Category: দর্শন

টু দেশের সিনিয়র পলিটিশিয়ানস

ডিয়ার সিনিয়র পলিটিশিয়ানস, আপনারা কি কখনো অবসর নিবেন না? সারাজীবন রাজনীতি করে কি পেলেন? না শান্তিতে একটা রাত ঘুমাতে পারছেন, না পরিবারকে ঠিকমতো সময় দিয়েছেন? গুম, হত্যা, মৃত্যু, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজী এইসব আতংকের ভিতরেই কাটিয়ে দিয়েছেন পুরোটা জীবন। এটা কি মানুষের জীবন? পার্টি পার্টি করে জীবনের শেষ ভাগে চলে এসেছেন। কদিন পরেই এই পার্টি ছেড়ে, এই ক্ষমতা ছেড়ে চলে যাবেন অনেক অনেক দূরে। মৃত্যুর পরে কেউ কি আপনাদের এত এত অবদান স্মরণ করবে? আপনারা কি অতীতের কারোটা স্মরণ করছেন? তাহলে আপনি কেনো ভাবছেন, আপনার ভাগ্যে ব্যতিক্রম কিছু ঘটবে? আর আপনারা নিশ্চয় জীবনের এই শেষভাগে এসে দারুণ ক্লান্ত! পার্টি করতে করতে ক্লান্ত, যা...

রামমোহন রায়: ধর্মকে ছিঁড়ে যুক্তিতে বাঁধলেন যিনি

“আমরা মৃতের বধূ হবার জন্য জীবিত নারীকে নীত হতে দেখেছি।” — অথর্ব-বেদ (১৮/৩/১,৩) “মানুষের শরীরে সাড়ে তিন কোটি লোম থাকে, যে নারী মৃত্যুতেও তার স্বামীকে অনুগমন করে, সে স্বামীর সঙ্গে ৩৩ বৎসরই স্বর্গবাস করে।” — পরাশর সংহিতা (৪:২৮) “যে সতী নারী স্বামীর মৃত্যুর পর অগ্নিতে প্রবেশ করে সে স্বর্গে পূজা পায়।” — দক্ষ সংহিতা (৪:১৮-১৯) “যে নারী স্বামীর চিতায় আত্মোৎসর্গ করে সেতার পিতৃকুল, স্বামীকুল উভয়কেই পবিত্র করে।” — দক্ষ সংহিতা (৫:১৬০) [1] [11] আমাদের, উপমহাদেশ-বাসীদের শিরায়-উপশিরায় প্রতিনিয়তই প্রবাহিত হয় ধার্মিকতার স্রোত। কখনও হাত কেটে গেলে যদি লাল লাল রক্তের পরিবর্তে নীল নীল ধার্মিকতা বেরিয়ে আসে, তাহলে অবাক হবার খুব বড়...

শিক্ষার উদ্দেশ্য মূল্যবোধ সৃষ্টি কেবলই অর্থ উপার্জন নয়

বাংলা উইকিপিডিয়ায় শিক্ষার সংজ্ঞাটা এইরকম ‘সাধারণভাবে বলা যায় মানুষের আচরণের কাঙ্খিত, বাঞ্চিত এবং ইতিবাচক পরির্বতনই হলো  শিক্ষা’। মূলত প্রাগৈতিহাসিক (Prehistoric) সময়ের শুরুর দিক থেকেই সমাজবদ্ধভাবে বসবাসকারী মানব সম্প্রদায়ের বয়োজ্যেষ্ঠরা তাদের সারাজীবনের অর্জিত জ্ঞান, অগ্রগামীদের থেকে পাওয়া জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতাকে নতুন প্রজন্মের কাছে শিখায় দেয়ার বা সমর্পণ করার রীতিটা শুরু করে। আদতে এইটাই শিক্ষার মৌলিক এবং প্রাচীনতম প্রক্রিয়া। শিক্ষাদান বা জ্ঞান বিতরণের প্রাচীনতম ইতিহাস। শিক্ষিত সমাজ সৃষ্টির প্রাক্বালে মানব সমাজের অভিজ্ঞতার প্রসার ঘটত মুখে মুখে এবং অনুকরণের মাধ্যমে। পরবর্তীতে গল্প বলাও বংশানুক্রমে অভিজ্ঞতা এবং জ্ঞান প্রবাহের অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠে। গোটা বিশ্বের আজ পর্যন্ত আবিষ্কৃত বর্ণগুলোর মাঝে খ্রিস্টপূর্ব ২০০০ সালের দিকের মিশরের ‘হাইরোগ্লাপিক’ (Hieroglyphic) প্রোটোটাইপই...

৪০-বছরের ভারত-বাংলাদেশ বৈরিতা : সমাধান কোন পথে?

গত বছর কোলকাতার রাস্তায় টেক্সিতে ভ্রমনকালে বাংলাভাষী টেক্সিওয়ালার খেদোক্তি ছিল, ‘‘একাত্তরের স্বাধীনতা যুদ্ধে ভারতের প্রায় ২০,০০০ সেনার রক্তে বাংলাদেশ রঞ্জিত হলেও এবং তখনকার অভাবী কোলকাতার মানুষের বাংলাদেশের যুদ্ধের প্রতি অকৃত্রিম সমর্থন, আর ১-কোটি শরণার্থীকে নানাভাবে সহযোগিতার পরও, বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ কেন এতো ভারত-বিদ্বেষী? কেন বাংলাদেশ ভারতের বিরুদ্ধে নানা কর্মকান্ডে অংশগ্রহণকারী সন্ত্রাসীদের সহায়তা করে? বাংলাদেশ কি পাকিস্তান’’? এরূপ অভিযোগ আরো শুনেছি হিন্দীভাষী চেন্নাইগামী ট্রেনযাত্রীর মুখে ‘করোমন্ডল এক্সপ্রেসে’। যদিও কোলকাতার অধিকাংশ মানুষ ‘বাংলাদেশ’ শব্দটির ব্যাপারে খুবই ‘নস্টালজিক’ এবং পশ্চিম বঙ্গের মতই তারা মনেপ্রাণে রাজনৈতিক বাংলাদেশকে ভালবাসে, বিশেষ করে এক সময় যাদের পূর্বপুরুষরা বাস করতো পূর্ববঙ্গ তথা বর্তমান বাংলাদেশে। সুসাহিত্যিক সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের মত...

“উত্তর- আধুনিক চিন্তা এবং কিছু কথা”

উত্তর-আধুনিকতার ইংরেজী প্রতিশব্দ postmodernism শব্দটি ১৮৭০ সাল থেকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হতে থাকে।প্রথম ব্যবহার করেন জন ওয়টকিনস চ্যাপম্যান নামে এক শিল্পী। এরপর জে,এম থমসন ধর্মীয় বিশ্বাসকে সমালোচনা প্রসঙ্গে তিনি এ শব্দটি ব্যবহার করেন।ধারনাটি তার তার উদ্ভব মূহুর্ত থেকেই জনপ্রিয়তা লাভ করে এবং বিতর্ক এর সাধারন সঙ্গী।মূলত দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধোত্তর পাশ্চাত্য চিন্তায়,বিশেষ করে দর্শন,ইতিহাস লিখন,সাহিত্য,চিত্রকলা,সমালোচনায় উত্তর আধুনিকতা গত কয়েক শত বছরের জ্ঞানকান্ডকে চ্যালেঞ্জ জানাতে সক্ষম হয়েছে। উত্তর আধুনিকতা বৈপরীত্য তৈরী যেমন সাদা বনাম কালো,নারী বনাম পুরুষ,উপনিবেশক বনাম উপনিবেশিত এই প্রক্রিয়ার বিরোধিতা করে।এর বদলে বহুধারনায় বিশ্বাস করে।আসলে উত্তর আধুনিকতার গাথুনি বুঝতে হলে আধুনিকতার উদ্ভব বা ইতিহাসকে বিবেচনা করতে হবে,এর ফলে উত্তর আধুনিকতা নিয়ে...

যদি কেউ কথা না কয়. . .

আমার কেন মানবতাবাদী হতেই হবে ? প্রথমেই ধরে নেই আমি একজন প্রচলিত ধর্মে অবিশ্বাসী মানুষ। নাস্তিক। ঈশ্বরের অস্তিত্বকে অস্বীকার করি। আমার বেঁচে থাকতে, টিকে থাকতে, আমার অস্তিত্ব রক্ষার্থে কোনো কল্পিত ঈশ্বরের আমার প্রয়োজন নেই। এখন অধিকাংশ অবিশ্বাসীর ক্ষেত্রে যা হয়, ধর্মের কল্পিত ঐশ্বরিক অংশকে বাতিল করে দিয়ে বরং নৈতিক দিকগুলো ধারন করেন। যদিও ধর্মীয় নৈতিক শিক্ষাগুলো ধর্ম থেকে আসে না, আসে মানুষের পারিপার্শ্বিক সামাজিক ও পারিবারিক মূল্যবোধ থেকে। আমার ব্যক্তিগত অবস্থান থেকে তাই প্রশ্ন; আমার কেন নীতিবান হতেই হবে? আমার কেন মানবতাবাদী হতেই হবে? আমার কেন মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন হতেই হবে ? ব্যাপারটার বিস্তারিত আলোচনার পূর্বে তাই কিছু সংশ্লিষ্ট আলোচনার...

viagra in india medical stores

দৃষ্টিসীমার শৃঙ্খল ভঙ্গকারী দার্শনিক ও চিত্রকর ‘সালভাদর ডালি’

সালভাদর দালি (মে ১১, ১৯০৪ – জানুয়ারি ২৩, ১৯৮৯) কিছু মানুষের সৃষ্টিকর্ম তাদেরকে ঈশ্বরের কাছাকাছি একটি অবস্থান দিয়ে দেয়। অধিবাস্তববাদী শিল্পকর্ম দিয়ে সেরকমই একটি স্থানে পৌঁছানো চিত্রশিল্পী সালভাদর ডালি। তাঁর একক অধিবাস্তব শিল্পকৌশল এবং অনবদ্য কল্পনাশক্তি দিয়ে প্রকৃতির সবকিছুর মাঝে মানবসত্ত্বাকে ফুটিয়ে তোলার জন্য তাঁর শিল্পকর্মগুলো অন্য সবার থেকে ভিন্ন। অদ্ভুত ঢঙ্গের এই কাজগুলোই তাঁকে খ্যাতির শীর্ষে নিয়ে গেছে। সালভাদর দালির পুরো নাম ‘Salvador Felipe Jacinto Dalí Domènech’।  জন্ম স্পেনের কাতালান শহরের ফিকুইরেসে ১১ই মে, ১৯০৪ সালে। নোটারী বাবার পরিবারের তিন সন্তানের মধ্যে দালি ছিলেন দ্বিতীয়। বাবার পৃষ্ঠপোষকতায় তাঁর শিল্পচর্চা শুরু।  বড় ভাইয়ের মৃত্যুর পর দালির জন্ম হয় এবং বড়...

para que sirve el amoxil pediatrico

ধর্মহীনের ধর্ম?

আপনি কি লোকজনের সাথে দেখা হলে সালাম দেন? আপনি নাস্তিক তাহলে আপনি কোন রীতিতে বিয়ে করেছেন? আপনি কি ঈদ বা পুজা এই ধরনের উৎসবে যোগ দেন? সর্বশেষ মরার পর আপনার অবস্থা কি হবে? কবর দিবে  না পুড়িয়ে ফেলবে?… না, এসব কোন উগ্র আস্তিকের ঠেস মারা প্রশ্ন  নয়। একদম নবীন যারা, মুক্তচিন্তার সঙ্গে যারা সবে পরিচিত হচ্ছে, একটু একটু করে আঁধার কাটছে যাদের তাদের কৌতূহলী প্রশ্ন এগুলো। আমাকে ইনবক্সে রোজ এরকম অনেক প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়। কখনো উত্তর দেই। কখনো হয়ত বিরক্ত হয়ে উত্তর দেই না। রেগেও গেছি অনেক সময়। তারা আসলে জানতে চায় নাস্তিক হয়ে যাবার পর সামাজিক এই প্রথাগুলোকে...

ইসলামের পবিত্র বাণী ভার্সাস উল্কাপতন, বজ্রপাত ইত্যাদি প্রসঙ্গ

কোরান : বজ্রপাত-উল্কাপতন সম্পর্কে কি বলে ? নিশ্চয় আমি পৃথিবীর আসমানকে সুসজ্জিত করেছি নক্ষত্রমালার সুষমা দিয়ে এবং সংরক্ষিত করেছি প্রত্যেক অবাধ্য শয়তান থেকে। ফলে শয়তানের দল উর্ধ্বজগতের কোন কিছু শুনতে পারে না এবং তাদের প্রতি সব দিক থেকে উল্কা নিক্ষেপ করা হয় কিন্তু কোন শয়তান হঠাত্‍ কিছু শুনে ফেললে, এক জ্বলন্ত উল্কাপিণ্ড তার পদানুসরণ করে (কোরান ৩৭:৬,৭,৮,১০); বজ্রপাত ঘটার উদ্দেশ্য মানুষকে ভয় দেখানো বা কাউকে আঘাত করা (কোরান ১৩:১২-১৩); আমি সর্বনিম্ন আকাশকে প্রদীপমালা দ্বারা সাজিয়েছি; সেগুলোকে শয়তানদের জন্য ক্ষেপণাস্ত্র করেছি এবং প্রস্তুত করে রেখেছি তাদের জন্য জ্বলন্ত অগ্নির শাস্তি (কোরান ৬৭:৫); তুমি কি জানো সহসা আঘাতকারী বস্তুটি কি? এটা একটা... acne doxycycline dosage

গেরিলা যোদ্ধা; ও আমাদের মুক্তিযুদ্ধে গেরিলা যোদ্ধাদের অবদান……..

“দিন তোমাদের, রাত আমাদের/ রৌদ্র তোমাদের, বৃষ্টি আমাদের/ শহর তোমাদের,গ্রাম আমাদের”। গেরিলাদের কার্যপরিধি ঠিক এভাবেই ব্যাখ্যা করেছিলেন ইতিহাসের বিখ্যাত গেরিলা নেতা মাও সে তুং। গেরিলা একটি স্প্যানিশ শব্দ।যার অর্থ হল খুদে যোদ্ধা।গেরিলা শব্দটি মূলত দলছুট বা একক যোদ্ধার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হলেও কখনো কখনো গেরিলারা ছোট ছোট দল গড়ে তোলে।আবার কখনো কখনো গেরিলারা বিভিন্ন দল-উপদলে বিভক্ত হয়েও শত্রুপক্ষের প্রশিক্ষিত বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। গেরিলারা হল সেসব বেসামরিক যোদ্ধা যারা ভূমি ও ভৌগলিক সুবিধা ব্যবহার করে প্রতিপক্ষের উপর প্রভাব বিস্তার করে।এদের যুদ্ধ পদ্ধতি হয় অনেকটা ”হিট এন্ড রান” পদ্ধতিতে।গেরিলারা মূলত বিচ্ছিন্ন ভাবে শত্রুপক্ষের উপর আক্রমন পরিচালনা করে, এবং সহজেই শত্রুপক্ষকে বিপর্যস্ত করে...

মেল-ফিমেল জোড়া [Pair] আর যৌনতা ছাড়া শিশু জন্ম : ধর্মীয় বিশ্বাসের প্রতি মারাত্মক চ্যালেঞ্জ

প্রচলতি সকল ধর্মগুলোই দৃঢ়তার সাথে বলে যে, জোড়ায় জোড়ায় সৃষ্টি ও যৌনতা ছাড়া প্রাণির নতুন জন্ম অসম্ভব (কেবল ধর্মীয়ভাবে সম্ভব যেমন যিশু!) কিন্তু বিজ্ঞান যতই এগুচ্ছে, ততই তারা সপ্তপদি প্রাণির সন্ধান পাচ্ছে, যারা সন্তান উৎপাদনে পুরুষের সহযোগিতা নেয়না কিংবা নিজেরা সেক্স পরিবর্তন করে, যার কয়েকটি উদাহরণ নিম্নরূপ। ক্লোনিং এর মাধ্যমে নতুন শিশুর জন্ম কথা আমরা সবাই কমবেশি জানি, যেখাবে মা-বাবা দরকার নেই। তা ছাড়া একই ধরণের ‘প্রাকৃতিক ক্লোনিং’ এর মাধ্যমে অনেক প্রাণির দেহের অভ্যন্তরে নিষেক ঘটতে পারে। কোন রকম শুক্রানুর সংযোগ ছাড়াই দেহের “ডিপ্লয়েড ডিম্বানুর নিষেক” ঘটাতে পারে অনেক প্রাণিই। জীববিজ্ঞানে এর নাম ‘পার্থেনোজেনেসিস’ (Parthenogenesis)। কাজেই পার্থেনোজেনেসিস নামধারি ‘কামহীন প্রাণিরা”...

levitra 20mg nebenwirkungen

তোমার জন্য পাপ করবো

ভাবছি, সজ্ঞানে তোমার সাথে আমি একটা পাপ করবো। জানতে চাও কেনো? তাহলে আমাকে আর স্বর্গে যেতে হবে না; স্বর্গে গেলেই তো পড়বো হুরপরীদের খপ্পরে। তুমিতো জানোই আমি মানুষ, ওদের ঐ ভীষণ রূপ আমাকে ভাসিয়ে নিয়ে যাবে তোমার থেকে দূরে, অনেক দূরে। তারচেয়ে বরং নরকের আগুনে অনন্তকাল জ্বলতে জ্বলতে তোমাকে যদি মিস করি, তোমার কাছে কি সেটাই বেশি রোমান্টিক নয়? তাই ভাবছি এবার সত্যি সত্যি তোমার সাথে একটা পাপ করবো!

মানুষ চেনা সম্ভব? মোটেও না!

বড়ই বিচিত্র এই পৃথিবী ।তার চেয়েও বড় বিচিত্র এই পৃথিবীতে বসবাসকারী মানুষ ।এক কথায় পৃথিবীতে বিধাতার অমোঘ সৃষ্টি; হাজার প্রজাতির আজব প্রাণীর মধ্যে সবচাইতে আজব প্রাণীটির নাম হচ্ছে মানুষ। প্রাণীকুলের মধ্যে মানুষই খুব অল্প সময়ের মধ্যে তার রূপ বদলাতে পারে। রেকর্ড সময়ের মধ্যে বদলে যায় মানুষ। একটু আগেও যে ছিল হাবাগোবা ধরনের, মুহুর্তে সে হয়ে যায় ধূর্ত প্রকৃতির। মিষ্টি হাসির মানুষটির চেহারায় ফুটে ওঠে হিংস্রতা। আর এ জন্যই প্রাণীদের মধ্যে শুধু মানুষকেই বারবার আয়না দেখতে হয়! অন্য প্রাণীরা কিন্তু আয়নায় নিজের চেহারা দেখে না। প্রতিনিয়ত রূপ বদলায় বলেই মানুষের আয়না দেখতে হয় চেহারা মনে রাখার জন্য। অন্যতায় হয়তো সে নিজেকেই... wirkung viagra oder cialis

প্রসঙ্গ নারী : ধর্মীয় আর সামাজিক বর্বর আইন নারী খৎনা Female Circumcision

নারী খৎনা যা নারী লিঙ্গাগ্রচ্ছেদ, নারী যৌনাঙ্গ বিকৃতকরণ এবং নারী যৌনাঙ্গ ছাঁটাই নামেও পরিচিত; বলতে বোঝানো হয় সে সকল কার্যপ্রণালী যেগুলোতে স্ত্রী যৌনাঙ্গের আংশিক বা পুরোপুরি অপসারণ করা অথবা সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় বা অন্য কোনো চিকিৎসা বহির্ভূত কারণে নারীর যৌন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের ক্ষতি করা হয় বা ক্ষত সৃষ্টি করা হয়। এটি সেই ধরণের কার্যপ্রণালীগুলোর সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ নয়, যেগুলো আন্তলৈঙ্গিকদের জন্যে লিঙ্গ প্রতিস্থাপন সার্জারি বা যৌনাঙ্গ পরিবর্তনে ব্যবহৃত হয়। এর চর্চা সারা পৃথিবীতেই আছে, কিন্তু প্রধানত আফ্রিকা ও ইন্দোনেশিয়াতেই এর চর্চা বেশি দেখা যায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) প্রক্রিয়াটিকে চার ভাগে ভাগ করেছে: টাইপ ১, ২, ৩ এবং ৪। তিন নম্বর কার্যপ্রণালীটিকে ঘিরে...

acquistare viagra in internet
accutane prices
will metformin help me lose weight fast