গ্লোবাল খেয়ে লোকাল ভাবনা, প্রসঙ্গঃ নারীর পর্দা প্রথা

586

বার পঠিত

চা, কফি সফট ড্রিংক্স, জুস, কিংবা এনার্জি ড্রিংক্স; এইসব কি বঙ্গীয় খাবার নাকি লাচ্ছি, মাঠা কিংবা লাবাং? পাশাপাশি সব কিছু খেতে কোন সমস্যা হচ্ছে আপনার? কিংবা আমার? আমাদের? হচ্ছে না একটুও খুব সহজেই আমরা সব মানায় নিয়েছি, গ্রহণ করেছি সত্যকে সহজে।

আপেল, কমলা অথবা ব্ল্যাকবেরী কি আমাদের ফল কিংবা হালের স্ট্রবেরী? নাকি বরই, পেয়ারা, আতাফল আর ঢেউয়া -লটকন এইসব আমাদের ঐতিহ্যবাহী ফল? কই সবই তো নির্দ্বিধায় খাচ্ছি একসাথে! ভালকে সত্যকে গ্রহণ করতে কোন সমস্যা হয় নি বাঙালী নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর।

ফ্রেন্স ফ্রাই আর ফ্রাইড চিকেন কিংবা চাইনিজ আর থাই ফুড এই তল্লাটের ভোজন রীতির অংশ? আমি জানতাম খিচুড়ি, তেহেরি কিংবা ভর্তা আর ইলিশ পান্তা কিংবা মাছ-ভাত-ডাল এইসবই আমাদের খাবার রীতি। তাহলে সবই তো খাচ্ছি দুনিয়ার যেখানের যেটা ভাল বা পছন্দ হয় সেটাই তো গ্রহণ করেছি।

ক্রিকেট খেলা বা ফুটবল কি বাঙালী খেলা, কিংবা গলফ আর হকি বা অন্য যে কোন জনপ্রিয় খেলা? হাডূডু, কাবাডি, ডাঙগুলি কিংবা দারিয়াবান্দা, কানামাছি ভোঁ ভোঁ তাহলে কাদের খেলা; আমাদের জাতীয় খেলা তো এইসবও। তাহলে বাইরের খেলা আমাদের সব দখল করে নিল কীভাবে?

সাইকেল, মোটর সাইকেল অথবা বাস, প্রাইভেট কার কি আমাদের অথবা জাহাজ কিংবা স্পীড বোট? গরুর গাড়ি, টম টম, কিংবা নৌকা আর ঠ্যালা গাড়ি, রিকশা এইসবই তো আমাদের যানবাহন ছিল। তাহলে আধুনিকতা আর গতির জন্যে সবাই তো ঠিকই পশ্চিমা যানবাহনের পেছনে ছুটল।

আচ্ছা টিভি কিংবা রেডিও কি আমাদের সংস্কৃতির অংশ অথবা চলচ্চিত্র আর নাটক? যাত্রাপালা, পথনটক কিংবা বায়োস্কোপ দিয়েই কি পরিপূর্ণ বিনোদন হবে গ্লোবাল মানুষের? ইউটিউব ইন্টারনেট দুনিয়া জোড়া উন্মুক্ত বিনোদনের বিশ্ব দুয়ার। রক, ব্যান্ড কিংবা হিপহপ সবই গ্রহণ করেছি আমরা স্বকৌশলে।

পুরুষের জিন্স টি শার্ট, থ্রি কোয়ার্টার কি বাঙালীয়ানা পোশাক, কিংবা স্যুট-টাই, শার্ট-প্যান্ট? লুঙ্গি, ফতুয়া, কোর্তা, পায়জামা এইসবই তো বাঙালীর হাজার বছরের পোশাক। কই আধুনিক, সুন্দর, আরামদায়ক আর সুবিধাজনক এই পোশাককে স্বাগত জানাতেও আমরা বাঙালীরা ত্রুটি করি নি।

আর কতো লিখবো? থ্যাঙ্কু, ধন্যবাদ থেকে শুরু করে হ্যালো, গুগুল কর, মেইল, ফেবু করা, টুইট করা সবই মেনে নিয়েছে দরকারে, প্রয়োজনে। লোকাল বাঙালী গ্লোবাল সব কিছুই গ্রহণ করেছে নিজ প্রয়োজনে, কিন্তু একটা যায়গায় তারা কোন ছাড় দিবে না। খুব কঠোর হতে হয় এই যায়গায়। ভাবখানা এমন এই যায়গায় ছাড় দিলে আমাদের নৃতাত্ত্বিক স্বকীয়তা সবই হারিয়ে যায়, যদিও তা নৃতাত্ত্বিক ঐতিহ্যকে রক্ষার জন্যে না করা হচ্ছে “আফিমের” নেশায়। viagra vs viagra plus

নারীদের গর্ব করা উচিৎ বাঙালী মুসলমান পুরুষেরা মনে করে আমাদের সকল নৃতাত্ত্বিক ঐতিহ্য নারীর দেহকে ঘিরে অর্থাৎ নারীর পোশাকে। যেভাবে হোক নারীর গ্লোবাল কাপড় চোপড় লোকালি পড়া যাবে না; দুনিয়ার আর সব কিছুই গ্রহণ করব খালি এইটা বাদে। বরং মধ্য প্রাচ্য থেকে খাঁচা মাচা কিছু আমদানি করে আরও বন্ধী করা হবে; কিন্তু বাকী সব মানা গেলেও এইটা মানা যাবে না। সিনেফ্লেক্সে যামু ব্লকব্লাস্টারও বাদ দিমু না কিন্তু মেয়েকে বোরকা পড়তে হবে, হিজাব করতে হবে!!

“ইংরেজি” শিখে “স্প্যানিশ” বলতে অবশ্য কোন মানুষকে আমি দেখি নি, ইংরেজি শিখা মানুষকে ইংরেজি বলতেই দেখি। কিন্তু আমাদের এক শ্রেণীর আফিমাক্রান্তরা গ্লোবালী বসবাস করে মধ্যযুগীয় আচরণ করতে চাই, সেলুকাস।

আসল সমস্যা মধ্যযুগে কিংবা অন্ধকার যুগে আমাদের সংস্কৃতিতে ডুকে পরে আরেক অর্বাচীন পশ্চাৎপদ বর্বর সংস্কৃতি। যে সংস্কৃতির মুলই হচ্ছে নারীকে বন্ধী করে ঘর সাজানো পণ্য বানানোর এক কঠোরতম নির্মম সংস্কৃতি। আর সেই অর্বাচীন সংস্কৃতি ডোপিং এর প্রতিক্রিয়া এখন আমাদের সংস্কৃতিতে।

যে খাপ খাওয়াতে পারবে না সে ঝরে পড়বেই, কিন্তু সমাজে এর দূষণ বেশী হলে ক্ষয়ক্ষতি একটু বেশীই হবে বোধকরি! বলির পাঁঠা বরাবরের মত সেই সভ্যতার জননী ‘নারী’। মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের মত করে বলতে হয় ‘“সকল নারীর কাছে আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। এ ঘটনা আবার স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে- কী হিংস্রতা ও নগ্নতা আমাদের মনের গহীনে বাসা বেঁধেছে। কী ঘৃণ্য মানসিকতা আমাদের পেয়ে বসেছে।” মাঝে মাঝে মনে হয় ৮-৯’শ বছরের ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে সমাজে ক্যামো থ্যারাপিতে রোগীর অবস্থা কাহিল হবেই!!

If you live globally think & behave globally…

You may also like...

  1. লেখাটা অসাধারণ লাগলো। বর্তমানের বেসির ভাআগ মানুষ ধর্মকে ধারণ করেনা। ধর্মকে ব্যাবহার করে। সেটা ইসলাম ধর্ম হোক কিংবা খ্রিস্টান ধর্ম। এই যেমন পহেলা বৈশাখ এর ঘটনা ঘটল এর জন্য দায়ীদের দোষারোপ না করে উল্টা ধর্ম বা এর রীতিকে বিকৃত করে ব্যাবহার করা হচ্ছে নারীদের দোষারোপ করার জন্য। এর মাধ্যমে মুল আসামিকেই আরাল করা হচ্ছে।

    acne doxycycline dosage
  2. যতই আধুনিক হোক, ওই পশু এবং তাদের সমর্থক গোষ্ঠীর মানসিকতা মধ্যযুগীয় হয়েই থাকবে। সব যৌন হয়রানির ঘটনায় তারা
    টান দিবে তারা ধর্ম আর নারীর পোশাককে।

    clomid over the counter
  3. বাঙ্গালির সব ঠিক আছে কিন্তু ঐ যে তালগাছ আমার। নিজে সারাদিন ফেসবুকে বসে আড্ডা মারবে। আর সব দোষ নারীর । metformin tablet

    wirkung viagra oder cialis
  4. মাশিয়াত খান বলছেনঃ

    আমার লেখাটা ভালো লাগেনি। ফেবু টাইপ লেখাই মনে হল। অর্ধেক পোস্ট শুধু এক বিষয়ে উদাহরণ দিয়েছেন। বাকিটা সেই বিষয়টাকে টানতে। একটা কনসেপ্ট। ছোট করে বললে, ফেবুতে যদি একটা উদাহরণ আর দুই আইনে সারমর্ম দিতেন তাইলে আর এতক্ষণ ধরে পড়া লাগত না। কনসেপ্ট ও বুঝতাম। স্যালুটও দিতাম। এক আঙ্গুলের স্যালুট। আপনি বড় করে লেখা ভুলে গেছেন নাকি???

    half a viagra didnt work
  5. দুরন্ত জয় বলছেনঃ

    আপনি পাঠক হিসেবে আপনার আগের পোস্ট এবং এটি পড়ে নিজেই বিচার করুন…

    কমু টাইপ শব্দের ব্যবহার আর এমন ফেসবুকীয় পোস্ট আপনাকে মানায় না…

    আর যতটুকু লিখেছেন তা নিয়ে বলি বাঙ্গালি বিদেশি সংস্কৃতির অগ্রাসন না চাইলেও আরবীয় সংস্কৃতি ঠিকই চায়…
    আর আরেক দল নিজের সংস্কৃতিকে ভারতীয় সংস্কৃতি বলতে আগ্রহী বেশি…

  6. লেখাটি ভাল কিন্তু আরেকটু তথ্যবহুল হলে ভাল হত।

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.

viagra en uk