শিক্ষার উদ্দেশ্য মূল্যবোধ সৃষ্টি কেবলই অর্থ উপার্জন নয়

874

বার পঠিত

বাংলা উইকিপিডিয়ায় শিক্ষার সংজ্ঞাটা এইরকম ‘সাধারণভাবে বলা যায় মানুষের আচরণের কাঙ্খিত, বাঞ্চিত এবং ইতিবাচক পরির্বতনই হলো  শিক্ষা’। মূলত প্রাগৈতিহাসিক (Prehistoric) সময়ের শুরুর দিক থেকেই সমাজবদ্ধভাবে বসবাসকারী মানব সম্প্রদায়ের বয়োজ্যেষ্ঠরা তাদের সারাজীবনের অর্জিত জ্ঞান, অগ্রগামীদের থেকে পাওয়া জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতাকে নতুন প্রজন্মের কাছে শিখায় দেয়ার বা সমর্পণ করার রীতিটা শুরু করে। আদতে এইটাই শিক্ষার মৌলিক এবং প্রাচীনতম প্রক্রিয়া। শিক্ষাদান বা জ্ঞান বিতরণের প্রাচীনতম ইতিহাস। শিক্ষিত সমাজ সৃষ্টির প্রাক্বালে মানব সমাজের অভিজ্ঞতার প্রসার ঘটত মুখে মুখে এবং অনুকরণের মাধ্যমে। পরবর্তীতে গল্প বলাও বংশানুক্রমে অভিজ্ঞতা এবং জ্ঞান প্রবাহের অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠে।

গোটা বিশ্বের আজ পর্যন্ত আবিষ্কৃত বর্ণগুলোর মাঝে খ্রিস্টপূর্ব ২০০০ সালের দিকের মিশরের ‘হাইরোগ্লাপিক’ (Hieroglyphic) প্রোটোটাইপই প্রথম। যদিও ধারণা করা হয়ে থাকে তারও ১৫০০ বছর আগে লিখন পদ্ধতি মানুষ রপ্ত করতে সক্ষম হয়েছিল। এরপরের ইতিহাস ঘাঁটলে যা পাওয়া যায় তা হচ্ছে সভ্যতার প্রথম স্কুল বা উচ্চশিক্ষার্থে মিলিত হওয়া এক ঝাঁক জ্ঞানপালের মিলনমেলা। ঠিক ধরেছেন প্লেটোর একাডেমী‘র কথা বলছি।

প্লেটোর একাডেমীঃ

প্লেটোর একাডেমী প্রাচীন গ্রীসের দার্শনিকদের আলোচনার এবং জ্ঞান বিতরণের একটি প্রতিষ্ঠান। আমার জানা মতে এটাই মানব সভ্যতার ইতিহাসের প্রথম এবং প্রাচীনতম পাঠদান কেন্দ্র।  প্রাচীন গ্রিসের রাজধানী এথেন্সের  “একাডেমাস ”  (Akademos) নামক বাগানে, যেখানে গ্রিক দেব-দেবীর উদ্দেশ্যে পশু উৎসর্গ করার রীতি ছিল, সেখানে আনুমানিক খ্রিষ্টপূর্ব ৩৮৫ সালে প্লেটো এটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রাচীন গ্রিক দর্শনের এই পাদপীঠকে অনেক কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছিল। ওল্ড, মিডল এবং নিউ একাডেমীর পর্যায় শেষে একবার এই ধারাকে ‘First Mithridatic War‘ এর সময় একবার থমকে দাঁড়াতে হয় খ্রিষ্টপূর্ব ৮৬-৮৪ সালের দিকে। পরবর্তীতে ‘সিসেরো ‘এবং তাঁর গুরু আবার এর কার্যক্রম শুরু করেন। এবং গোটা রোমান সাম্রাজ্যের সময় ধরেই এই আলোকবর্তিকাদের জ্ঞান চর্চা চলতে থাকে। এরই মধ্যে দর্শনের পটপরিবর্তন হয়ে নিওপ্ল্যাটনিজমে প্রবেশ করেছে। তারপর একাডেমীকে বাইজেন্টাইন সম্রাট  প্রথম জাস্টিনিয়ান ৫২ সালে বন্ধ করে দেন। কালের পরিক্রমায় প্রায়শঃই এই সালকে প্রাচীনকালের সমাপ্তি বলে উল্লেখ করা হয়। can you tan after accutane

Plato's_Academy_mosaic_from_Pompeii

Plato’s academy, mosaic from Pompeii

প্রাচীন ভারতীয় শিক্ষাঃ

প্রাচীন ভারতীয় বৈদিক সমাজে খ্রিষ্টপূর্ব ১৫০০ থেকে ৬০০ সালের মধ্যবর্তী সময়ে শিক্ষা বা পাঠদানের রীতি প্রচলিত হতে থাকে। যদিও এই অঞ্চলে পাঠদানের এই রীতিটি সম্পূর্ণাংশে গড়ে উঠে ‘বেদ’ শিক্ষাকে কেন্দ্র করে। ভারতীয় পৌরাণিক গ্রন্থ এবং বেদ উপনিষদের মত ধর্মগ্রন্থের সাথে সাথে হারবাল চিকিৎসারও ব্যাপক প্রসারের নিদর্শন আছে এই অঞ্চলে।

যাহোক বাংলায় ‘শিক্ষা’ শব্দটি এসেছে সংস্কৃত ‍’শাস’ ধাতু থেকে যার অর্থ শাসন করা বা উপদেশ দান  করা। শিক্ষার ইংরেজি প্রতিশব্দEducation এসেছে ল্যাটিন শব্দ ‘educare’ বা ‘educatum’ থেকে যার অর্থ ‘to lead out’ অর্থাৎ মানব মনের সুপ্ত সম্ভাবনাকে বিকশিত করা। সক্রেটিসের মতে ‘শিক্ষা হল মিথ্যার অপনোদন ও সত্যের বিকাশ।’  আর “সুস্থ দেহে সুস্থ মন তৈরি করাই হল শিক্ষা”- বলেছিলেন এরিস্টটল।  বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথের ভাষায় ‘শিক্ষা হল তাই যা আমাদের কেবল তথ্য পরিবেশনই করে না বিশ্বসত্তার সাথে সামঞ্জস্য রেখে আমাদের জীবনকে গড়ে তোলে’। buy kamagra oral jelly paypal uk

শিক্ষার উদ্দেশ্যঃ

বাংলা উইকিতে শিক্ষার উদ্দেশ্যগুলো নিয়ে ১৪ টা পয়েন্ট দেয়া আছে। এতো প্রথাগত হিশেবে আমি যাব না আমার কাছে শিক্ষার উদ্দেশ্য মোটামুটি তিন প্রকার বা তিন ধরণের-

ক) বংশানুক্রমে মানুষ তাঁর জ্ঞানকে বংশান্তরে সমর্পণ করে নিজেকে টিকিয়ে রাখার তাগিদ; কারণ মানুষের সেই টিকে থাকার যোগ্যতা বা কোয়ালিটি। ঠিক যে কারণে মানুষ যোগ্যতম প্রাণী হিশেবে টিকে থাকতে চাই একই কারণে তাঁর সকল অভিজ্ঞতা এবং জ্ঞান ভাণ্ডার মানুষ ভবিশ্যতের অনাগত মানুষের জন্য সংরক্ষণ করে যায়। যেমন ধরেন আলাস্কায় বর্তমানের সভ্যতার সকল উল্লেখযোগ্য জ্ঞান বিজ্ঞানের অগ্রগতি এমনকি শস্যদানা থেকে শুরু করে সব কিছু সংরক্ষণ করে রেখেছে মানুষ। এইটা হচ্ছে আরোপিতভাবে টিকে থাকার জন্য মানুষের প্রচেষ্টা বাকি আলোচ্য বিষয় হচ্ছে সহজাত প্রবৃত্তি। অর্থাৎ আমার মতে মানুষ তাঁর টিকে থাকার নিশ্চয়তার জন্য শিক্ষা ব্যাবস্থার সৃষ্টি এবং উন্নয়ন করেছে।

খ) নীতিশাস্ত্রগুলোকে একটা প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়ে মানুষের মাঝে একটা মূল্যবোধ সৃষ্টি করার তাগিদ;  কারণ শিক্ষার মূল উদ্দেশ্য মূল্যবোধ বা নৈতিকতাবোধের সৃষ্টি। এইটা কেন করে মানব সম্প্রদায়? কারণ সেই একই সহজাত প্রবৃত্তি হিশেবে নিজের বংশকে নিরাপদ করা। কেন মানুষ আদিম যুগ থেকে আজকের এই যায়গায় এল এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজলেই বুঝা যায় সেই ছন্নছাড়া সমাজগোত্রহীন জীবন মানুষকে আরও অনিরাপদ করে। তাই সমাজবদ্ধ জীব হয়ে উঠল মানুষ। নীতি, নৈতিকতা এবং সমাজিক নানাবিধ বন্ধনের মাধ্যমে নিজেদের জীবনকে নিশ্চিত এবং নিরাপদ করতে চাইল। এই পদ্ধতির একটা কার্যকরী প্রতিষ্ঠান হল শিক্ষা। এই নৈতিকতাবোধ এবং মূল্যবোধের শিক্ষায় মানুষকে সমাজবদ্ধভাবে আরও নিশ্চিত এবং নিরপদ জীবন দেয়।

গ) শিক্ষার এবং জ্ঞানের অগ্রযাত্রাকে ত্বরান্বিত করার তাগিদ;  আজ আমরা যদি নিউটনের সুত্রগুলোকে সংরক্ষণ না করতাম বা না পড়তাম তবে হয়তো আবারো কেউ না কেউ আবারো এখান থেকে তাঁর ভাবনার জগত সৃষ্টি করত বা করতে হতো। আমরা যদি প্লেটো-এরিস্টটল-সক্রেটিস  না জানতাম তবে আজকের দর্শনের এই অবস্থানে আসত না। তাই ধারাবাহিকভাবে ক্রমান্বয়ের অগ্রযাত্রাকে চলমান রাখতেই জ্ঞানের প্রবাহ অর্থাৎ শিক্ষার আবশ্যকতা মানবজাতি উপলব্ধি করে। শিক্ষায় কেবল সভ্যতার এই দুর্নিবার অগ্রযাত্রাকে নিশ্চয়তা দিতে পারে এবং নিঃসন্দেহে দিয়েছে।

শিক্ষার উদ্দেশ্য এবং শিক্ষা ব্যবস্থার উৎপত্তি সম্পর্কে এই তিনটি বিষয়কেই আমার মৌলিকতম কারণ মনে হয়েছে। আজকের এই বিষয় নিয়ে আলোকপাত করার কারণ। আজ আমাদের প্রথাগত প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যবস্থার একটি ধাপের সমাপনি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। এতে প্রচুর ছাত্র তাঁদের আশানুরূপ ভাল করেছে অপরদিকে অনেকে তা করতে ব্যর্থ হুয়েছে বা সমর্থ হয় নি। তবে আমার কাছ থেকে তাদের দুদলের জন্যে নতুন বিশ্বের স্বপ্ন দেখার সুযোগ তৈরি হল বলে মনেহয়।

“প্রিয় মানব সন্তানেরা ,জীবন কোন খেলা নয়। কোন লক্ষ্য নেই এখানে; জগতে ছড়িয়ে পর,যা খুশি কর। স্বপ্ন দেখতে থাক মানুষের জন্য,একটা নতুন বিশ্বের জন্য। কখনো মনে করো না জীবনে কোন নিয়ম আছে। জীবনে কোন বাধা ও নিয়ম নেই।” মার্কিন কবি ‘ওয়াল্ট হুইটম্যান’ এর ‘সং অফ মাইসেলফ’ (Song of Myself) কবিতা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে এই ক’টা লাইন ভাবানুবাদ করলাম।

মূল কথা হচ্ছে আজ বিশ্বে যে ধারার শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচলিত আছে তা  শিশুদেরকে একটা অসম যুদ্ধে স্কুলজীবন থেকে ফেলে দিচ্ছে। এটা কখনই ঠিক না বা সমর্থনযোগ্য না, অন্তত আমার তাই মনে হয়। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মানব সমাজে আজও সেইভাবে মানুষ তৈরিতে অবদান রাখতে পারে নি। কথাটা বলছি কারণ যথার্থ অর্থে মূল্যবোধ সৃষ্টিতে প্রথাগত শিক্ষাব্যবস্থা আসলেই সফলভাবে ব্যর্থ। শিক্ষার উদ্দেশ্য হওয়ার কথা মূল্যবোধ সৃষ্টি অথচ তা আজ অর্থ উপার্জনের মেশিন বানাচ্ছে ছাত্র বা শিক্ষার্থীদের, মানবীয় গুণাবলীর মানবিক মানুষ না। আর আজেকের ফলাফলের পর অনেকেই এইচএসসি’তেও হয়ত তাই পাবে তারপর ডাক্তার, প্রকৌশলী, ম্যাজিস্ট্রেট কিংবা ব্যবসায়ী বা এমন কোন বড় ধরনের অর্থ উপার্জনের যন্ত্র হবে। ‘গোল্ডেন এ প্লাস’ এর দৌড়ই যেন আজকের শিক্ষা ব্যবস্থার নিয়ামক। ‘মানুষের মত মানুষ’ হওয়ার জন্যে শিক্ষা কি বিশ্ববাসীকে আমরা প্রথম দেখাতে পারি না?

আর কেনই বা সবাই মানুষ না হয়ে অর্থ উপার্জনের যন্ত্র হতে চাই? তাই যারা ‘গোল্ডেন এ প্লাস’  পেয়েছ বা যারা পাও নি এবং যারা আজও এই বয়সে বিদ্যালয়ে পা রাখতে পারে-পারে নি তাদের সবাইকে অভিনন্দন। কেননা এখনো তোমাদের সকলের হাতেই মানুষের মত মানুষ হওয়ার বিরল কিন্তু প্রত্যাশিত সুযোগ থাকল। অশেষ – অফুরন্ত শুভ কামনা তোমাদের জন্যে।  নিজের মত করে দুইটা লাইন খুব বাস্তব মনে হয়; “তোমার চিন্তা শক্তিই তোমার জীবনের শেষ সীমানা” আর “স্বপ্নই কেবল যথার্থ স্বাধীন”।

আর মধ্যমিকে পড়া কিছু নীতিকথা সবসময় খুব মনে পরেঃ

“সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত” আর  “শিক্ষার উদ্দেশ্য মূল্যবোধ সৃষ্টি” capital coast resort and spa hotel cipro

এই সভ্যতা তবেই যথার্থ মুক্ত ও স্বাধীন হবে যখন মানুষ সুশিক্ষিত হবে; আর পুঁজিবাদের তাঁবেদারি যন্ত্র বা মেশিন না হয়ে মানবতার জন্যে কাজ করবে। আর এক্ষেত্রে বলা যায় শিক্ষা আমাদের মধ্যে শুধুমাত্র উপজাত (byproduct) হিশেবে অর্থ উপার্জনের বা জীবিকা অর্জনের সৎ পথ বাতলায় দেয় না , শিক্ষা আমাদের মাঝে সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতার শিক্ষাও দেয়ার কথা, মানুষকে মানবিক হওয়ার শিক্ষা দেয়ার কথা, সভ্যতার অগ্রযাত্রায় অংশগ্রহণ করতে উদ্বুদ্ধ করার কথা। জানিনা কে কতটা এই শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে। এও জানিনা এইটা শিক্ষা ব্যবস্থার দুর্বলতা নাকি সমাজ ব্যবস্থার? তবুও চাই-

বাজারি শিক্ষা নিপাত যাক, মানবিক শিক্ষা মুক্তি পাক।

মানবতার জয় হোক… ovulate twice on clomid

উৎসর্গঃ সভ্যতা ব্লগের ‘দুরন্ত জয়’সহ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের যারা ভাল করেছে এবং যারা ভাল করেনি আর যারা পড়তে যেতে পারে নি এই সমাজের জন্য তাদের সবাইকে।

will metformin help me lose weight fast

You may also like...

  1. দুরন্ত জয় বলছেনঃ

    ধন্যবাদ আমায় উৎসর্গ করে লিখবার জন্য। cialis new c 100

    সুন্দর একটি পোস্ট লিখেছেন তারিক লিংকন ভাই। কিন্তু খুব তাড়াহুড়ো করে লিখেছেন বোধ হয়, কিছু বানান ভুল আছে।

    ভাল একটি পোস্ট…… metformin tablet

  2. জন কার্টার বলছেনঃ

    নাই তার মানে তুমি খারাপ ছাত্র!! সমাজের চমৎকার পোস্ট শ্রদ্ধেয় তারিক লিংকন ভাই…….

    “শিক্ষার উদ্দেশ্য মূল্যবোধ সৃষ্টি কেবলই অর্থ উপার্জন নয়” যদিও কথাটির ভিত্তি আছে! তবে সত্য বলতে কি বর্তমানে শিক্ষা কি প্রকৃতপক্ষে কোন মূল্যবোধ সৃষ্টি করতে পারছে? হাতে গোনা কয়েকজন ছাড়া সকলের শিক্ষাগ্রহণের মূল উদ্দেশ্য হলো যেভাবেই হোক একটা ভালো রেজাল্ট করা! কারণ বর্তমানে তুমি গোল্ডেন এ+ পেয়েছ তার মানে তুমি ভালো ছাত্র(সে তুমি প্রশ্ন পেয়েও পাও না কেন), তুমি এ+ পায় নাই(!) তাইলে তোমার কোন মূল্য নাই!!!!
    থ্রি ইডিয়ট’স মুভির একটা লাইন খুব ভালো লেগেছিল আর সেটা হল, “নতুন কিছু শেখার সময় কি আমাদের মনে হয়, চলো আজ কিছু নতুন শিখবো” সত্যিকার অর্থে না আমাদের তা মনে হয় না….

    আর মূল্যবোধ!!!! সে তো আজব সেলুকাস….. শিক্ষা আজ আর মূল্যবোধ জাগায় না, যা জাগায় তা হলো ফাস্ট হওয়ার আকাঙ্খা! ভালো চাকরি পাওয়ার আকাঙ্খা!

    আজকাল শিক্ষিত আর অশিক্ষিত লোকের মাঝে পার্থক্য নিরূপণ করা বড্ড কঠিন! কারণ কারো মধ্যেই আজ আর মূল্যবোধ নেই……

  3. অসীম নন্দন বলছেনঃ

    চমৎকার লিখেছেন লিংকনদা! ^:)^ ^:)^ স্টিকি করার দাবী জানাই সম্মানিত মডারেশন প্যানেলকে

  4. আজ বিশ্বে যে ধারার শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচলিত আছে তা শিশুদেরকে একটা অসম যুদ্ধে স্কুলজীবন থেকে ফেলে দিচ্ছে। এটা কখনই ঠিক না বা সমর্থনযোগ্য না, অন্তত আমার তাই মনে হয়। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মানব সমাজে আজও সেইভাবে মানুষ তৈরিতে অবদান রাখতে পারে নি। কথাটা বলছি কারণ যথার্থ অর্থে মূল্যবোধ সৃষ্টিতে প্রথাগত শিক্ষাব্যবস্থা আসলেই সফলভাবে ব্যর্থ। শিক্ষার উদ্দেশ্য হওয়ার কথা মূল্যবোধ সৃষ্টি অথচ তা আজ অর্থ উপার্জনের মেশিন বানাচ্ছে ছাত্র বা শিক্ষার্থীদের, মানবীয় গুণাবলীর মানবিক মানুষ না।

    একদম সঠিক । আমি মনে করি শিক্ষা একটা অস্ত্র । এর সঠিক এবং ন্যায়সঙ্গত ব্যবহার নিশ্চিত করাটাই জরুরী । কথায় আছে,

    দুর্জন বিদ্বান হৈলেও পরিত্যাজ্য

    পিয়াস করিম কিংবা ফরহাদ মজহারের মত শিক্ষিতদের চাইতে কুকুরই ভাল ।

    চমৎকার লিখেছেন লিংকন ভাই । :দে দে তালি: :দে দে তালি: :দে দে তালি:

  5. সাধারন গদবাঁধা ধারনার বাইরে অন্যজাতের শব্দমালা এবং চিন্তাশৈলীর সংমিশ্রণেই কেবলমাত্র এ রকম অসাধারন তথ্যসমৃদ্ধ পোস্ট লেখা সম্ভব।
    এমনিতেই অন্যরকম একটা শ্রদ্ধাবোধ তো আছেই, সাথে আরেকটু যোগ হোল।
    দেখবেন, শ্রদ্ধা ভারে যেন নুইয়ে না পড়েন। আপনার শির চির উন্নত থাকুক।
    আপনার যোগ্য সম্মান দিতে যেন কুণ্ঠিত না হই।

    ভাল থাকবেন। clomid over the counter

  6. চাতক বলছেনঃ

    ভাল লাগল বিশ্লেষণ %%- %%- %%- =D> =D> =D>

    তবে শেষ দিকে এসে শিরোনামের সাথে বিশ্লেষণের সাথে খুব একটা সঙ্গত মনে হয় নি।

    “সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত” আর “শিক্ষার উদ্দেশ্য মূল্যবোধ সৃষ্টি”— :-bd :-bd :-bd nolvadex and clomid prices

  7. রাজু রণরাজ বলছেনঃ

    চমৎকার লেগেছে পোষ্টটা ♣♣♣♣

আপনার ই-মেইল ও নাম দিয়ে মন্তব্য করুন *

Question   Razz  Sad   Evil  Exclaim  Smile  Redface  Biggrin  Surprised  Eek   Confused   Cool  LOL   Mad   Twisted  Rolleyes   Wink  Idea  Arrow  Neutral  Cry   Mr. Green

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Heads up! You are attempting to upload an invalid image. If saved, this image will not display with your comment.