বকুল তলায় শিউলি ঝরে অন্ধকারে… ১৮ +

454

বার পঠিত

অন্ধকারে বকুল তলায় শিউলি ফুলের ঝরে পরা দেখিনি,
তবে কি করে বুঝবো ক্ষুধার কি করুন জ্বালা?
অথচ কত নির্মমতায় শুষে নেয় গন্ধ,মাড়িয়ে যায় সকল রূপ লাবণ্য-
শরীর ক্ষুধায় কাতর একটি ভদ্র কুকুর।

                                                          তবু ভোরের অপেক্ষায় থাকে গন্ধবিহীন মলিন শিউলি,বাসি ফুলের মালা গাঁথে যদি কেউ?
                                                          রাত পুহালে,চড়ুইদের খুনসুটিতে ভালোবাসার গন্ধ ছড়ায়,বকুল শাখে।

অভ্যুক্ত শিউলি গন্ধ কুড়ায়,হতাশ চোখে রঙ মেখে ঝরে আবার বকুল তলায়-
নেমে আসে সন্ধ্যা। পেটের ক্ষুধা মিটাবে আজও শরীরের দায়,
ঐ তো দেখা যায় ভদ্রবেশী আরো একটি কুকুর,তার পকেট ভর্তি টাকা…

 

মুখে মুখে কবিতা বানানো সকলের ক্ষেত্রে শোভা পায়না।এমন জীবনের আবার কোন ‘বোধ’ আছে নাকি?পেটের ক্ষুধা মিটাতে যখন শরীরটাকে বন্ধক দিতে হয় তখন এইসব জীবন বোধ,উপলব্ধি,অনুভূতি সব মিথ্যা হয়ে যায়।

সন্ধ্যা হয়েছে কখন।চারদিকে অন্ধকার ঘনীভূত হচ্ছে।শিউলি সোডিয়াম লাইটের নিচে দাড়িয়ে ছোট পার্স হতে ছোট আয়নাটা বের করে।ঠোঁটের লিপিস্টিক ঠিক করে মুখে আরো কিঞ্চিৎ মেকআপ লাগিয়ে নেয়। আয়নায় দেখতে খুব খারাপ লাগছে না।শুধু গতকালকের পাওয়া বাম গালের ছোট আঁচড় টা ছাড়া মুখে আর কোন দাগ নেই।

শিউলি অপেক্ষায় আছে।আজ দুপুরে খাওয়া হয়নি।ইদানীং ব্যবসা খুব ভালো যাচ্ছে না।টাকা পয়সার খুব টানাটানি অবস্থা। একটা লোক এইদিকেই এগিয়ে আসছে।শিউলি দ্রুত আর একবার নিজেকে আয়নায় দেখে নেয়।এরপর লোকটি কাছাকাছি আসতেই শিউলি লোকটার চোখের দিকে তাকিয়ে বুকের উরনাটা হাত দিয়ে ফেলে দেয়।লোকটা দেখেও না দেখার ভান করে পাশ কাটিয়ে চলে যায়। শিউলি দীর্ঘশ্বাস ফেলে।না,আজকেও বোধ হয় কোন ক্ষেপ ধরতে পারলাম না।

আজ রাস্তায় একেবারেই মানুষ নাই।যদিও দুই একজন যাওয়া আসা করে তারা সব জাত ভদ্রলোক।শিউলি মনের অজান্তেই খুধায় পেটে হাত বুলাতে থাকে।হঠাৎ দেখতে পায় একটা মধ্য বয়স্ক লোক ধীর পায়ে সিগেরেট টানতে টানতে এগিয়ে আসছে। মধ্য বয়স্ক লোকটা কাছাকাছি আসতেই শিউলি আবারও উরনা ফেলে দিয়ে লোকটার দিকে তাকিয়ে হাসতে থাকে।লোকটি থমকে দাড়ায়।এরপর আশেপাশে তাকিয়ে ইশাড়ায় পাশেই অন্ধকার বকুল তলায় আসতে বলে।

বকুল তলায় দাড়িয়ে চাপা স্বরে কথা বলে দুইজন।শিউলি বলে একশত টাকা।কিন্তু লোকটি ৫০টাকার বেশি দিতে রাজি না দেখে শিউলি আর কিছু বলে না।ক্ষুধায় পেটে এতো দরদাম সয়না।যা পাওয়া যায় তাই সই।পড়নের কামিজটা খুলে অন্ধকারে পাতা দিয়ে তৈরি করা বিছানায় শুয়ে পড়ে। লোকটা কিছুক্ষন নিজের বয়সের সাথে যুদ্ধ করে শরীরের সমস্ত শক্তি দিয়ে শিউলির শরীরের দরদাম করে কিনা সুখ গুলিকে তার জিপারের ফাঁক দিয়ে ঢুকিয়ে নেয়।এবং অবশিষ্ট সুখ গুলি কুকুরের মত চেটেপুটে খেয়ে তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলে।যাবার বেলা ৩০টাকা অন্ধকারে শিউলির হাতে গুঁজে দিয়ে সিগারেট ফুঁকতে ফুঁকতে চলে যায়।

শিউলি দ্রুত বকুলতলার আরও পিছনদিকটায় পুকুরঘাটে গিয়ে শরীরটা যথাসম্ভব পরিষ্কার করে কামিজটা পড়ে আবার সোডিয়াম লাইটের নিচে চলে আসে।দলা পাকিয়ে রাখা টাকা টা ব্লাউজের ভিতর থেকে বের করে দেখে তিরিশ টাকা।প্রচণ্ড ক্ষোভে শিউলি মনে মনে একটা গালি দেয়, ‘শালা বুইড়া ভাম একটা আস্তো ছোটলোক’।

এই টাকায় পেট ভরে খাওয়া যাবে না।শিউলি আবার অপেক্ষায় থাকে।সোডিয়াম লাইটের আলোয় নিজের অজান্তেই মুখে মুখে কবিতা বানাতে থাকে।বকুলতলায় শিউলি ঝরা রাতের কবিতা।

 

You may also like...

  1. দুরন্ত জয় বলছেনঃ

    ভাল লেগেছে।

    থিম টা ভাল…… সবই পেটের দায়ে করা।

  2. তারিক লিংকন বলছেনঃ

    বকুলতলায় শিউলি ঝরা রাতের কবিতা।…

    — অনবদ্য হইছে। কে বলবে এইটা আপনার প্রথম গল্প লিখা?
    দারুণ থিম। :-bd :-bd :-bd :-bd :-bd ^:)^ ^:)^

    accutane prices

প্রতিমন্তব্যএসজিএস শাহিন বাতিল

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment. soulcysters net metformin

pharmacy tech practice test online free
does accutane cure body acne
sildenafil efectos secundarios