Author: অনুস্বার

tome cytotec y solo sangro cuando orino

ক্ষমা করো তারেক মাসুদ, ক্ষমা করো…

সেদিন সকালে প্রচণ্ড বৃষ্টি হয়েছিল। থেমে থেমে বৃষ্টি পড়ছিল তখনও। মানিকগঞ্জ থেকে ঢাকা ফিরছিল একটা মাইক্রোবাস। বৃষ্টিতে রাস্তা পিচ্ছিল ছিল বলে মাইক্রোবাসে বসে থাকা সৌম্য দর্শন ভদ্রলোক ড্রাইভারকে বারবার সাবধান করে দিচ্ছিলেন গাড়ি আস্তে চালাবার জন্য, সাবধানে চালাবার জন্য। ড্রাইভার গাড়ি সাবধানেই চালাচ্ছিল, কেননা তার স্যারকে সে চেনে। মানুষটা খুব সচেতন একটা মানুষ, সমাজ-সংসার-জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে মানুষটা সবসময় সেই সচেতনতার পরিচয় রেখে গেছে।জীবনের বেশিরভাগ সময় এই মানুষটার কেটেছে আলো হাতে নিকষ অন্ধকার দূর করতে গিয়ে, অজ্ঞানতার আঁধার দূর করতে গিয়ে… তার স্যার একজন সতিকারের সচেতন মানুষ ছিলেন… কিন্তু ঢাকা থেকে পাটুরিয়াগামী সেই বাসের চালক সচেতন ছিলেন না। বৃষ্টির দিনে ভেজা...

nolvadex and clomid prices

শকুনের থুথু আর হায়েনার হাসি- কিছু অপ্রয়োজনীয় কথা…

বিমানটায় যখন ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানল, ২৯৮ যাত্রীর কেউই টেরোরিস্ট কিংবা বিদ্রোহী ছিলেন না। তাদের অপরাধ ছিল তারা ৩য় বিশ্বযুদ্ধের উৎপত্তিস্থল ইউক্রেন সীমান্ত অতিক্রম করছেন… -_- মৃতদেহগুলো ক্ষেপনাস্ত্রের আঘাতে ছিন্ন-ভিন্ন হয়ে গেছে, দেশের খন্ডাবশেষ ছড়িয়ে পড়েছে বেশ কয়েক মাইল এলাকা জুড়ে। পচন ধরেছে বিস্তীর্ণ গম আর সূর্যমুখী খেতের মাঝে এখানে সেখানে ছড়িয়ে থাকা খণ্ডিত মানুষগুলোর গায়ে। মৃত্যু মানুষকে সব দায় আর অভিযোগের উর্ধে নিয়ে যায়, নাহলে আমাদের অবস্থা বড়ই সঙ্গিন হত। প্রচণ্ড অভিমানে এই খণ্ড-বিখণ্ড মানুষগুলো বিবেকের কাঠগড়ায় তুলে আমাদের প্রশ্ন করত, কি অপরাধ ছিল আমাদের, কেন মৃত্যুর পর ছিন্নভিন্ন হয়ে পড়ে পড়ে আছি বিদেশ বিভূঁইয়ে… পচে গলে মিশে যাচ্ছি নীরবে,...

cialis new c 100
doctus viagra
side effects of quitting prednisone cold turkey
achat viagra cialis france