THE UNIVERSE: LET’S TALK ABOUT ASTROPHYSICS : LAST PART

251

বার পঠিত

.. পূর্বের দুইটি পর্বে আমরা মহাবিশ্বের উতপত্তি – গঠন – ভবিষ্যত সম্পর্কে জেনেছি…..। আরো জেনেছি টাইম – ট্রাভেল বা সময় পরিভ্রমণ সম্পর্কে। এবারে আসা যাক আমাদের জানা ৪.৯% মহাবিশ্ব সম্পর্কে।এঈ মহাবিশ্বের আলোচনায় আমার মনে হয় সব চাইতে দরকারী বিষয় হল নক্ষত্র অর্থাৎ তারা। তাহলে প্রথমে সেই তারাদের নিয়েই আলোচনা করা যাক… nolvadex and clomid prices

আমাদের সূর্য একটি নক্ষত্র। পৃথিবীতে সবরকম জীবন ধারনের এবং সবরকম প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া ঠিকভাবে চলা নির্ভর করে এই সূর্যের উপর। অন্যান্য গ্রহগুলোও সূর্যকে কেন্দ্র করে নিজনিজ উপবৃত্তাকার কক্ষপথে ঘোরে।অর্থাৎ আমাদের সৌরজগত এর কেন্দ্র হল সূর্য।পুরো মহাবিশ্বের বিচারে সূর্য হল একটি মাঝারি আকারের নক্ষত্র।এরকম আরো অনেক অনেক নক্ষত্র মহাবিশ্বে রয়েছে। আমাদের Milkyway Galaxy তেই সূর্যের মত আরো ১০০ – ৪০০ বিলিয়ন তারা আছে। ( Milkyway Galaxy বা আকাশ গঙ্গায় মোট তারার সং্খ্যা ১ ট্রিলিয়ন)।

প্রথমে দেখা যাক নক্ষত্র কিভাবে সৃষ্টি হয়। Nebula এর ভেতরে আণবিক মেঘেরা তাদের নিজস্ব মহাকর্ষ বলের প্রভাবে সংকুচিত হতে থাকে। এক সময় তারা ক্ষুদ্র – ক্ষুদ্র Cloud Fragment এ পরিণত হয়। এই cloud-fragment গুলার চারপাশে molecular cloud এর একটা স্তর সৃষ্টি হয়। তখন cloud fragment গুলো একসাথে হয়ে protostar এ পরিণত হয়। protostar এর চারপাশে যে molecular cloud এর স্তর থাকে তা উত্তপ্ত হয়। এ উত্তপ্ত অংশে hydrogen ion থাকে। আর অভ্যন্তরের protostar টা তখন young star এ পরিনত হয়।

সম্পূর্ণ ব্যাপারটিকে young star with HII region বলা হয়। এই young star গুলো পরবর্তীতে একসাথে হয়ে Young cluster এবং সময়ের ধারাবাহিকতায় old cluster তৈরী করে। zovirax vs. valtrex vs. famvir

এ তো গেল নক্ষত্রের জন্মকথা। এবার আসা যাক নক্ষত্রের জীবনকাল এবং পরিণতি প্রসঙ্গে। আগেই বলা হয়েছে যে সূর্য’ একটি মাঝারি আকারের নক্ষত্র।মহাবিশ্বে সূর্যের ৪৫০ গুণ ছোট থেকে শুরু করে ১০০০ গুণ বড় নক্ষত্র আছে।। এদের ভর ২০ – ৫০ সৌরভর এবং পৃষ্ঠের তাপমাত্রা তিন হাজার থেকে ৫০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হতে পারে। সবচেয়ে উত্তপ্ত তারাগুলো নীল,মাঝারিগুলো হলুদ আর শীতল তারাগুলো লাল হয়। তারার অভ্যন্তরে নিউক্লিয়ার ফিউশন এর কারনে শক্তির সৃষ্টি হয়।

সূর্যের মত ভরের একটি তারার ক্ষেত্রে দেখা যায় – উচ্চ ঘনত্ব সম্পন্ন nebula তে একটা নির্দিষ্ট জায়গায় গ্যাস ও ধূলিকণা তাদের নিজস্ব মহাকর্ষ বলের প্রভাবে সংকুচিত হতে থাকে।।। সংকুচিত হতে থাকা গ্যাস – ধূলিকনার বাইরের অংশ উত্তপ্ত হয়। একসময় protostar গঠিত হয়। প্রয়োজনীয় পরিমাণে পদার্থ থাকলে নক্ষত্রের কেন্দ্রের তাপমাত্রা ১৫ – মিলিয়ন ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হতে পারে। এ অবস্থায় নক্ষত্রের অভ্যন্তরে নিউক্লিয়ার বিক্রিয়া শুরু হয় এবং হাইড্রোজেন ক্রমশ হিলিয়ামে পরিণত হতে থাকে। তারাটি আর সংকুচিত হয়না, শক্তি নি: সরণ এবং আলো বিকিরন করতে থাকে। এ অবস্থায় তারাটিকে main sequence star বলা হয়।

১০ বিলিয়ন বছর ধরে বিক্রিয়া চলার পর তারার অভ্যন্তরের সম্পূর্ণ হাইড্রোজেন হিলিয়ামে পরিণত হয়। তখন তারাটির Helium core সংকুচিত হতে থাকে এবং coreএর চারপাশে একটা স্তরে বিক্রিয়া শুরু হয়। এক সময় হিলিয়াম পূর্ণ core এতটাই উত্তপ্ত হয়ে যায় যে হিলিয়াম কার্বনে পরিণত হয়।। বাইরের স্তরটি তখন প্রসারিত হয়, ঠান্ডা হয় এবং উজ্জলতা কমে যায়। এ অবস্থাকে red giant বা লাল দৈত্য বলা হয়। এরপর হিলিয়াম core বিস্ফোরিত হয়, আশেপাশের গ্যাসীয় আবরণ সরে যায় – এ অবস্থাকে planetary nebula বলে। এ ধাপের পর তারার যতটুক helium core অবশিষ্ট থাকে তা ঠান্ডা হয়ে উজ্জলতা একেবারে কমে গিয়ে white dwarf এ পরিণত হয়। white dwarf একসময় সম্পূর্ন উজ্জলতা হারিয়ে black dwarf এ পরিণত হয়।

এ তো গেল সূর্য’ আর তার সমভরবিশিষ্ট তারাদের কথা। সূর্য থেকে বেশি ভরবিশিষ্ট তারাদের ক্ষেত্রে ঘটনা কিন্তু ভিন্ন ঘটে। ১০ বিলিয়ন বছরের পরিবর্তে এখানে কয়েক মিলিয়ন বছরের মধ্যেই সম্পূর্ন হাইড্রোজেন হিলিয়ামে পরিণত হয়। helium core টি একসময় প্রসারণরত এবং শীতলীকরণরত গ্যাসের স্তর দ্বারা আবৃত হয়। এ অবস্থাকে Red Supergiant বলে। পরবর্তী কয়েক মিলিয়ন বছরে হিলিয়াম কোরটা আয়রনে পরিণত হয়। চারপাশের স্তরটিতে নিউক্লিয়ার বিক্রিয়া ঘটতে থাকে। একসময় iron core টি এক সেকেন্ড এর ও কম সময়ে collapse করে। একেই সুপারনোভা বিস্ফোরন বলে। এই সুপারনোভা কিছু সময়ের জন্য সম্পূর্ন গ্যালাক্সির যে কোন কিছুর থেকে উজ্জল দেখায়।

অনেকসময় iron core টি সুপারনোভা বিস্ফোরনের পরও অক্ষত থাকে। এই iron core টির ভর যদি 1.5 – 3 solar mass হয় তাহলে এটি neutron star এ পরিণত হয়। আর যদি 3 solar mass এর বেশি হয় তাহলে এটি contract করে একসময় black hole এ পরিণত হয়। সূর্য বা তার সম ভরসম্পন্ন তারাগুলো যখন white dwarf এ পরিণত হয় তখন তাদের ভর যদি চন্দ্রশেখর সীমা (1.39M) ছাড়িয়ে যায় তবে তারা gravitational collapse এর শিকার হয় এবং neutron star / black hole এ পরিণত হয়।

এবার আমরা আমাদের অত্যন্ত কাছের কিছু প্রতিবেশী তারা সম্পর্কে জানব। সূর্যের সবচেয়ে কাছের তারা হল Proxima Centauri… আর সব চাইতে কাছের Star – system হল Alpha Centauri . সূর্য থেকে ৪.২৪ অালোকবর্ষ দূরত্বে অবস্থিত Proxima Centauri এর ভর সূর্যের ভরের আট ভাগের এক ভাহ। তবে এর ঘনত্ব সূর্যের ৪০ গুন। Alpha Centauri এর a এবং b নামে দুটি তারা রয়েছে। proxima centauri কে অনেক সময় alpha – centauri – c বলে মনে করা হলেও বিভিন্ন পরীক্ষায় প্রমাণিত হয়েছে যে proxima centauri আসলে ভিন্ন একটি তারা যা alpha centauri এর মহাকর্ষীয় আকর্ষণ এর কারনে এর নিকটে অবস্থান করে। এই alpha centauri হল রাতের আকাশের তৃতীয় উজ্জলতম নক্ষত্র। সবচেয়ে উজ্জল হল Sirius ( Orion constellation এর অন্তর্ভুক্ত), দ্বিতীয় canopas আর চতুর্থ Arcturus. এছাড়া সূর্যের নিকটতম প্রতিবেশীদের মধ্যে রয়েছে ছয় আলোকবর্ষ দূরের বার্নার্ড নক্ষত্র আর আট আলোকবর্ষ দূরের WISE নক্ষত্র।

সূর্যের মত কিংবা সূর্যের চেয়ে বড় – ছোট এরকম এক ট্রিলিয়ন তারা দিয়ে আমাদের আকাশগঙ্গা গঠিত। Milkyway তার কেন্দ্রে একটি supermassive black hole ধারন করে আছে। ( সব গ্যালাক্সির কেন্দ্রেই এরূপ একটি সুপারম্যাসিভ ব্ল্যাক হোল থাকে)। সূর্য এই galactic center থেকে ২৭০০০ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত। গ্যালাক্সির অভ্যন্তরে তিন ধরনের নেবুলা দেখা যায় যারঅভ্যন্তরে তারা গঠিত হয়। এগুলো হল – Fusion Nebula ( কেন্দ্রের দিকে অবস্থান করে এবং অপেক্ষাকৃত পুরনো তারা দিয়ে গঠিত), Emission Nebula ( বাইরের দিকে অবস্থান করে এবং অপেক্ষাকৃত নবীন তারা দিয়ে গঠিত), pipe nebula ( গ্যালাক্সির একেবারে বাইরের দিকে অবস্থান করে এবং বৃদ্ধ তারাদের নিয়ে গঠিত) আকাশগঙ্গার ব্যাস ১০০০০০- ১২০০০০ আলোকবর্ষ। এর তারা, গ্রহ, উপগ্রহ, নেবুলা, সুপারনোভা, ব্ল্যাক হোল অর্থাৎ সম্পূর্ণ population কে তিন ভাগে ভাগ করা যায় – Disk Population (ঘূর্নায়মান), Bulge population ( কেন্দ্রে অবস্থান করে) , Halo population ( কেন্দ্র থেকে অনেক দূরে বাহিরের দিকে অবস্থান করে) viagra in india medical stores

গ্যালাক্সি তিন রকম হয়। spiral, elliptical, lenticular। milkyway একটি spiral galaxy। রাতের আকাশে milkyway এর সবচেয়ে কাছে দুটি dwarf galaxy দেখা যায় – এগুলোকে LMC (Large megallenic cloud) এবং SMC (Small megallenic cloud) বলে। আর milkyway এর সবচেয়ে কাছের গ্যালাক্সি হল Andromeda। ২.৫ বিলিয়ন বছর পর milkyway আর andromeda galaxy একে অপরের সাথে merge হয়ে যাওয়ার। সম্ভাবনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে milkyway এবং andromeda উভয়ের বেগ ক্রমশ বৃদ্ধি পেতে থাকবে – তারা যত কাছে আসতে থাকবে ততই। প্রথমে গ্যালাক্সি দুটীর বাইরের দিকে নক্ষত্র গুলোর মধ্যে সংঘর্ষ হবে কিংবা তারা মিলেমিশে এক হয়ে যাবে। এসময় গ্যালাক্সি দুটি পরস্পর থেকে প্রাথমিক ভাবে কিছুটা দূরে সরে যাবে কিন্তু আরো দূরে সরে যাওয়ার বদলে একসময় গ্যালাক্সি দুটির কেন্দ্রের ব্ল্যাক হোল দুটির প্রচন্ড আকর্ষণ এর কারনে কেন্দ্রের black hole দুটিও এক হয়ে যাবে। ব্ল্যাক হোল আর তারাদের মধ্যে gravitational interplay এত জটিল হয়ে যাবে যে কিছু তারা ছিটকে চলে যাবে গ্যালাক্সির বাইরে। এরা মহাশূন্যে মুক্তভাবে বিচরণ করতে থাকবে এবং যে গ্যালাক্সির পাশ দিয়ে যাবে তার মহাকর্ষ বলের দ্বারাই এদের চলার পথ নির্নীত হবে। বিজ্ঞানীরা মনে করেন, এরকম তারাগুলোর কোনটার কোন গ্রহে যদি প্রাণী থাকে – তবে তারা মহাবিশ্বের সবচেয়ে বড় rolar coaster ঊপভোগ করবে….

milkyway, andromeda এর মত অসং্খ্য গ্যালাক্সি নিয়ে গঠিত হয় একটি galaxy cluster। অনেকগুলো galaxy cluster নিয়ে একটি galaxy supercluster গঠিত হয়। আমাদের Milkyway হল Laniakea Supercluster এর (1000000 clusters) virgo এলাকার অন্তর্ভুক্ত। এই virgo এলাকাটিই ১০০ টির মত galaxy cluster ধারণ করে।

মহাবিশ্বের বিশালতার তুলনায় আমরা কত ক্ষুদ্র! তবু জানার অসীম কৌতূহলে মানুষ একদিন পদানত করবেই – পুরো মহাবিশ্বকে। নজরুল এর একটা লাইন দিয়ে শেষ করতে চাই -

“পাতাল ফেঁড়ে চলব আমি, উঠব আমি আকাশ ফুঁড়ে

বিশ্বজগৎ দেখব আমি – আপন হাতের মুঠোয় পুরে.. metformin synthesis wikipedia

প্রথম পর্বের লিঙ্ক – http://sovyota.com/?p=5737 side effects of drinking alcohol on accutane

দ্বিতীয় পর্বের লিঙ্ক – http://sovyota.com/?p=5760 cialis new c 100

can you tan after accutane

You may also like...

  1. তারিক লিংকন বলছেনঃ

    দুর্দান্ত একটা সিরিজ! সভ্যতা ব্লগের একটা সম্পদ হয়ে থাকবে। এখন থেকে কেউ অ্যাস্ট্রোফিজিক্স বা মহাকাশ বিজ্ঞান নিয়ে প্রাথমিক ধারণা চাইলে আপনার পোস্টটির লিংক ধরিয়ে দিব।

    কষ্ট করে এই শেষ পর্বে প্রথম দুই পর্বের লিংক দিয়ে দিবেন

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong> metformin gliclazide sitagliptin

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment. will i gain or lose weight on zoloft

ovulate twice on clomid
clomid over the counter
glyburide metformin 2.5 500mg tabs
levitra 20mg nebenwirkungen
accutane prices
tome cytotec y solo sangro cuando orino synthroid drug interactions calcium