গন্তব্য বার্ন ইউনিট

297

বার পঠিত

চাঁপাইনবাবগঞ্জের জামালুর ইসলাম পেশা অটো চালক,মুখে পোড়া দাগ।খোজ নিয়ে জানা গেল ট্রাক ড্রাইভার ছিলেন,মালিকের অনুরোধে কাঁচামাল নিয়ে বের হয়েছিলেন গন্তব্য ছিল কারওয়ান বাজার,কিন্তু গণতন্ত্রের আম্মু বাহিনীর ছোড়া পেট্রোল বোমা তার গন্তব্য পরিবর্তন করে নিয়ে যায় বার্ন ইউনিটে

আড্ডা,ফেসবুকিং,ঘোরাঘুরি আর পড়াশোনা ইত্যাদি করে ভালোই সময় কাটছিল দুই বান্ধবি সাথী আর যুথি,সামনে পরিক্ষা ফর্ম ফিলাপ করতে কলেজে গিয়েছিল।ফেরার পথে বাসে বসে অন্য বান্ধবিদের সাথে আড্ডা মেরে ভালোই সময় কাটাচ্ছিল।পরিক্ষা শেষে কে কে কি প্ল্যান করবে সেই চিন্তাও করতে থাওক্ল।চোখের সামনে ভেসে উঠতে থাকল ঘুরতে যাওয়া আর হই হুল্লার করার দৃশ্য,হঠাত আর্ত চিতকারে নেমে আসে বাস্তব জগতে।সবাই হুরোহুরি করে বাস থেকে নামছে।বান্ধবিদের কেউ কেউ বাচার জন্য জানলা দিয়ে লাফ দিচ্ছে।না লাফ দেয়ার সুযোগ নেই সাথি,যুথির ভির ঠেলে বাস থেকে বের হয়ে গেল।কিন্তু ততক্ষনে পুরে গেছে দুই বান্ধবির পা।পরিক্ষা কিংবা ঘুরতে যাওয়া আপাতত বন্ধ,গন্তব্য বার্ন ইউনিট।

অভাবের সংসার কিন্তু বাবা মা আদর করে নাম রেখেছিল সোহাগ।লেখাপড়া করা হয় নাই,ইচ্ছাও নাই।তাই ১৭ বছর বয়সে ট্রাক হেল্পার পেশাটি নিজের নামের পাশে যুক্ত করে,পেটের দায়ে রাস্তায় নেমেছে।আপাতত ট্রাক ড্রাইভার এবং সেখান থেকে ট্রাকের মালিক হওয়া টাই তার স্বপ্ন।ওস্তাদের পাশে বসে এই চিন্তাই করছিল,এই ট্রিপ দিলে হাতে বেশ কিছু টাকা থাকবে,এক্টা ভালো মোবাইল সেটও কেনার ফন্দি আটছে।বাড়ির পাশের রিয়ার জন্যও ইদানীং যেন বুকটা কেমন কেমন করে।নাহ ফরিদপুর গিয়েই মা আর রিয়াকে দেখে আসতে হবে।রিয়ার জন্য কি কিছু নিয়ে যাব।হঠাত নিজেকে আগুনের উত্তাপের ভিতর আবিস্কার করে সোহাগ,ডান পাশের স্টিয়ারিং ছেড়ে ওস্তাদ বের হয়ে গেছে।প্রচন্ড গরম লাগছে,শরিরটা পুরে যাচ্ছে চিৎকার করে মা মা মা করছে,সারা শরিরে আগুন ধরে গেছে তার।কিছুতেই বের হতে পারছে না সোহাগ।সেশ চেস্টা করে বের হল সোহাগ।কিন্তু হঠাত তার কেমন যেন ঘুম পাচ্ছে,ক্লান্তিতে রাস্তায় পরে গেল সোহাগ।সোহাগ ওখানেই পরে রইল,মা আর রিয়ার কাছে তার যাওয়া হয় নাই।টাকা জমিয়ে ভালো মোবাইল কিংবা রিয়াকেও তার কিছু দেয়া হয় নাই।গণতন্ত্রের আম্মু বাহিনীর ছোড়া পেট্রোল বোমা,উজিরপুরেই কাবাব বানিয়ে দেয় তাকে।তার গন্তব্য সবার থেকে আলাদা।তবে ওস্তাদ রিপন শেখের গন্তব্য হয় বার্ন ইউনিটে।

সারাদিন ডিউটি করে সহকর্মিদের সাথে বাসে করেই ফিরছিল কনস্টেবল শামিম।ক্লান্ত শরীর ঘুমে জড়িয়ে আসছে চোখ,একটু হেলান দিয়ে চোখ বুঝছে,মনে পরছে মায়ের কথা।কদিন ধরে তার প্রেয়সি বেজায় খেপেছে,অভিযোগ ঠিকমত ফোন করে না শামিম।পাগলিটাকে ক্যামনে বুঝাবে শামিম,বর্তমান অবস্থায় তার উপর প্রচুর চাপ,ছুটি পাওয়া দূরে থাক, ১২ ঘন্টা ডিউটি করতে হয় প্রায়ই।নাহ ওকে একটু ফোন দেই,এই ভেবে পকেট থেকে ফোনটা বের করে ফোন দেয়,হঠাৎ পাশ থেকে আগুনের একটি গোলা ঢুকল গাড়ির ভেতর,মুহুর্তেই সেটা বড় হয়ে ছড়িয়ে পরল গাড়ির ভেতর।বের হওয়ার সময় ফোনটা পরে গেল,আর কথা বলা হল না শামিমের,ততক্ষনে গায়ে আগুন লেগেছে,আগুন লেগেছে তার সহকর্মিদের গায়েও।লাফ দিয়ে রাস্তায় গড়াগরি দিল।সেদিন আর ব্যারাকে ফেরা হয় নাই শামিমের,গন্তব্য ছিল বার্ন ইউনিট।

রাত ৯ টা বাসে করে নিজের আড়াই বছরের সন্তান আর স্ত্রিকে নিয়ে যাচ্ছিলেন  চিকিৎসক দম্পত্তি।নারায়নগঞ্জের চাশারায় আসা মাত্রই গাড়িতে পেট্রোল বোমা মারল অবরোধকারীরা।গাড়ির সাথে নিজের শরিরেও আগুন ধরল।স্ত্রী ও কোলে থাকা বাচ্চাটার গায়েও আগুন ধরেছে।যে করেই হোক বাচাতে হবে বাচ্চাটিকে,জানালা দিয়ে লাফ দেয়ার সাথে সাথেই কোলের বাচ্চাটি পরে যায় আগুনে,স্ত্রীও বের হয়ে আসে।ইতিমধ্যেই রাস্তার পাশে দারিয়া থাকা লোকজন বাচ্চাটাকে উদ্ধার করেছে,ধরে ফেলেছে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপকারিকেও।তবে প্রচন্ড যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছে তাদের বাচ্চাটি,অন্য যাত্রিরাও দগ্ধ।গতকাল আর তাদের আর বাচ্চাটির নানার বাসায় যাওয়া হয় নাই।গন্তব্য হয় বার্ন ইউনিটে

প্রিয় পাঠক উপরে কোন চরিত্রই কাল্পনিক নয়।গনতন্ত্র রক্ষার নামে গণতন্ত্র আম্মু বাহিনীর ডাকা অবরোধে এর শিকার এদের প্রত্যেকেই। গণতন্ত্রের আম্মু বাহিনীর সদস্যরা লেদাতেই পারেন এটা সরকারের দালালরা করেছে।
তাদের জন্য এই লিংক্টা দিচ্ছি

http://www.samakal.net/2015/01/19/112956

কৃতজ্ঞতাঃ এস এ টিভি “রাজনিতির আগুন”অনুষ্ঠানটি।

দৈনিক কালের কন্ঠ। puedo quedar embarazada despues de un aborto con cytotec

দৈনিক সমকাল।

লেখাটি উৎসর্গ করলাম বার্ন ইউনিটে কাতরানো আমার ভাই বোনদের।

You may also like...

  1. তারিক লিংকন বলছেনঃ

    :roll: :roll: :roll: :roll:
    হাছাই কইছেন!! ভাল লাগলো…

    আগুনে পুড়ে নয় দুবেলা খেয়ে গা গরম রাখুক রিকশা চালক, বাস হেল্পারসহ খেটে খাওয়া মানুষরা…

  2. দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হচ্ছে ভাই -_-

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong> viagra en uk

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.