৪৪ বছর পরের গল্প

336

বার পঠিত

৭১ এর সেপ্টেম্বর মাস ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়ির পথে পা বাড়ালো বালক ইব্রাহিম ভূঁইয়া।সদরঘাট পর্যন্ত যেতেই পচা লাশ-আর শুকানো রক্তের গন্ধে ভিতর থেকে নিজেকে ঘুলিয়ে ফেলছিলো বার বার।রাস্তার মোড়ে মোড়ে পাঞ্জাবী সেনাদের তল্লাশীর ভিতর দিয়ে সদরঘাট পৌছে অপেক্ষা করতে থাকলো বাড়ি ফেরার। metformin tablet

পুরো টার্মিনাল জুড়ে পাঞ্জাবী সেনাদের কড়া পাহারা।কিছুক্ষণ বাদেই এক বৃদ্ধ এলো সঙ্গে তার নবপরিণীতা পুত্রবধূ আর নিজের ১৬ বছরের কন্যা, উদ্দেশ্য মুন্সিগঞ্জ।পাঞ্জাবী সেনারা সবাইকে তল্লাশী চালিয়ে বললো’ ইয়ে দো আওরাত… নাহি যায়েগী”।আকাশ ভেঙ্গে পড়লো বৃদ্ধর মাথায় হাতে পায়ে পড়লো পাঞ্জাবী নরপশুদের,সেনাদের লাথি আঘাতে খানিক দূরে গিয়ে পড়লো।কোনমতে উঠে দাঁড়িয়ে সামনে যাকে পাচ্ছে তার কাছেই নিজের মেয়ে আর ছেলের বউ এর প্রাণ ভিক্ষা চাইলো “আমার মেয়ে-পুত্রবধুকে বাঁচান” আর্তনাতে,কিন্তু কারোই কিছুই করার ছিলো না শুধু দু’চোখ মেলে দেখা ছাড়া।

সকলের চোখের সামনে অট্টহাসিতে ফেটে পড়ে পাঞ্জাবী সেনারা যুবতী মেয়ে ২টি কে টেনে হিঁচড়ে আর্মি ট্রাকে তুলে নিয়ে গেলো।কিছু বলার ভাষা হারিয়ে মেয়ে দুটি শুধু সকলের দিকে চেয়ে রইলো এক করুণ দৃষ্টিতে,ইচ্ছা থাকলেও কেউ বাঁচাতে পারলো না তাঁদের। missed several doses of synthroid

লঞ্চ ছেঁড়ে দিলো “পাগলার” এম এম ওয়েল পাক আর্মি ঘাটিতে থেমে গেলো লঞ্চ,মুহূর্তেই তল্লাশি শুরু কারোই মূল্যবান কিছু আর রইলো না সব জোরে করে লুট করে নিলো হায়নার দল।জানালার কাছেই বসে ছিলো ইব্রাহিম ভূঁইয়া পাশের আর্মির লঞ্চের দিকেই চোখ যেতেই চোখে পড়লো চারজন বিবস্ত্র বাঙালি নারীর দিকে।এলোমেলো চুল,অশ্রুভরা মুখমণ্ডল আর অসহায় এক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে শুন্যপানে গায়ে উঠে দাঁড়ানোর শক্তি নেই।

৪৪ বছর পড়ে ইব্রাহিম ভূঁইয়া যখন সদরঘাট এর এলাকা দিয়ে হেঁটে যায় আজো তাকে তাড়া করে সেই স্মৃতি,আনমনে সেদিন রক্তমাখা দেয়াল আর লাশের স্তূপ এর পথে থাকলে আজ তার চোখে পড়ে “পাকিস্তানী থ্রী-পিস আর বোরকার বিশাল সমাহার” এর ব্যানার গুলো কিংবা পাকিস্তানী জার্সি পড়ে হেঁটে যাওয়া কোনএক অসভ্য আধা-ছাগল কে অথবা বড় বড় অক্ষরে লেখা “ইসলামী ব্যাংক সদরঘাট শাখা”।

You may also like...

  1. কিরন শেখর বলছেনঃ

    গল্পটা সব সময় এরকম হবে না। পরিবর্তিত হবে। ধৈর্য হারা হবেন না।

    ovulate twice on clomid
  2. দুরন্ত জয় বলছেনঃ

    :-( এই তো হচ্ছে!!!
    আরও বড় হলে ভাল হত!
    শুরুর আগেই শেষ হয়ে গেল!

    capital coast resort and spa hotel cipro
  3. আমাদের রাষ্ট্রপতি ভবনের সামনের ফোয়ারা’য় যখন স্পন্সর এর নামে লেখা থাকে “ইসলামী ব্যাংক” :(

  4. অপার্থিব বলছেনঃ

    ইসলামী ব্যাঙ্ক যে জামাত ঘনিষ্ঠ ব্যাংক এটা সবাই জানে। তারপরও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দাবীদার আওয়ামী সরকার ইসলামী ব্যাংকের টাকায় জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার অনুষ্ঠান আয়োজন করে । অর্থের লোভে হারিয়ে যায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা।

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

can your doctor prescribe accutane

Question   Razz  Sad   Evil  Exclaim  Smile  Redface  Biggrin  Surprised  Eek   Confused   Cool  LOL   Mad   Twisted  Rolleyes   Wink  Idea  Arrow  Neutral  Cry   Mr. Green

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment. wirkung viagra oder cialis

irbesartan hydrochlorothiazide 150 mg
tome cytotec y solo sangro cuando orino
thuoc viagra cho nam