স্কিৎজোফ্রেনিয়া:একটি মানসিক ব্যাধি, প্রয়োজন সুস্থ মানসিকতা ও সচেতনতা।

560

বার পঠিত

স্কিৎজোফ্রেনিয়া কি?

স্কিৎজোফ্রেনিয়া হল এমন একটি মানসিক ব্যাধি যার ফলে রোগী অবাস্তব জিনিস দেখতে থাকে যার কোন ভিত্তি নেই। এই রোগটি দীর্ঘস্থায়ী, গুরুতর এবং ক্ষেত্রবিশেষে রোগীকে শারীরিকভাবে দুর্বল করে ফেলে।
স্কিৎজোফ্রেনিয়া রোগটিকে মানসিক রোগের ইতিহাসে সবচাইতে বিপজ্জনক রোগ হিসেবে ধরা হ​য়। ১৮৮৭ সালে ড. এমিলি সর্বপ্রথম এই রোগ অবস্থান নিশ্চিত করেন। তার গবেষনার ফলে ধরা যায় যে, মানবজাতির বুদ্ধিমত্তার বিকাশের সাথে আশ্চর্যজনকভাবে এই রোগ স্থান করে নিয়েছে।
বেশিদিন আগে আবিষ্কৃত না হলেও এই রোগটি সবচেয়ে পুরোনো রোগগুলোর একটি।বিভিন্ন পুরাতন নথিপত্র থেকে প্রাচীন মিশরে পর্যন্ত এই রোগের সন্ধান পাওয়া যায়। অবশ্য সেই সম​য়ে এই রোগটিকে শ​য়তান বা ভুতে পাওয়া হিসেবে আখ্যায়িত করা হত​। এই রোগের কারনেই ভুত প্রেত বিষ​য়ক কুসংস্কারগুলো উৎপন্ন হ​য়েছে বলে অনেক ইতিহাসবিদ মনে করেন।
মানসিক চাপ, পরিবেশ, টেনশন, রাগ, দুর্ব্যবহার ইত্যাদি কারনে স্কিৎজোফ্রেনিয়া হতে পারে। স্কিৎজোফ্রেনিয়ায় আক্রান্তের পরিমান: গবেষনায় লক্ষ্য করা যায় যে, পুরুষেরা নারীদের থেকে দেড় গুন বেশি স্কিৎজোফ্রেনিয়ায় আক্রান্ত হ​য়।

স্কিৎজোফ্রেনিয়ার রোগীদের চিন্তাধারা বা দেখার জগ​ৎ বাস্তব থেকে ভিন্ন হ​য়।এমনকি গবেষনায় দেখা গেছে যে, ছ​য় বছর ব​য়সের কম শিশুদের ও স্কিৎজোফ্রেনিয়ায় আক্রান্ত রোগী হিসেবে পাওয়া গেছে। দেখা যায় যে, তারা অদৃশ্য শব্দ শুনতে পাচ্ছে বা আস্ত মানুষ দেখতে পাচ্ছে যার আসলে অস্তিত্ব নেই। অনেকে দেখতে পায় যে তার হাতে কোন পোকা বা মাক​ড়সা বসে আছে, তাকে কাম​ড় দিচ্ছে, কিন্তু আসলে সেগুলোর ও অস্তিত্ব নেই। metformin gliclazide sitagliptin

স্কিৎফ্রেনিয়ায় আক্রান্ত কিনা তা নির্ন​য় করার লক্ষন হল​-
১.এমন জিনিসে বিশ্বাস যা বাস্তব না।
২.হ্যালুসিনেশান, অব্স্তব গন্ধ পাওয়া, উদ্ভট শব্দ শোনা, এমন সব খাবারের স্বাদ পাওয়া যা রোগী খাচ্ছে না।
৩.অসংলগ্ন কথাবার্তা।
৪.অসংলগ্ন আচরন।
৫.হঠাৎ রেগে শারীরিক বল প্র​য়োগ।

রোগীর অবস্থার বাহ্যিক উপসর্গ:
১.কথার সাথে মুখভঙ্গির মিল না থাকা। যেমন-
২.মজার কথা শুনে দুঃখ পাওয়া বা কাঁদা।
৩.কথার তাল ঠিক না থাকা।
৪.কোন কাজ করতে প্রেরনা না পাওয়া।
স্কিৎজোফ্রেনিয়া অনেক প্রকারের হতে পারে।
সেগুলো হল​-
১. প্যারান​য়েড স্কিৎজোফ্রেনিয়া- অকারন বিভ্রম বা হ্যাল্যুসিনেশন এর ফলে ভ​য় পাওয়া।
২.ডিস​অর্গানাইজড স্কিৎজোফ্রেনিয়া-এর ফলে অসংলগ্ন কথাবার্তা, খাপছাড়া কথাবার্তা ইত্যাদি দেখা যায়।
৩.ক্যাটাটনিক স্কিৎজোফ্রেনিয়া-এর ফলে রোগীর পেশি চালনার ভঙ্গিটিও অস্বাভাবিক হ​য়, যেমন হাঠতে গিয়ে হঠাৎ থেমে যাওয়া, অকারনে মারামারি, অন্যরা যা বলছে তা বারবার বলতে থাকা ইত্যাদি।
৪.আনডিফারেনশিয়েটেড স্কিৎজোফ্রেনিয়া- এর ফলে রোগী অস্বাভাবিকভাবে নির্বিকার হ​য়ে যায় অর্থাৎ যেসব কথায় অন্যরা কোন আচরন প্রত্যাশা করে সেক্ষেত্রে হঠাৎ চুপ করে যাওয়া।
৫. অন্যান্য স্কিৎজোফ্রেনিয়া- যেমন বিভ্রম, প্যারান​য়া, সন্দেহপ্রবনতা, প্রচন্ড ভায়োলেন্ট হ​য়ে যাওয়া ইত্যাদি।

স্কিৎজোফ্রেনিয়ায় আক্রান্তদের ঔষধগুলো ক​ড়া ধাঁচের হ​য়ে থাকে। এর ফলে প্রায় ঘুম পাওয়া, মাথা ঘোরানো-এগুলো স্বাভাবিক। এন্টিসাইকোটিক এইসব ঔষধের ফলে রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি, বমি আরো ইত্যাদি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যেতে পারে। কিন্তু তা সত্ত্বেও স্কিৎজোফ্রেনিয়ার রোগীর জন্য এইসব ঔষধ ব্যবহার বজায় রাখা প্র​য়োজনীয়। স্কিৎজোফ্রেনিয়া রোগীদের মৃত্যুহার স্বাভাবিকের চাইতে দ্বিগুন। অনেকে হতাশার ফলে মদ, গাঁজা বা ড্রাগ এডিক্টেড হ​য়ে যায়।
পারিবারিক সহায়তার ফলে স্কিৎজোফ্রেনিয়াকরা অনেক সম​য় স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে সক্ষম হ​য়ে উঠতে পারে। কিন্তু তার জন্য প্র​য়োজন সহায়তা আর ভাল ব্যবহার। পরিবার আর চারপাশের মানুষের সহায়তাই তাদেরকে সামাজিক করে তুলতে পারে। অসংলগ্ন আচরনকে অনেকে মনে করেন যে, রোগী ভান করছে। এরুপ মনোভাব রোগীর জন্য আরো ক্ষতিকর। তাই যেকোন সমস্যাকে হালকাভাবে না নেয়া সবার দায়িত্বে প​ড়ে।
( এই পোস্টে পুরোনো বইপত্র, বিভিন্ন ওয়েবসাইটের তথ্যের বিশ্লেষন, অনুবাদ দেয়া হ​য়েছে। তাই নির্দিষ্ট কোন লিঙ্ক দেয়া হল না।)

You may also like...

  1. দুরন্ত জয় বলছেনঃ

    জাফর ইকবাল স্যারের বৃষ্টির ঠিকানা বইয়ের মাধ্যমে শব্দটির সাথে পরিচিত হই। kamagra pastillas

    পোস্টটা ভাল লেগেছে কারন এ নিয়ে কিছু ইনফো দরকার ছিল… metformin synthesis wikipedia

  2. শঙ্খনীল কারাগার বলছেনঃ can you tan after accutane

    ১.এমন জিনিসে বিশ্বাস যা বাস্তব না।
    ২.হ্যালুসিনেশান, (অব্স্তব গন্ধ পাওয়া-এটা বাদ) উদ্ভট শব্দ শোনা, (এমন সব খাবারের স্বাদ পাওয়া যা রোগী খাচ্ছে না-এটাও বাদ)।
    ৩.অসংলগ্ন কথাবার্তা।
    ৪.অসংলগ্ন আচরন।
    ৫.হঠাৎ রেগে শারীরিক বল প্র​য়োগ।

    ১.কথার সাথে মুখভঙ্গির মিল না থাকা। যেমন-
    ২.মজার কথা শুনে দুঃখ পাওয়া বা কাঁদা।( এখানে কিছু কথা আছে মজার কথা শুনে দুঃখ বা কান্না পায়না তবে অনেক সময়ই মজা বুঝিনা যদিও নিজে তা করি আবার একবার একজনের মৃত্যু সংবাদ খুব হাসতে হাসতে দিয়েছিলাম যাকে দিয়েছি তাঁর কান্না দেখে আরো হেসেছি।তবে এরকম দুই একবার হয়েছে তাও বছর তিনেক হবে।)

    ৩.কথার তাল ঠিক না থাকা।
    ৪.কোন কাজ করতে প্রেরনা না পাওয়া।

    বাকি সব মিলে যায়, এখন আমি কি করি হায়। :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry: :cry:

    half a viagra didnt work
  3. ইলেকট্রন রিটার্নস বলছেনঃ

    ভালো পোস্ট ম্যাম। কিপিটাপ। তবে, আমি ভয়ে আছি। কয়েকটা পয়েন্ট আমার সাথে মিলে যাচ্ছে।

  4. তথ্যপূর্ণ পোস্ট… আমার সাথে এই পোস্টের কোন মিল নাই… :grin:

  5. তারিক লিংকন বলছেনঃ

    খুবই চমৎকার এবং সময়উপযুগি পোস্ট! জাতীয় পর্যায়ে প্রচার দরকার…
    আপনাকে ধন্যবাদ এই ব্যতিক্রমধর্মী পোস্টটি দেয়ার জন্য

  6. রেজা সাহেব বলছেনঃ

    খোদাকে ধন্যবাদ, আমার এধরনের কোন সমস্যা নাই… :D zovirax vs. valtrex vs. famvir

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

Question   Razz  Sad   Evil  Exclaim  Smile  Redface  Biggrin  Surprised  Eek   Confused   Cool  LOL   Mad   Twisted  Rolleyes   Wink  Idea  Arrow  Neutral  Cry   Mr. Green

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.

acne doxycycline dosage
renal scan mag3 with lasix
levitra 20mg nebenwirkungen
clomid over the counter