Author: ফরহাদ আহমদ নিলয়

metformin synthesis wikipedia

The Tree Of Life – একটি পরিবারের গল্প, একটি জীবন দর্শনের গল্প।

Tree of Life, একটি গাছের নাম। এর বৈজ্ঞানিক নাম Guaiacum officinale। লম্বায় ১০ মিটার পর্যন্ত হয় গাছটি। বেঁচে থাকে দীর্ঘদিন পর্যন্ত। এলোমেলো ভাবে ডালপালা ছড়ায় না, ঝড়-ঝাপটায় সহজ়ে নুয়ে পড়ে না। মাটি কামড়ে ঠাঁই দাঁড়িয়ে থাকে। যেন কখনো মাথা নোয়ানোর ব্রত নিয়েছে। এই গাছের নামেই মুভিটির নাম। নাম থেকেই বোঝা যায় মুভিটি কেমন হতে পারে ! টেক্সাসের একটি সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবারের কাহিনি। সময়কাল ১৯৫০। পরিবারের কর্তা Mr. O’Brien (ব্রাড পিট) কিছুটা রক্ষণশীল ঘরানার। নিজে যেমন কঠোর নিয়ম-কানুন মেনে চলেন ঠিক তেমনি পরিবারের বাকি সদস্যদেরও মানতে বাধ্য করেন। তার বড় ছেলে জ্যাক, ছোটবেলা থেকেই যার সাথে তার একটা দূরত্ব বজায় আছে।...

চিরকুট – ৪র্থ সংখ্যার জন্য লেখা আহ্বান করা হচ্ছে…

চিরকুট – একটি পূর্ণাঙ্গ অনলাইন ম্যাগাজিন। গল্প, কবিতা, উপন্যাস, রম্য, প্যারোডি, সায়েন্স ফিকশন, ভ্রমণ অভিজ্ঞতা, রেসেপি, রিভিউ, লাইফ স্টাইল… এখানে আপনি স্ব কিছুই পাবেন।   চিরকুটের শুরুটা হয়েছিল একদম হঠাৎ করেই। জুন মাসের দিকে মাথায় ভূত চাপল ঈদের আগে পাঠকদের জন্য একটা মযাগাজিন করলে কেমন হয় ? সেঁজ্যুতি পাবলিকেশন্স এর ফেসবুক পেইজে পাঠকদের মতামত জানতে চেয়ে পোশট করলাম। সাথে সাথে ব্যাপক সাড়া পেলাম। বেরিয়ে গেল চিরকুট !   চিরকুট শুরুটা হয়েছিল কোন প্রকার উদ্দেশ্যকে সামনে না রেখে। প্রায় ৩টা সংখ্যা অননেট করার পর আমরা একটা লক্ষ ঠিক করেছি- যত বেশি সম্ভব মানুষের কাছে পৌঁছানো। আমাদের এজন্য সাহায্য করছে আরেকটি বাংলা... walgreens pharmacy technician application online

side effects of quitting prednisone cold turkey

মুক্ত বিহঙ্গ (রোমান্টিক গল্প)

[এক] মোটা একটা বই নিয়ে বসে আছে তানহা । এ মেয়েটা বই ছাড়া আর কিচ্ছু চিনে না । অনেকের ধারণা মরার আগে কেউ যদি ওকে জিজ্ঞাসা করে তোমার শেষ ইচ্ছা কি তাহলে সে বলবে- আমার কবরের মাঝে কিছু বই দিয়ে দাও ! এখানে বেড়াতে এসেও ও বই ছাড়ে নি । পড়তে পড়তে চোখের অবস্থা ১২ টা বাজিয়েছে । বয়স মাত্র ২০ কিন্তু এ বয়সেই ওর চোখে ২.৭৫ বিবর্ধন ক্ষমতার চশমা । আরেকটু বুড়ো হলে না জানি চোখে কি উঠবে ? ওর পাশে বসে কফি খাচ্ছে স্নেহা । তানহার বেস্ট ফ্রেন্ড । কিন্তু তানহার সাথে ওর স্বভাবের একটুও মিল নেই ।...

ভালবাসা- একটি অদ্ভুত অনুভুতির নাম…..

এক. :- রাতুল, একটু বুঝতে চেষ্টা কর… মাত্র তো অল্প কয়েকটা দিনের ব্যাপার । :- হৃদি, তোমার আন্দাজ পর্যন্ত নেই তুমি কি বলছ । :- কি এমন বলেছি ? মালিহার সাথে কিছুদিন প্রেমের অভিনয় করবে… এই তো । :- কিন্তু আমি তোমাকে ভালবাসি । আমি কেন শুধু শুধু মৃত্যু পথযাত্রী ঐ মেয়েটাকে ধোঁকা দেবো ? :- এখানে ধোঁকার কথা আসছে কেন ? মেয়েটার ক্যান্সার, ডাক্তার ওর সময় বেঁধে দিয়েছে । বড়জোর মাস ছয়েক বাঁচবে আর । তাছাড়া তুমি তো জানই, মেয়েটা সেই ফার্স্ট ইয়ার থেকেই তোমাকে মনে মনে ভালবাসে । কখনো প্রকাশ করেনি…এই যাহ ! তোমার কি উচিত না জীবনের...

দ্য থ্রি ম্যাজিক্যাল ওয়ার্ডস

(এক) ‘ট্রান্সমিশন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন অফ এনার্জি’র ক্লাস। পেছনে জানালার পাশে একটা সিটে বসে বসে ঝিমুচ্ছি। জানালা দিয়ে প্রকৃতির বিশুদ্ধ ঠান্ডা বাতাস এসে ঢুকছে। ঝিমুতে খারাপ লাগছে না ! অবশ্য না ঝিমিয়েও কিছু করার নেই। কারেন্ট এক জায়গা থেকে কন্ডাক্টরের মধ্য দিয়ে অন্য জায়গায় কিভাবে যায়- এই সহজ ব্যাপারটা এত কঠিন করে লেখা….. সব মাথার দু’হাত উপর দিয়ে যায়। আরে ভাই, কারেন্টের যেভাবে খুশি, সেভাবে যাক না। যাচ্ছে তো সে, তাকে নিয়া এত ঘাটাঘাটি করার করার কি দরকার ? অবশ্য সবাই যে আমার মতই গাধা- ব্যাপারটা ঠিক এমনও না। এই তো একেবারের সামনের সারিতে ফারজানাকে দেখা যাচ্ছে। স্যারের প্রতিটি কথার সাথেই মাথা ঢুলাচ্ছে আর প্রয়োজনানুসারে নোট করে নিচ্ছে। এই...

একদিন ভালবেসেছিলাম…..

এক. আমি প্রেমিক, বখাটে নই… তোমার চোখে আমি ভালবাসা খুঁজেছি । কিন্তু কি দেখেছি জানো ? করুণা-ধিক্কার-ঘৃণা সবই ছিল সেখানে । শুধু ভালবাসাটার লেশ ছিল না । সেদিন আমি খুব বিষণন ছিলাম । আমার বিষণ্নতা কাটাতেই বোধহয় ঈশ্বর নিজে তোমাকে পাঠিয়েছিলেন । গলির মুখে দাঁড়িয়ে তুমি রিকসা দেখছিলে । নীল কামিজে সেদিন অদ্ভুত সৌন্দর্য ধরা দিয়েছিল । বিশ্বাস করো তুমি….. প্রেমে আমার কোনদিনও বিশ্বাস ছিল না । কিন্তু তোমাকে দেখার পর সেদিন যে কি হল !? এ ঠিক প্রেম নয়, অন্যরকম অনুভূতি । খোঁজ নিয়ে জানলাম এলাকায় নতুন এসেছ । তারপর থেকে গলির মোড়টায় আমাকে প্রায়ই দেখা যেত । জ্বলন্ত...

puedo quedar embarazada despues de un aborto con cytotec

বন্ধু তোকে অনেক বেশি ভালবাসি…..

এক.   একটি বিয়ে বাড়ি অনেক উৎসবের আধার । চারদিকে কত হাসি, কত কোলাহল ! কি ভীষণ ব্যস্ততা সবার মাঝে। একেক জনের লাজ, একেক জনের সাজ, একেক জনের ঢং আর একেক জনের রঙ…. কি অদ্ভুত বৈচিত্রতা !   চশমিস আঁতেল তরু, বইয়ের বাইরেও যে আলাদা একটা দুনিয়া আছে এটা ওর অজানা ছিল । অথচ আজ ও ই নেচে গেয়ে মঞ্চ কাঁপাচ্ছে । ওর এরূপটি কি আমাদের কারো জানা ছিল ? কিংবা ধরা যাক, মোটকু ইমনের কথা । সারাদিন খাওয়া ছাড়া আর কিছু চিনতো না । অথচ কাল থেকে ও নিজের খাওয়া দাওয়া বাদ দিয়ে মেহমানদারীতে লেগে আছে । সবাইকে খাওয়াতে... zoloft birth defects 2013

synthroid drug interactions calcium

প্রতিশোধ

এক.   – বাইরের খাবার খাবি না, জানালা দিয়ে মাথা বের করবি না, আর পৌঁছে মাত্রই আমাকে ফোন দিবি । – মা, তুমি এমনভাবে কথা বলছ যেন আমি এখনো স্কুলেই পড়ি ! আমি বড় হয়েছি না ? – না, মোটেও বড় হস নাই ! মায়ের কাছে সন্তানরা কখনো বড় হয়না । আর কেন এমন করি ? যেদিন মা হবি সেদিন বুঝবি । – আরেহ ! তুমি দেখি সিরিয়াস হয়ে গেলে ! আমি তো দুষ্টামি করে বলেছিলাম । – সাবধানে যাস মা । তুই তো অনেক দিন দেশের বাইরে ছিলি । এখানকার পরিস্থিতির কথা জানিস না । দেশের অবস্থা খুব একটা...

can you tan after accutane
kamagra pastillas
missed several doses of synthroid

অপেক্ষার প্রহর (রোমান্টিক থ্রিলার)

(দৃশ্যপটঃ সূবর্ণার রুম) ফোনটা ভাইব্রেট করেই যাচ্ছে । আননোন নাম্বার । ধরবে না ধরবে না করেও হঠাত্ কি মনে করে ফোনটা ধরে বসল সূবর্ণা । :- হ্যালো, এটা কি সূবর্ণা এক্সেপ্রেস ? একটা এডভান্সড টিকিট কাটা যাবে ? দাঁতে দাঁত চেপে সূবর্ণা বলল- জ্বি হ্যাঁ ! কিন্তু আমাদের এখান থেকে শুধু জাহান্নামের টিকিট দেয়া হয় । কাটবো ? :- ওরে বাবা ! ঐখানে যাওয়ার কোন ইচ্ছাই আমার নাই ! তবে আপনি চাইলে আপনার হৃদয়ের একটা টিকিট কাটতে পারেন ! ঐখানে বসত পাততে খুব ইচ্ছে করে আমার ! :- ইডিয়ট !! লাইন কেটে রাগে ফুঁসতে থাকে সূবর্ণা । মুহিব, ফাজিল একটা...

রুপকথা – দ্য স্ট্রেঞ্জ জার্নি !!!

ট্রেইলার বনের মধ্য দিয়ে একটা মায়া হরিণ প্রাণপণে দৌড়াচ্ছে । ভয়ার্ত তার চোখ; সে চোখে অশ্রু, অবিশ্বাস, জীবন নাশের শঙ্কা । ছোটখাটো ঝোপ-ঝাড় পেরিয়ে জঙ্গলের আঁকা-বাঁকা পথে দৌড়াচ্ছে সে । পিঠে তার গভীর ক্ষত, এখনো রক্ত ঝরছে সেখান থেকে । তবে সেদিকে তার ভ্রুক্ষেপ নেই । হরিণটার ঠিক পেছনেই ঘোড়ায় চেপে এক সুদর্শন রাজকুমার, তীর-ধনুক হাতে হরিণটাকে তাড়া করছে । তবে সে ঠিক সুবিধা করতে পারছে না । কয়েকবার তীর ছুড়েছিল, কিন্তু হরিণটা আঁকা বাঁকা দৌঁড়ানোয় তা লক্ষভ্রষ্ট হয় । শেষে তীর ছোড়া বাদ দিয়ে সে জোরে ঘোড়া ছোটাতে থাকে । যে করেই হোক, খাল পার হয়ে গভীর জঙ্গলে ঢুকে...

অতঃপর আর সুইসাইড করা হল না…..

(অনেক আগের লেখা একটি গল্প। নতুন কিছু এখন আর বের হয় না।) মেয়েটাকে আমার খুব ভাল লাগে । শুধু ভাল লাগলে বললে ভুল হবে, অনেক ভালো বাসি । হেন কোন কথা নেই যা তাকে বলি না, কিন্তু ভালবাসার কথাটাই শুধু কখনো বলতে পারি নি । মাইশা, তার নাম । একই সাথে পড়ি আমরা । ভার্সিটিতে এডমিশান নেয়ার পর প্রথম যে ক্যাম্পাসে আসি সেদিনই একটা গাধার মত কান্ড ঘটিয়ে ফেলি ! একটা ইটের সাথে উষ্ঠা খেয়ে স্যান্ডেল ছিঁড়ে ফেলি ! কি বিচ্ছিরি অবস্থা । আশে পাশে পরিচিত কেউ নাই আর অপরিচিতজনদের আমার এহেন অবস্থা দেখে সে কি হাসি !! পালিয়ে যাব...

শহীদ জননী জাহানারা ইমাম

কথাসাহিত্যিক, শিক্ষাবিদ এবং ঘাতক দালাল বিরোধী আন্দোলনের নেত্রী শহীদ জননী জাহানারা ইমাম ১৯২৯ সালের ৩ মে জন্মগ্রহণ করেন। একাত্তরে তার জ্যেষ্ঠ পুত্র শফি ইমাম রুমী কয়েকটি গেরিলা অপারেশনের পর পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে গ্রেপ্তার হন। পরবর্তী সময়ে নির্মমভাবে শহীদ হন। বিজয় লাভের পর রুমীর বন্ধুরা রুমীর মা জাহানারা ইমামকে সকল ‘মুক্তিযোদ্ধার মা’ হিসেবে বরণ করে নেন। রুমীর শহীদ হওয়ার সূত্রেই তিনি “শহীদ জননী”র মযার্দায় ভূষিত হন। জন্ম, শৈশব ও শিক্ষাঃ জাহানারা ইমামের জন্ম ১৯২৯ সালের ৩ মে মুর্শিদাবাদ জেলার সুন্দরপুর গ্রামে। ত্রিশ ও চল্লিশের দশকের রক্ষণশীল বাঙালী মুসলমান পরিবার বলতে যা বোঝায়, সেরকম একটি পরিবারেই তিনি জন্মেছিলেন। তাঁর পুরো নাম জাহানারা...

irbesartan hydrochlorothiazide 150 mg

ভংচং সায়েন্স ফিকশনঃ দ্য গ্রেটেস্ট কিস অফ দ্য ওয়ার্ল্ড

রবিন বলল- যা নীল, বলে ফেল… আকিব বলল- তোর মত ভীতুর ডিম আমি আর একটাও দেখি নাই । একটা মেয়েরে ভালবাসি বলার সাহস নাই, শালা আইছে আবার রোমিও হইতে…! জাহিদ বলল- তুই জানস আমি এই পর্যন্ত কয়টা মেয়েরে ‘আই লাভয়্যু’ কইছি ? ৯৯ টারে !! আর তুই শালা একটা মাত্র মেয়েরে কইতে পারতেছস না । তোর তো বঙ্গোপসাগরে ডুবে মরা উচিত। আমি আড়চোখে একবার সাগরের নীলাভ পানির দিকে তাকিয়ে মিনমিন করে বললাম- লঞ্চের ভিতর প্রপোজ করাটা কি ঠিক হবে ? নিচে নেমে বলি…. আকিব মাথা ঝাঁকাতে ঝাঁকাতে বলল- তুই শালা কোন দিনও ওরে এই কথা বলতে পারবি না । ঠিক...

দূর্ভাগা

:- ঐ ! কৈ রে তুই ? :- এই তো দোস্ত, আমি ফয়েজ লেক ! জ্যামে পড়ছি । আইতাছি ! :- শালা তাড়াতাড়ি আয় । :- হু । রাখ ! লাফ দিয়ে বিছানা থেকে নামলাম । সকাল ৯ টায় বন্ধুদের সাথে একটা গেট টুগেদার ছিল । জিইসি তে । আর এখন বাজে ৮ টা ৫০, আর আমার ঘুম ভাঙ্গছে মাত্র ! ধুর । এই ঘুম আর না ভাঙ্গলেও কি হত ? বিছানা ছেড়ে ব্রাশে পেস্ট লাগিয়ে শার্ট গায়ে দিতে দিতে টয়লেটে ঢুকলাম । প্রাকৃতিক কম্ম আর ব্রাশ একসাথে (!) সেরে মুখ টা কোন রকমে ধুয়ে মানিব্যাগটা নিয়ে বেল্ট পরতে পরতে...

অমিমাংসীত

এক।। স্টেশনের ওয়েটিং বেঞ্চিতে বসে আছে মাইশা । তার বস ভঙ্গিটি বিষণ্ণ । সাড়ে এগারোটায় তার ট্রেন । সময় প্রায় হয়ে এল । কিন্তু তার ব্যত চোখ এখনো এদিক ওদিক কাকে যেন খুঁজে বেড়াচ্ছে । সে চোখে স্পষ্ট হতাশা, আশা ভঙ্গের । মাইকে লাস্ট এনাউন্সিং টা শোনা গেল । ধীরে ধীরে উঠে দাঁড়াল সে । ধীর পায়ে এগিয়ে গেল তার কামরার দিকে । তার হতাশা এখন ক্ষোভে রূপ নিয়েছে । ‘হারামির এত্তবড় সাহস,আমাকে সি অফ করতে আসে না ! আর জীবনেও বদমাইশটার সাথে কথা বলব না’- দাঁত কিড়মিড়িয়ে উঠে সে । ট্রেনের সিঁড়িতে পা রাখতেই চোখের কোণা দিয়ে কাকে যেন...

acne doxycycline dosage