Category: সভ্যতা

সাত টাকা মিনিট

মাঝে মাঝে মোবাইল স্ক্রীনের নেটওয়ার্ক এর খুটিগুলোর দিকে তাকিয়ে থাকতাম। এই বুঝি সবকটা খুটি দেখতে পাই। কিন্তু কালে ভদ্রে পাচ খুটির দেখা মিলত। এরিকসনের মোবাইল সেট। সীম (সবজি নহে) তখনো বাজারে আসতে কয়েকমাস বাকী। বাড়ীর বাইরে গেলে খুটি বেশি দেখা যায়। মনে আশা, যদি কথা হয় তো তার রেশটুকু কানে বাজতে থাকবে। তখন অবশ্য এক খুটি থাকলেও কথা চালানো যেত। এখনকার মতো হঠাত ‘ধপ করে অফ’ হত না। তবে মাঝে মাঝে শুনতে পেতাম, ‘পড়াশুনা…করলে, কথা বলিও …।’ (পড়াশুনা না করলে, কথা বলিও না।) না হারিয়ে গেছিলো, সমস্যা হয়নাই বুঝতে। অর্থ তো একই ছিল। এখনকার কথাগুলো বরং দুর্বোধ্য হয়ে উঠছে দিনকে...

জননীর শেষ চিঠি

চিকিৎসার জন্য শেষবার ঢাকা ছাড়বার আগে জাহানারা ইমাম বলেছিলেন “ওদের মৃত্যুঘণ্টা বেজে গেছে।এবার ফিরে এলেই দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবো আমরা।দেশ জেগে গেছে,তরুণরা হাল ধরেছে। আমার সন্তানরা এক হয়েছে ‘দানবশক্তি’র বিরুদ্ধে তাই ‘জয় আমাদের সুনিশ্চিত’।”   কিন্তু দেহে বাসা বাঁধা কর্কটব্যাধি তাকে দেশব্যাপী জেগে ওঠা মুক্তিযুদ্ধের চতনাদীপ্ত মানুষদের নিয়ে দেশকে শত্রুমুক্ত করার পবিত্র কাজটি সম্পন্ন করতে দেয়নি।ব্যাধি যতই প্রকটতর হয়েছে, উদ্দেশ্য সাধনে তিনি যেন আরো দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হয়েছেন। মৃত্যুশয্যায়ও তিনি ভুলেননি স্বীয় দায়িত্ব। কম্পিত হস্তে খোলা চিঠি লিখেছেন-   “সহযোদ্ধা দেশবাসীগন, আপনারা গত তিন বছর ধরে একাত্তরের ঘাতক ও যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমসহ স্বাধীনতাবিরোধী সকল অপশক্তির বিরূদ্ধে লড়াই করে আসছেন।এই লড়াইয়ে আপনারা দেশবাসি...

ঝিনি

মোম ও মমির দেশে তার মুখ গলে গলে পড়ে রোদন অর্থে বাজে সকরুণ বিরহ পিয়ানো কতোটা নির্জন স্রোত ভাসিয়ে এনেছে সমারোহে আমি যা জানি বনিতা সমস্ত পৃথিবী জানে না দ্যাখো এই ফুলবন মৌসুম ঢেলে দিলো বুঝি তার পরও স্মৃতিচিহ্ন প্রস্ফুটিত হয়ে আছে ডালে নির্জনতা খুঁজে পেতে তোমার শিয়রে রাখো ঝিনি পাতার নৌকো আজ ভাসিয়েছি কেয়ার কাজলে

আলবদর মুজাহিদের অপরাধনামা

একাত্তরে রাজধানীর ফকিরাপুলের গরম পানির গলিতে ফিরোজ মেম্বারের বাড়িতে রাজাকার ক্যাম্প ছিল। এপ্রিলে শান্তি কমিটি গঠনের পর সেখানে কার্যালয় বসানো ও রাজাকারদের নিয়োগ দেওয়া হয়। মুজাহিদ নিয়মিত সেখানে যাতায়াত করতো এবং সেখান থেকে মানবতাবিরোধী অপরাধ ও গণহত্যা সংঘটন করা হতো।মুজাহিদ ওই রাজাকার ক্যাম্পে গিয়ে মানবতাবিরোধী অপরাধ ও গণহত্যা সংঘটনের নির্দেশ দিতেন এবং সে অনুসারে সারা দেশে আলবদর বাহিনী, রাজাকাররা অপরাধ ঘটাত। ২২ সেপ্টেম্বর কুমিল্লা টাউন হলের এক সমাবেশে তিনি বলেন, ছাত্রসংঘের একজন কর্মী জীবিত থাকতেও পাকিস্তানকে ভাঙতে দেওয়া হবে না।দরকার হলে তাঁরা সীমান্তে গিয়ে অস্ত্র ধারণ করবে।৭ নভেম্বর বিকেলে বায়তুল মোকাররম মসজিদ প্রাঙ্গণে ছাত্রসংঘের গণজমায়েতে মুজাহিদ বলেন, আর কোনো হিন্দু...

viagra vs viagra plus

জামাত গো হোম

অনেক প্রতিবাধের পড়ে জামাতের নিবন্ধন বাতিল হলো শেষমেশ জামাতের নিবন্ধন বাতিল হলো।৭১ এ খুনের রক্ত নিয়ে এদেশে   দাপিয়ে চলা আর গাড়িতে এদেশের পতাকা লাগানোর দিন ফুরালো।   বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন বাতিল- জাতীয় সংসদকে এমন তথ্যই জান‍ালো নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এর মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো দলটির নিবন্ধন বাতিলের বিষয়টি খোলাসা করলো রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন অথরিটি ইসি।সংসদ সচিবালয়কে ইসির জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব মো. আতিয়ার রহমানের পাঠানো এক তথ্য বিবরণী থেকে বিষয়টি জানা গেছে।   ২০১৩ সালে ১ আগস্ট রাজনৈতিক দল হিসেবে জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। তবে দলটির নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে কিনা তা নিয়ে গত রোববার পর্যন্তও কোনো... will metformin help me lose weight fast

tome cytotec y solo sangro cuando orino

ওল্ডহোম

ওল্ডহোম কিংবা বৃদ্ধাশ্রম শহরের বাইরে সত্যি বলতে সমাজের বাইরে থাকা এই ওল্ড হোমের লাল টালির ছাতে রোজ বিকেলে সূর্যের আলো ঝিকমিক করে ঠিকই, কিন্তু তারপরই নেমে আসে গাঢ় অন্ধকার।প্রকৃতির সেই অন্ধকার আর আর একা থাকার আঁধার মিলে মিশে পথ চলার অপেক্ষা করতে হয়,জীবনের খাতায় জমা থাকা সামনের দিনগুলোর।কিভাবে  সমাজের বুকে এলো এই ওল্ডহোম প্রথমে সেই গল্পটা বলা যাক।   জাপানের অর্থনীতি তখন আজকের মত ছিলো না।প্রাচীন জাপানের দরিদ্র মানুষের পক্ষে  তাদের মা-বাবা কে লালন পালন করার মত  সামর্থ্য তাদের ছিলো না। তাইবাবা-মা বৃদ্ধ হবার  এক পর্যায়ে তারা পিঠে করে বাবা মাকে এক পর্যায়ে তারা পিঠে করে বাবা মাকে পাহাড়ের খাদে ফেলে... half a viagra didnt work

সবাই পরস্পর ভাই ভাই

সূরা হুজুরাত -১০, ﺇﻧﻤﺎ ﺍﻟﻤﺆﻣﻨﻮﻥ ﺇﺧﻮﺓ ﻓﺄﺻﻠﺤﻮﺍ ﺑﻴﻦ ﺃﺧﻮﻳﻜﻢ ﻭﺍﺗﻘﻮﺍ ﺍﻟﻠﻪ ﻟﻌﻠﻜﻢ ﺗﺮﺣﻤﻮﻥ অর্থ : মুসলমান/ মুমিনগণ পরস্পর ভাই ভাই। সুতরাং তোমরা ভাইদের মধ্যে শান্তি স্থাপন কর,আর আল্লাহকে ভয় কর, যাতে তোমাদের প্রতি দয়া করা হয়। ….আমার মনে হয়, এই তরজমাতে কোন গড়মিল আছে! কেননা,”হুজুর পাক হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) “ওনার অনুসারী মুসলিমদের উদ্দেশ্য করে একটি বানীতে বলেছেন, “হে মুসলিম, মানুষ কে ভালবাস, তোমার দ্বারা অন্য কেউ যেন কষ্ট না পায় এবং মানুষের উপকার করো, কারো অনিষ্ট /ক্ষতি করোনা”। সুতরাং, এমন কেন নয়, “সমস্ত মানুষ পরস্পর ভাই ভাই”!! শুধু মুসলমান মুসলমান ভাই ভাই নয়, বরং মানুষ মানুষ ভাই ভাই, এটাই আমার... acquistare viagra in internet

buy kamagra oral jelly paypal uk

শুভ্র গোফের সরল মানুষ

২০০১ সাল আমি তখন ৫ম শ্রেণীর ছাত্র, ঢাকা বইমেলা থেকে মামা মামি একটা বই পাঠালেন নাম “রাজু ও আগুনালির ভুত” শুভ্র গোফের হাস্যোজ্জ্বল সরল মানুষটির সাথে পরিচয় সেই থেকেই।যদিও তার লেখার প্রতি ভালো লাগা শুরু বিখ্যাত শিশু চলচিত্র “দিপু নাম্বার টু” এর মাধ্যমে কিন্তু তখন জানতাম না কে এই কাহিনীর স্রস্টা।যাই হোক তখনও আমার উপন্যাস পরা শুরু হয় নি বুঝতাম শুধু উপন্যাস মানেই বিশাল সব কঠিন কঠিন ঘটনা।যদিও মুক্তিযুদ্ধের ঘটনা বা ইতিহাস বড় হলেও ভালো লাগত আর একেবারেই ঠাকুরমারঝুলি টাইপের ছোট গল্প পরতাম।বইটা পেয়ে রেখেদিলাম,এত বড় বই কিভাবে পরব সেই চিন্তা করতেছিলাম।সম্ভবত কয়েক সপ্তাহ পরে বইটা পড়া শুরু করি, প্রথম...

metformin synthesis wikipedia

পৃথিবীর মায়া

আজব পৃথিবী, যেন বহুরূপী ধরণী । দেখা দেয় অনেক রূপের, যেগুলোর কোন সমষ্টি নেই । নেই কোন সমষ্টিগত সৌন্দর্য । ক্ষণে ক্ষণে রূপ বদলায় । কখনও প্রচণ্ড উদার, কখনও যমরূপ নিষ্ঠুর । কোনটিই মিথ্যা নয় আবার নয় সবগুলো সত্যি । কবি সুকান্তের সাথে বলতে ইচ্ছা করে … হে পৃথিবী, আজিকে বিদায় এ দুর্ভাগা চায়,যদি কভু শুধু ভুল ক’রেমনে রাখো মোরে,বিলুপ্ত সার্থক মনে হবেদুর্ভাগার!        বিস্মৃত শৈশবেযে আঁদার ছিল চারিভিতেতারে কি নিভৃতেআবার আপন ক’রে পাব,ব্যর্থতার চিহ্ন এঁকে যাব,স্মৃতির মর্মরে?

ধর্ষণ চেষ্টা ও শিক্ষা !

মোহাম্মদপুর প্রিপারেটরি । স্কুলটিতে ৬ বছর পড়েছিলাম । সেই স্কুল, আজ আলোচনার অন্যতম বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে বিষয়টা ভালো না। বিষয়টা হলও ধর্ষণ। পহেলা বৈশাখ এর ঘটনার বিচার এখনো হয় নাই । তদন্তের নামে চলছে ছেলেখেলা। আর এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই আর একটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটে গেল। তাও যেনতেন জায়গাই না । ঘটেছে। মেয়েদের স্কুলে। মূল ঘটনা এখনো পরিষ্কার না। তবে, স্কুল এর ছাত্র , অভিভাবকদের থেকে জানতে পারা ঘটনার আলোকে আপনাদের সাথে শেয়ার করছি । গত ৫ই মে,  মঙ্গলবার ৪ নং গেটের কাছে থেকে, স্কুলের এক সুইপারের সহায়তায়, স্কুল এর  একজন শ্রমিক ,ক্লাস ১ এর এক মেয়ের...

লাবিব #১

১. লাবিবকে আমি চিনি ক্লাস ফোর থেকে৷ হুট করেই কোথা থেকে যেন উড়ে এসেছিলো৷ গাট্টাগোট্টা শরীর, গোলগাল একটা মুখ৷ চেহারাটা খুব সাধারন কিন্তু চোখদুটো একেবারে পাথরের মত৷ হাসির কোন চিহ্ন নেই মুখে৷ পিঠে ঝোলানো একটা অনেকদিনের পুরোনো মলিন কিন্তু অক্ষত ব্যাগ৷ ওকে ভর্তি করাতে এসেছিলো ওর কোন এক কাকা৷ যাকে এরপর আর কোনদিন দেখিনি৷ কাকাটা সারাক্ষনই স্যারের সামনে বসে হাসছিলো ফ্যাকফ্যাক করে৷ কিন্তু লাবিব হাসছিলো না৷ চোখমুখ শক্ত করে পাশের চেয়ারটায় বসে ছিল শুধু৷ আমার মনে আছে৷ কেন মনে আছে জানিনা কিন্তু লাবিবের প্রথম দিনগুলোর কথা আমার বেশ ভালভাবে মনে আছে৷ আমাদের স্কুলটার নাম ছিল বুড়িচং আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়৷...

হাসি

মেয়েটা সিপির সামনে দাঁড়িয়ে আছে। সিপি মানে ফ্রাইড চিকেনের দোকান । আট কি নয় বছর বয়স হবে । গায়ে আধ ময়লা ফ্রক। ফ্রকের কাপড়ে ছোট ছোট অক্ষরে কিছু একটা লেখা। রঙ জ্বলে যাওয়ায় এখন আর পড়া যায় না। মাথার চুল গুলোও নোংরা, উড়ে আসা মরা ঘাসের টুকরো লেগে আছে। রঙচটা ফ্রকের সাথে রঙচটা চুল, মানিয়ে গিয়েছে চমৎকার । সাথে গলায় রঙচটা পুতির মালা। সুন্দর, অদ্ভুত সুন্দর। মেয়েটার হাতে অনেক গুলো খুচরো টাকা। দুই টাকা পাচ টাকা দশ টাকার নোট। শক্ত করে মুঠো করে ধরা। মুঠো ভরা বাংলাদেশ সরকারের ‘চাহিবা মাত্র দিতে বাধ্য থাকিবে’ ছাপ মারা নোট নিয়ে হাসি হাসি মুখ...

দিয়া(৪)

#দিয়া ৪ আমি বললাম, দিয়া? -উমম দিয়ার উত্তর শুনে আমি বিরক্ত চোখে তাকাই। বিরক্ত চোখে তাকাই,কিন্তু বিরক্তি ধরে রাখতে পারি না। দিয়া নামক মেয়েটার প্রতি বিরক্তি ধরে রাখা আমার মত অধমের পক্ষে সম্ভব না। -তুমি এভাবে উত্তর দাও কেন? বাপ মা আর কোনো শব্দ শেখায় নাই? -উমম -থাপ্পড় মারব একটা বুঝলা এবার দিয়া মুখটা বাড়িয়ে দিল, কানের কাছে ফিস ফিস করে উমম শব্দ করছে। ভয়ে গলা শুকিয়ে গেল আমার। এখন যদি বলে দাও একটা থাপ্পড়, কত দিন থাপ্পড় খাই না! তখন আমি কি করব? দিয়া থাপ্পড় দিতে বলল না, কানের কাছে অদ্ভুতস্বরে উমম উমম শব্দ করে যাচ্ছে। -ফুসকা খাবা? দিয়া...

side effects of quitting prednisone cold turkey

‪মা দিবস ও মায়ের প্রতি আমাদের ভালোবাসার নমুনা‬

আজ মা দিবস। ফেবুতে ঢুকেই দেখি ‘মা’ কে নিয়ে লেখা হাজার হাজার কবিতা, মা নিয়ে নানান স্ট্যাটাস, অনেকে আবার প্রোফাইল পিক বদলে মা এর সাথে ছবি দিয়ে দিয়েছে। কেউ কিন্তু বাপের টাইটেল বদলে মায়ের টাইটেল নিজের নামের পিছনে লাগায় নি। মায়ের টাইটেলই বা বলি কি করে সেই টাইটেল ও তো মা তার বাবার কাছ থেকে পেয়েছে। ‘‘জন্ম দিলাম,স্তন্য দিলাম, তবুও সোনা আমার নয়; এ কেমন আইন দেশের,এ আইন তো মানার নয়।।’’ এই নিয়মই চলে আসছে অনেক বছর ধরে, আমরা মেনে নিচ্ছি বলেই এই নিয়ম অক্ষত আছে এখনো। সব শিল্পীরাই নিজেদের তৈরী শিল্পের নাম নিজেরা দেয়, বিজ্ঞানিরা নিজেদের উদ্ভাবিত সুত্র বা...

accutane prices

ঘিঘিয়াকথন

তাঁর নাম ঘিঘিয়া। অ্যালসিডেস ঘিঘিয়া। বাস্কেটবল ছেড়ে যখন তিনি ফুটবলেই ক্যারিয়ার গড়ার সিদ্ধান্ত নিলেন তখন তিনি বড় সমস্যায় পড়ে গেলেন। উরুগুয়ের ন্যাশিওনাল এবং পেনারোল ক্লাবের মধ্যে বৈরীতা ‘উরুগুইয়ান ক্লাসিকো’ নামে পরিচিত। তাঁর পরিবার ছিল পেনারোল ফুটবল ক্লাবের ডাইহার্ড ফ্যানের চাইতেও বেশি কিছু। তাই তিনি যখন জানালেন তিনি ন্যাশিওনাল ফুটবল ক্লাবের হয়ে খেলবেন তাঁকে তাঁর মা জানিয়ে দিলেন, ন্যাশিওনালের হয়ে খেললে তিনি যেন আর বাসামুখো না হন। অগত্যা বাধ্য হয়ে পেনারোল ক্লাবের হয়ে ট্রায়াল দিলেন তিনি। টিকেও গেলেন। পেনারোলের হয়ে ১৯৪৯ আর ১৯৫১ সালে জিতলেন লিগ শিরোপা। খেলেছেন রোমা এবং এসি মিলানের মতো দলের হয়ে। ইউরোপে তিনি ছিলেন পাপারাজ্জিদের প্রিয় সাবজেক্ট।...

সাকিব আল হাসান : ৪ – ১ – ৬ – ৬

৩ই আগষ্ট ২০১৩ সাল কেনিংসটন ওভালে চলছে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ ত্রিনিদাদ টোব্যাগো রেড ষ্টিলস বনাম বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টস বার্বাডোজের হয়ে খেলছেন //বাংলাদেশের জান বাংলাদেশের প্রান সাকিব আল হাসান সাকিব আল হাসান// টসে জিতে ব্যাটিং এ রেড ষ্টিলস,স্কোর তখন ৫ ওভারে ২৯ রান ৩ উইকেট।ক্রিজে আছেন কিউই ক্রিকেটার রস টেইলর আর ক্যারিবিয়ান ডোয়াইন ব্রাভো।বোলিং এ এলেন সাকিব আল হাসান – ওভারের প্রথম বল,করলেন সাধারণ কিন্ত চমত্কার এক আর্ম বল ! আর তাতেই রস টেইলরের ব্যাটের বাঁধা কাটিয়ে বল আঘাত করলো তার পায়ে ! সাথে সাথেই সাকিবের হাটু গেড়ে লেগ বিফোর উইকেটের জোরালো আবেদন ! আম্পায়ার ও আঙুল তুলে দিলেন ! আউট...

মায়া/মুগ্ধতা

ইদানিং মুগ্ধতা রোগে ধরেছে। সব কিছুতেই মুগ্ধ হই। রিক্সাওয়ালা বিড়ি টানছে। রিক্সার হ্যান্ডেলের রাখা বাম হাতের দুই আঙুলের মাঝে সিগারেট ধরা, কি স্টাইল। কিছুক্ষন প্যাডেল মারে, রিক্সা চলে, লম্বা এক টান। আবার প্যাডেল, তার পর আয়েশ করে আরেক টান। প্রতি টানে সুখ উড়ে যাচ্ছে। সুখের আবেশে রিক্সাওয়ালা ভাইয়ের চোখ বুঝে আসছে। বিড়ি টানার স্টাইল দেখে আমি মুগ্ধ। চোখে মুখে নিখাদ মুগ্ধতা নিয়ে আমি বিড়ি টানা দেখছি। ইচ্ছে করছে বলি, “ভাই আমাকে এক টান দেয়া যায় না?” বললে এক টান না পুরো সিগারেটাই গছিয়ে দিবে, আমি জানি। মুগ্ধতার ধাক্কায় সিগারেট খেতে ইচ্ছে করছে। পায়ের উপর পা তুলে একটা সিগারেট ধরাবো, চোখ...

দিয়া (৩)

“দিয়া, আমার দিয়া” শব্দ দুটো মাথার ভেতর ভন ভন করে ঘুরছে। ডান থেকে বায়ে, বা থেকে ডানে ঘুরে। ঘুরা থামানো উচিত। থামাতে ইচ্ছে করছে না। শব্দটা মাথার খুলির গায়ে বাড়ি খেয়ে টুংটাং শব্দ তুলছে। কেপে উঠছে বুকের বাম পাশটা। কাপা উচিত নয়। হৃদয়ঘটিত বিষয়কে বেশি লায় দিতে নেই। লায় দিলে বানরের মত ঘাড়ে উঠে যাবে। বুকে থাকা ভাল,ঘাড়ে উঠা বিপদজনক। বিড়বিড় করে বললাম, “থেমে যাও দিয়া” লক্ষ্মী মেয়ে, দিয়া থেমে গেল। দিয়াকে ঠান্ডা করে সামনে বসা রাফি সাহেবের দিকে তাকালাম আমি। সত্যিটা হল আমি তার সামনে বসে আছি। জড়সর হয়ে বসে আছি। রাফি সাহেব দিকে কটমট করে তাকিয়ে আছেন আমার...

জননীর জীবনের গল্পটা

এ এমন জননীর গল্প যিনি খলীল জিবরানের প্রফেট থেকে লাইন আউড়ে মনকে শক্ত করেছেন,পুরো পরিবার যেন নীলকণ্ঠ।পুরাণে এক দেবতা বিষ নিজের গলায় ধারণ করে বাঁচিয়েছিল বিশ্ব,নিজে হয়েছিল নীলকণ্ঠ।এই পরিবার ,এই গল্প,এই পিতা পুত্র জননীরাও যেন তাই।আমরা দুর্ভাগ্যবান তাদের নষ্ট বীজ আজো বিষবৃক্ষ ছড়িয়ে দিচ্ছে শ্যামল বাঙলায়,যার জন্য গল্পের জননীকে,আমাদের জননীকে পেতে হয় রাষ্ট্রদ্রোহীর অভিধান। এরচেয়ে বড় জঘণ্য অনাচার পৃথিবীতে আর কি হতে পারে? চল্লিশের দশকে পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার সুন্দরপুর গ্রামে একটি রক্ষণশীল বাঙালি মুসলমান পরিবারে সৈয়দা হামিদা বেগম আর তার ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট স্বামী সৈয়দ আবদুল আলীর ঘর আলো করে ১৯২৯ সালের ৩ মে জন্ম নিলো এক ফুটফুটে কন্যা সন্তান।মেয়ের ডাক...

যে শ্রমিকদের রক্তে শ্রমিকদের ঘামে ভেজা একটি দিবস হলো

সভ্যতার প্রতিটি ইট,বালু,পাথরে যাদের ফোটা ফোটা ঘাম জড়িয়ে আছে তারা কিন্তু কখনোই সভ্যতার আশীর্বাদধন্য শ্রেনী ছিলনা,এখনো নয় বলছিলাম অধিকার বঞ্চিত শ্রমিকদের কথা। ‘তারাই মানুষ,তারাই দেবতা,গাহি তাহাদেরি গান, তাদেরি ব্যথিত বক্ষে পা ফেলে আসে নব উত্থান’! বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘কুলিমজুর’ কবিতার এই অসামান্য লাইন দুটো জানান দেয় শ্রমিকের সম্মান,প্রকৃত মর্যাদা।১লা মে দিনটি পৃথিবীর অনেক দেশে আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস হিসেবে পালিত হয় যা মে দিবস নামেও পরিচিত কিন্তু এর পিছনে জড়িয়ে আছে দীর্ঘ দিনের ইতিহাস। . . . ঊনিশ শতকের গোড়ার দিককার কথা।শ্রমিকরা তখনো শোষিত,সপ্তাহে ৬ দিনের প্রতিদিনই গড়ে প্রায় ১০ থেকে ১২ ঘন্টার অমানবিক পরিশ্রম করতো কিন্তু তার বিপরীতে...

can you tan after accutane