Middle East Respiratory Syndrome (MERS)

450 wirkung viagra oder cialis

বার পঠিত

Middle East Respiratory Syndrome (MERS) হচ্ছে মূলত একটি শ্বাসকষ্টজনিত রোগ।  এটা সর্বপ্রথম সৌদিআরব এ ধরা পরে। এটি   MERS-CoV নামের একটি coronavirus এর আক্রমনে হয়ে থাকে। এটি একটি ছোঁয়াচে র যেসব মানুষ MERS এ আক্রান্ত বলে নিশ্চিত হয়েছেন তারা সবাই শ্বাসকস্টজনিত সমস্যায় ভুগেছেন। যেমন জ্বর, সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্ট। অধিকাংশ রোগীর নিউমোনিয়া হয়ে থাকে। কারো কারো ক্ষেত্রে কিডনি ফেইলর। নিশ্চিতভাবে MERS-CoV ইনফেকশন আছে এমন মানুষের ৩০% এ পর্যন্ত মারা গেছেন।

আক্রান্ত এলাকা

metformin synthesis wikipedia

যেসব মানুষের MERS-CoV Infection সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া উচিতঃ

১। জ্বর (  ≥ 38°C , 100.4°F )

২। নিউমোনিয়া অথবা শ্বাসকস্ট

৩। যারা আরব রাষ্ট্রগুলোর সম্প্রতি ভ্রমণ করে এসেছেন

৪। আরব রাষ্ট্রগুলোর সম্প্রতি ভ্রমণ করে এসেছেন এমন ব্যক্তির সাথে মেলামেশা করেছেন এমন

৫।   MERS-CoV Infection নিশ্চিত এমন ব্যক্তির সাথে মেলামেশা করেছেন এমন কেউ

৬। প্রস্রাব বন্ধ হয়ে যাবার জটিলতা

মার্স ভাইরাসের উৎপত্তি বা উৎস সম্পর্কে এখনো নিশ্চিতভাবে কিছু জানা যায়নি। কীভাবে কার মাধ্যমে এটা ছড়ায় তাও এখনো অজানা। জটিলতা হচ্ছে মার্স ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা দিতে গিয়ে চিকিৎসক এবং সেবা দিতে গিয়ে সেবক সেবিকাদেরও আক্রান্ত হতে দেখা গেছে।

২০১২ থেকে ৪ জুন ২০১৪ পর্যন্ত বিশ্বের স্থানীয় স্বাস্থ্য কতৃপক্ষের দ্বারা ৮১৫ টি MERS-CoV infection ঘটনার উল্লেখ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে মৃতের সংখ্যা ৩১৩।

৩ জুন ২০১৪ তে Ministry of Health of Saudi Arabia তাদের পরিসংখ্যান এর আপডেট করে যার মধ্য আরো ১১৩ জন বৃদ্ধি হয়, মানে প্রায় ২০% বৃদ্ধি হয়। এইখানে কেসের সংখ্যা ৬৮৮, যাদের মধ্যে আরোগ্য লাভ করেছেন ৩৫৩ জন,  মারা গেছেন ২৮২ জন এবং ৫৩ জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন।

পরিসংখ্যান

পরিসংখ্যান

বিশেষজ্ঞগণ মার্স ভাইরাস বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন। কারণ হজ্ব এবং ওমরা উপলক্ষে পৃথিবীর বিভিন্ন রাষ্ট্র থেকে লক্ষ লক্ষ মানুষের সৌদি আরব গমন। এমতাবস্থায় প্রতিটি হজ্বযাত্রীকে মার্স ভাইরাস বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

সতর্কতামূলক ব্যবস্থা : এখনো পর্যন্ত মার্স করোনাভাইরাসের কোন নির্ধারিত ভ্যাকসিন আবিষ্কার হয়নি, শুধু মার্স ভাইরাসের নির্দিষ্ট কোন চিকিৎসাও নেই। তবে বিশেষজ্ঞগণ জোর দিয়ে বলেছেন কিছু সর্তকতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করলে এই করোনাভাইরাসের আক্রমণ থেকে সহজেই রক্ষা পাওয়া যায়। সতর্কতামূলক পদক্ষেপগুলো হচ্ছে-

সাধারণ সাবধানতা অবলম্বন। মার্স ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সাথে ক্লোজ কন্টাক্ট পরিহার করা।

মার্স ভাইরাস আক্রান্তদের সাথে একত্রে শোয়া, খাওয়া, তাদের ব্যবহার্য জিনিসপত্র ইত্যাদি পরিহার করা। about cialis tablets

বাইর থেকে এসে এবং কিছু খাওয়ার আগে সাবান দিয়ে অন্ততঃ ২০সেকেন্ড ভালভাবে হাত ধোয়া।

পরিষ্কারভাবে হাত না ধুয়ে হাত দিয়ে চোখ, মুখ স্পর্শ না করা।

নাক এবং মুখ পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত টিসু বা কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা।

সর্বদা জীবাণুনাশক দিয়ে ডোরনব, ঘরের ফ্লোর ইত্যাদি পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করা। clomid over the counter

কফ এবং নাক দিয়ে বের হওয়া সর্দি পরিষ্কার টিসুতে মুছে সতর্কতার সাথে নির্দিষ্ট বক্স ইত্যাদিতে ফেলা। যাতে করে সাধারণ মানুষের মাঝে তা ছড়াতে না পারে।

You may also like...

  1. জন কার্টার বলছেনঃ

    স্পীকার সাহেব আপনার দেওয়া তথ্য দেখে তো রীতিমত ডরালাইছি…… ধন্যবাদ ভয়াবহ এই রোগ সম্পর্কে আমাদের অভিহিত করার জন্য

    will i gain or lose weight on zoloft
  2. সফিক এহসান বলছেনঃ

    শিরোনামে MERS বানানটা ভুল (MARS) এসেছে… শুধরে নেবার অনুরোধ করছি।
    বাকি মন্তব্য পোস্ট পড়ার পর… :)

    zithromax azithromycin 250 mg
  3. সভ্যতায় এ নিয়ে আগে একবার পড়েছি আবার পড়লাম। আপনার টায় তথ্য একটু বেশি।

  4. এ নিয়ে প্রথমবার পড়লাম। অনেক কিছুই জানতে পারলাম। :)

  5. ত্রিভুজ বলছেনঃ

    ভালো লাগল । আমার পোস্টে আমি অনেক কিছুই লেখতে পারিনি । আপনি লেগুলি পরিস্কার করে লিখে ফেলেছে । সুন্দর হয়েছে লেখাটা ।

    buy kamagra oral jelly paypal uk

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

metformin gliclazide sitagliptin

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.