিবস্ত্র হয়ে শুয়ে পড়ে বললেন,
‘আমার বুকের খাঁজে মাথা রাখ, নাক ডুবিয়ে বসে থাক কিছুক্ষন, তারপর ধীরে ধীরে তোর ঠোঁট দুটো দিয়ে আমার সমস্ত শরীর ছুঁয়ে দে, যেভাবে আমার কপাল ছুঁয়েছিলি! দে অনুরাগ’
অনুরাগ নাক ডুবালো, উচু হয়ে থাকা বুকের মাঝখানে সমতল খাদ! সেখানে পোঁছাতে হলে মাথাটাকে সজোরে চেপে ধরতে হয়।
অনুরাগ ভেবে পেলোনা একটা মানুষের শরীরে এতো সুখ কিভাবে লুকিয়ে থাকতে পারে। এটাই তার জীবনে পাওয়া প্রথম যৌনসুখ। আনন্দ সঙ্গমের পর ক্লান্ত দেহে শেফালী আপার বুকের উপর অনেক্ষন শুয়ে থাকলো অনুরাগ। হঠাৎ করেই তার মনে হলো এই মহিলাকে সে ভালোবেসে ফেলেছে। একে ছাড়া তার জীবন অর্থহীন।

You may also like...

  1. সফিক এহসান বলছেনঃ

    বিচিত্র এক প্রাণি এই মানুষ… তারচেয়েও অদ্ভুত তার জীবন…

  2. অনুস্বার বলছেনঃ

    বাচ্চারা চোখ বন্ধ করো… X_X :_SS

    টু বি ফ্রাংক, উন্নতমানের চটি সাহিত্য পড়লাম। ~x( তবে লেখক এর দ্বারা যেটা বোঝাতে চেয়েছেন, সেটা একেবারে স্পষ্ট ও দৃশ্যমান। মানুষের চেয়ে বিচিত্রতর প্রাণী এখনও এই মহাবিশ্বে সৃষ্টি হয়নি। আর দেহ যে কখন কার জেগে উঠবে, কেউ বলতে পারে না। :-” দুর্ঘটনা ঘটে যাবার পর শুধু অবাক বিস্ময়ে তাকিয়ে থাকতে হয়… #-o

  3. ছেলের বয়স চৌদ্দ একটু কমই…… আর হঠাৎ এমন কথা অসামঞ্জস্য লাগলো রাজু দা।

    বহু দিন পর গল্প লিখলেন।

    আর টপিক খারাপ না। বয়স যতই প্রত্যেকটা মানুষের শারিরিক চাহিদা থাকে। তা সে পূরণ করতে চায়। irbesartan hydrochlorothiazide 150 mg

  4. ধন্যবাদ জয়! হাতে জং ধরে ছিলো। একটু বাজালুম। হা হা হা।

  5. এটা চটি টাইপ হয়ে গেছে।
    আপনার অন্য লেখাগুলো চটি মনে হয় নি। can levitra and viagra be taken together

    acne doxycycline dosage
  6. রাজু রণরাজ বলছেনঃ

    চটি টাইপ হয়েছে, চটি হয়নি! কিছু কিছু গল্প আছে যেগুলো এভাবে না লিখলে হয়না! :-(

    renal scan mag3 with lasix
    zovirax vs. valtrex vs. famvir
  7. চটিকে কেনো সাহিত্য বলা যাবেনা? এতে কি শ্রম, ঘাম, আবেগ মিশে থাকেনা?… যৌনতাকে নিশ্চই অস্বীকার করতে পারেন না! চটুল রগরগেপনা যদি না থাকে সেটাকে কেনো ভিন্নভাবে গ্রহন করা হবেনা? এটাও সত্য, মাঝে মাঝে শীল্পের বাইরে এসে অশৈল্পিক কিছু করাটাও একধরনের শীল্প।… তাছাড়া জীবন সবসময় শীল্পের মাপকাঠিতে চলেনা।

    ৭ দিন অনাহারে থাকা রোগা একটা মানুষ যদি আপনার সামনে এসে দাঁড়ায় তার মাঝে কি আপনি শীল্প খুঁজবেন? যৌনতার ক্ষুধাও তো ক্ষুধা! নাকি?

    cialis new c 100
  8. তারিক লিংকন বলছেনঃ

    ইমো দিতে পারছি না! ইমোই একমাত্র আদর্শ প্রতিক্রিয়া দেখানোর হাতিয়ার ছিল আমার। রাজু-দ্যা আপনি পারেনও বটে…

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

can your doctor prescribe accutane

tome cytotec y solo sangro cuando orino

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.