দোটানা

554 achat viagra cialis france

বার পঠিত

‘একসাথে দুইটি মেয়ের প্রেমে পড়েছিস কোনদিনও ?’ চশমার ফাঁক দিয়ে তাহেরকে প্রশ্ন করে জারাফ ।

‘সিরিয়াস কেইস মনে হচ্ছে ?’ চিন্তিত মুখে বলে তাহের ।

‘তাহলে খুলেই বলি – শোন ।’ বলতে শুরু করে জারাফ ।

* acne doxycycline dosage

আজ ক্লাসরুমে ঢুকতেই জারাফের চোখ পড়ে বিন্দুর সাথে জোর করে কথা বলার চেষ্টা করছে নাজমুল ।

 

বিন্দু মেয়েটা অত্যন্ত নিরীহ । কারও সাতেও নেই – পাঁচেও নেই ।

তবুও ওর পিছনে বেশ কয়েকটা ছেলেই লেগে থাকে যখন পারে ।

ওর দোষ – ও সুন্দরী । private dermatologist london accutane

 

জারাফের খুব ভালো বান্ধবী বিন্দু ।

কাজেই ওর আর ব্যাপারটা সহ্য হয় না ।

 

কাছে গিয়ে শুনতে পায় নাজমুল বলছে, ‘সন্ধ্যা সাতটা থেকে রাত দশটা । মাত্র তিনটা ঘন্টাই তো, বিন্দু । ’

এই পর্যায়ে নাক গলিয়ে দেয় জারাফ, ‘লীভ হার অ্যালোন ।’

ওর দিকে চোখ গরম করে তাকায় নাজমুল ।

টং করে মেজাজোমিটারের কাঁটা অনেকটাই ওপরে উঠে যায় জারাফের । নাজমুলটার মাথা ধরে দড়াম করে দেওয়ালে ঠুকে দেয় ও । doctorate of pharmacy online

ক্লাসের সদা-নিরীহ ছেলে জারাফের এমন আক্রমণাত্মক ভঙ্গী আগে কেউ দেখে নি । নাক বেয়ে গড়িয়ে নামা রক্তের ধারা নিয়েই অবাক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে নাজমুলও ।

 

‘বিন্দুকে জ্বালাচ্ছ না আর তুমি ।’ ওর দিকে তাকিয়ে যেন রায় ঘোষণা করে জারাফ ।

 

ঘটনা এখানে শেষ হওয়ার কথা না – কিন্তু কিভাবে জানি এখানেই শেষ হয়ে গেল !

 

ক্লাস শেষে ও আর বিন্দু যখন পাশাপাশি হেঁটে বের হয়, বিস্ময়ভরা গলায় জানতে চায় বিন্দু, ‘নাজমুলের সাথে বেশী হয়ে গেল না ?’

‘বেশির কি হয়েছে ? তোর দিকে আরেকবার তাকালে চোখ তুলে নেব না ?’ half a viagra didnt work

‘জারাফ !’ একটু ধমকায় ওকে মেয়েটা ।

‘চোখ তোলার কথাও সহ্য করতে পারিস না । মাদার তেরেসা হতে পারতি রে ।’ একটু হাসে জারাফ ।

‘না ! মাদার তেরেসা বিন্দু হতে পারত ।’ মুচকি হাসে বিন্দু ।

 

ওর দিকে মুগ্ধ দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকে জারাফ । এই মেয়েটা না থাকলে কি আর ওর এই ভার্সিটিটা ভালো লাগত ?

  can you tan after accutane

*

লেকের ধারে বসে আছে জারাফ আর ফারহা ।

জারাফের মুড অফ ।

  accutane prices

‘মন খারাপ কেন তোমার ?’ এই নিয়ে পঞ্চমবারের মত জানতে চায় ফারহা । missed several doses of synthroid

‘উম ।’ বলে জারাফ ।

‘অ্যাই ছেলে ? হাসতে শেখ নি ?’ কটমট করে ওর দিকে তাকায় এবার ফারহা ।

‘উঁহু ।’ আনমনে মাথা নাড়ে ও । side effects of drinking alcohol on accutane

বিপদজনক ভঙ্গীতে কাছে চলে আসে ফারহা ।

‘কি কর ?’ ভয় পেয়ে জানতে চায় জারাফ ।

‘তোমার ঠোঁট খাবো ।’ থামে না মেয়েটা ।

‘সর্বনাশ ! এভাবে ? পাবলিকলি ?’ উঠে যাওয়ার উপক্রম করে বেচারা ।

‘তাহলে বল না কেন কি হয়েছে ? মন খারাপ কেন ?’

‘আরে আরে সেমিস্টার ফাইনালের রেজাল্ট দিয়েছে ।’ হাহাকার করে ওঠে জারাফ ।

‘সিজি কত ?’

‘টু পয়েন্ট সেভেন ।’ প্যাঁচার মত মুখ করে বলে ও ।

‘তো কি হয়েছে ?’  ঠোঁট উলটে জানতে চায় ফারহা ।

‘এই সিজি দিয়ে তো ঝাড়ুদারও হতে পারব না !’ নিস্ফল আক্রোশে মাটিতে ঘুষি বসায় জারাফ ।

‘তাইলে তো ঠিকই আছে । তুমি ঝাড়ুদার হও সেটা চেয়েছে কে ?’ খুশি খুশি ভাব নিয়ে বলে মেয়েটা  ।

 

চুপচাপ সামনের দিকে তাকিয়ে থাকে জারাফ ।

‘শোন – অ্যাই আমার দিকে তাকাও না ?’ ওর হাত ধরে অধৈর্য্যের মত টানে ফারহা ।

ফারহার বড় বড় চোখ দুটোতে ডুব দেয় জারাফ ।

‘এভাবে তাকাও কেন ? লজ্জা লাগে না ?’ ওর কাঁধে মুখ ঘষে মেয়েটা ।

 

‘আচ্ছা, আমি মাছ দেখি । তুমি বলো । ’ মুচকি হেসে লেকের দিকে তাকায় জারাফ ।

‘এই তো কি সুন্দর হাসতে জানে বেবিটাহ !’ ওর গালে হাত ছোঁয়ায় ফারহা, ‘এখন যদি তুমি এই সিজির জন্য এই লেকে ডুবে মরেও যাও এটা পাল্টাতে পারবা ?’

‘উঁহু ।’ মাথা নাড়ায় ছেলেটা হতাশভাবে ।

‘এইটা আপনার কয় নাম্বার সেমিস্টার ফাইনালের রেজাল্ট ?’ আবার জানতে চায় প্রশ্নকর্ত্রী ।

‘প্রথম ।’

‘সামনে কয়টা সেমিস্টার ফাইনাল আছে ?’ জেরা চলছে ।

‘সাতটা ।’

‘ওগুলোতে ভালো করলে উঠে আসা যাবে অনেকটা । আর যদি এখন এইটা নিয়েই পড়ে থাকো – তাহলে কি আর সামনে ভালো করতে পারবা ?’

‘না । তুমি ভালো । সুন্দর করে বুঝাও । কিন্তু আমার মন খারাপ ।’ ছোট ছোট বাক্যে বলে জারাফ । এটা ওর আহ্লাদী মন খারাপ । জানে ফারহা । আসল মন খারাপ কেটে গেছে – এখন একটু আদর নেয়ার জন্য এমন করছে ।

 

‘কে জানি বলেছিল ইন্দোনেশিয়ান ব্র্যান্ড গুদাং গারাম তার প্রিয় সিগারেট ?’ রহস্যময় হাসি দিয়ে জানতে চায় ফারহা ।

‘হু । খুব সিগারেট খেতে ইচ্ছে করছে । কিন্তু পাব কোথায় ?’

ফারহার ব্যাগ থেকে প্রিয় ব্র্যান্ডের সিগারেট বের হতে দেখে জারাফ ।

‘তোমার জন্য কিনেছি । এখন সিগারেট খাও । এরপরে তোমার ঠোঁট খাবো !’ doctus viagra

 

একটু হেসে পাগলিটার দিকে তাকায় জারাফ । এই মেয়েটা না থাকলে কি আর ওর এই জীবনটা ভালো লাগত ?

 

*

লাভগুরু তাহের এবার সন্দেহের দৃষ্টিতে তাকায় জারাফের দিকে ।

‘ঠিকই তো আছে । বিন্দু তোর বেস্ট ফ্রেন্ড আর ফারহা তোর গার্লফ্রেন্ড । তাহলে ঝামেলাটা কোথায় ?’

‘আরে আছে – শুনে যা ।’

 

*

বিকেলে পার্কের মাঝ দিয়ে হেঁটে আসতে গিয়েই বুঝতে পারে জারাফ – ভুল পথ বেছে নিয়েছে ।

 

নাজমুল আর তার চার বন্ধু দাঁড়িয়ে আছে কাছেই । thuoc viagra cho nam

ওকে দেখে হাতছানি দিয়ে ডাকে নাজমুল ।

 

কাছে যেতেই কোন কথা ছাড়াই ওর চোয়াল কাঁপিয়ে ঘুষি বসিয়ে দেয় নাজমুল ।

পালটা আক্রমণ না করে পরিস্থিতি যাচাই করে জারাফ ।

কঞ্চির মত লম্বা ছেলেটাকে বেশি দাঁপাতে দেখা যাচ্ছে – পরের ঘুষিটা এর কাছ থেকেই আসবে আশা করে ও ।

বাতাস কেটে আসতে থাকা মুষ্ঠিবদ্ধ হাতটা ওর ধারণা ভুল প্রমাণিত করে । তবে আগে থেকে বোঝার সুবিধেটা পুরোপুরি কাজে লাগায় জারাফ ।

চট করে মাথাটা সরিয়ে নিয়ে এগিয়ে আসা লম্বুর মুখে প্রাণের সুখ মিটিয়ে পালটা ঘুষি বসিয়ে দেয় ও । wirkung viagra oder cialis

চরকির মত পড়ে যেতে থাকা লম্বুকে দেখে জারাফ অন্তরের অন্তস্থলে কোথাও শান্তি অনুভব করে ।

 

হুংকার দিয়ে একযোগে সবাই ওর দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে – তবে জারাফ লাফ দেয় নাজমুলের দিকে ।

জানের শত্রুকে নিয়েই মাটিতে পড়ে  ও – নাজমুলের চামচারা ওকে ধরে সরিয়ে নেয়ার আগে আটটা ঘুষি বসাতে পেরেছে ও – কাজেই নাক মুখ প্রায় সমান হয়ে গেছে নাজমুলের ।

আটকে ফেলা জারাফের ওপর ওরাও কিছুক্ষণ বক্সিং প্র্যাকটিস করে । যখন জারাফকে রেখে ওরা চলে যায়, ওর নাকমুখও নাজমুলের দশাতেই গেছে । চশমাটা আগেই ছিটকে পড়ায় একেবারে ভেঙ্গে যায় নি এই রক্ষা ।

 

বিন্দুর বাসাটাই সবচেয়ে কাছে – এখান থেকে দেখা যাচ্ছে ।

স্বাভাবিক অবশ্য – নাজমুল বিন্দুর বাসার আশেপাশেই ঘুর ঘুর করে ।

কাজেই ওদিকে পা বাড়ায় জারাফ ।

 

দরজা খুলে জারাফের রক্তাক্ত চেহারা দেখে সুন্দর মুখটা মলিন হয়ে যায় মেয়েটার ।

‘কিভাবে হল ?’

‘নাজমুল ।’ ছোট করে উত্তর দেয় জারাফ ।

‘ভেতরে আয় তাড়াতাড়ি । ফার্স্ট এইড দেই ।’

 

নরম হাতে ওর ক্ষত পরিষ্কার করে দিয়ে ব্যান্ডেজ করে দেয় বিন্দু ।

‘ক্লাসে কি দরকার ছিল রে ফালতু পোলাটাকে এত জোরে মারার ?’ আলতো করে ওর মুখ মুছিয়ে দিয়ে জানতে চায় বিন্দু ।

‘তোকে জ্বালাবে ক্যান ?’ পালটা প্রশ্ন করে জারাফ ।

‘মেয়েদের ওসব একটু আধটু সহ্য করতেই হয় ।’ মাথা নিচু করে বলে বিন্দু ।

‘মেয়েদের করতে হয় – করুক । আমার বিন্দু সহ্য করবে না ।’ বলেই বুঝে ভুল কথা বলে ফেলেছে ।

 

একেবারেই হঠাৎ জারাফকে চুমু খেয়ে বসে বিন্দু ।

হতভম্ভ জারাফও সাড়া দেয় তাতে । will i gain or lose weight on zoloft

 

*

‘কস কি মমিন !’ লাফিয়ে উঠে লাভগুরু তাহের । ‘বিন্দু জানে না তোর-ফারহার রিলেশন ?’

‘জানে তো । তাও ঝট করে ঠোঁট কামড়ে বসলে কি করব ?’ অসহায় চেহারা নিয়ে বলে জারাফ । irbesartan hydrochlorothiazide 150 mg

‘আরে এতে ওর ফিফটি পার্সেন্ট দোষ । কুল, ম্যান ।’

‘ফিফটি পার্সেন্ট আমারও দোষ ।’

‘আরে বাদ দে । ওকে তো আর ভালোবাসিস না ।’ অভয় দেয় তাহের ।

‘বাসি ।’ তাহেরকে আবারও ইলেক্ট্রিক শক দিয়ে সোজা করে দেয় জারাফ ।

‘তুই মরেছিস ।’ লাভগুরু আর কোন সমাধান পায় না ।

 

*** পরিশিষ্ট ***

 

তাহেরের স্ত্রী রাবেয়া থমকেই যায় এই পর্যায়ে ।

‘ছি ছি ! কি বাজে স্বভাবের চরিত্র তোমার বন্ধুটার !’ জিভ কেটে একাকার হয়ে যায় মেয়েটা, ‘একসাথে ফারহাকেও ঠকালো – আবার বিন্দুকেও !’

মুচকি হাসি নিয়ে অপেক্ষা করে তাহের ।

  para que sirve el amoxil pediatrico

বন্ধুপ্রবরের প্রতি কখন অভিযোগটা তোলে সহধর্মিনী – তার অপেক্ষাতেই ছিল ও এতক্ষণ – বোঝা যায় ।

‘ও কাওকে ঠকায় নি, রাবেয়া ।’ হাসিটা ঝুলে থাকে তাহেরের মুখে, ‘ও যা করেছে – ভার্সিটির লাভগুরুর পদটা আমার ঘাড় থেকে সরে গিয়ে জারাফের ঘাড়ে গিয়ে পড়ে ।’

 

‘কি করেছে ? হ্যাঁ ?’ মুখ ঝামটা দেয় রাবেয়া, ‘দুটো মেয়েকে একসাথে -’

‘বিয়ে করেছে ।’ বলেই দেয় তাহের । হাসিটা আরেকটু বিস্তৃত ।

 

‘এ মা !’ চমকে যায় রাবেয়া । ‘দুইজনকেই ?’

‘হ্যাঁ । একই দিনে ।’ গাড়ি থামায় তাহের । ‘চলে এসেছি ওদের বাসায় । চলো দেখতেই পাবে – বেশ চলে যাচ্ছে দুই সতীনের সংসার ।’

viagra vs viagra plus

You may also like...

  1. এন্ডিংটা ভাল ছিল। অনুমানের কোন সুযোগই ছিল না। তবে গল্প পড়ার সময় কেন যেন মনে হল, গল্প নয় স্ক্রিনপ্লে পড়ছি।

  2. তারিক লিংকন বলছেনঃ

    ভাল তো ভাল না… এমন দোটানা কে না চায়!!
    আপনার গল্প চমৎকার… zithromax azithromycin 250 mg

  3. অসাধারন লাগলো শেষে এসে… ~x( চালিয়ে যান ভাই… :-bd এরকম আরও তব্দামার্কা গল্প চাই আপনার কাছ থেকে… %%- %%- glyburide metformin 2.5 500mg tabs

  4. দুরন্ত জয় বলছেনঃ

    আমি টাস্কিত!!!

    সেইরাম গল্প ওস্তাদ……

    জীবন্ত এক গল্প……

  5. চাতক বলছেনঃ

    অন্যরকম ফিনিশিং! আপনার গল্প লিখার হাত চমৎকার!! cialis new c 100

  6. ইশ মানুষ একটা বিয়ে করে সারতে পারে না ইনি দুইটা বিবাহ!!!

  7. দুরন্ত জয় বলছেনঃ

    আপনার মন্তব্য পড়ে মনে হচ্ছে আপনিও দোটানার মাঝে আছেন।

    এই থিউরি এপ্লাই করে ফেলুন :-D :-D

  8. চমৎকার গল্প ।আর অন্যদের সাথে গলা মিলিয়ে বলতেই হচ্ছে ফিনিশিং টা চমৎকার ছিল। চালিয়ে যান……ধন্যবাদ

  9. অনুস্বার বলছেনঃ

    গল্পের প্রতি পরতে পরতে রোমান্স , উত্তেজনা আর খুনসুটির অসাধারন চিত্রকল্প পড়ে হঠাৎ করেই যেন হারিয়ে গেলাম সুদূর অতীতে ফেলে আসা অসম্ভব প্রার্থিত কিছু মুহূর্তে… #-o

    সরি ফোকস, একটু নস্টালজিক হয়ে পড়েছিলাম। অসাধারন লিখেছেন ব্রাদার… জাস্ট কিপ দিস ফ্লো আপ… :-bd >:D< অপেক্ষায় রইলাম এরকম আরও অসাধারন লেখা পড়বার… :-w

  10. অনুস্বার বলছেনঃ

    তবে একটা ব্যাপারে একটু পোস্টকর্তার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাই। কাইন্ডলি লেখার মাঝে স্পেসের ব্যাপারে একটু খেয়াল রাখবেন। অযথা স্পেস বেশি হয়ে যাওয়ায় লেখাটা দেখতে দৃষ্টিকটু লাগছে। আশা করি নেক্সট টাইম স্পেসটা ঠিকঠাক রাখবেন… :-bd

    শুভকামনা নিরন্তর ব্রাদার… >:D< venta de cialis en lima peru

    clomid over the counter
  11. অংকুর বলছেনঃ

    আমিও খাব :-(

    অস্থির লাগছে ভাই

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

viagra in india medical stores

Question   Razz  Sad   Evil  Exclaim  Smile  Redface  Biggrin  Surprised  Eek   Confused   Cool  LOL   Mad   Twisted  Rolleyes   Wink  Idea  Arrow  Neutral  Cry   Mr. Green

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.