Author: ইলেকট্রন রিটার্নস

The coexistence of biological & electronic form of life; science of seduction

[[Disclaimer: Frank speaking out of syllabus. Not necessary to take seriously if it goes wrong.]] How do you define the timeline of human life or lifeline of entire alive particles as mathematical set of any ultra functioning carbon based molecular structures relatively defective from physical views & already gone through the violation of second law of thermodynamics. So, you can conclude this carbon as the ruler of planet amongst its any other neighbours of periodic table. But how carbon got the singular benefit of natural selection & went through critical possibilities ?of evolution that insanely ended up to the homo...

আগন্তুক

বৃষ্টি মাথায় বাইরে এসেছি সৎ উদ্দেশ্যে। একগাদা ঔষধ ও কিছু মুদি বাজারের স্লিপ হাতে নিয়ে অসহায় মনে হচ্ছে নিজেকে। রাস্তার মোড়ে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছি। রাস্তা পারাপারে সাবধান হওয়ার প্রতি ঘর থেকে কড়া নির্দেশ আছে। পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম সদস্য হিসেবে আমার বিশেষ সুযোগ সুবিধা আছে। তবে হতাশার ব্যাপার হচ্ছে এই সুযোগটা মাঝে মাঝে দায়িত্বে পরিণত হয়। এবং সমীহ আদায় করার জন্যে দায়িত্বটা বিরক্তি সহকারে পালন করতে বাধ্য আমি। এরপরই পরিবারের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক ধন্যবাদ জানিয়ে বিরক্তিটা আরো বাড়িয়ে দেয়াহয়। সবশেষে আমার মিথ্যে বলার পালা। নির্মিলিত চোখে বলতে হয়, আরে এ তো আমার দায়িত্ব। বাড়ির সবাই ভয় পায় আমাকে। হয়তো সম্মানও করে।...

জীবন ও মধ্যবিত্ত বাস্তবতা

শিকারী ঈগলের মত আমার সমস্ত দেহ টানটান হয়ে উঠলো। সামনে সংকীর্ণ দূরত্বকেও সুবিশাল সাহারা মরুভূমি মনে হতে লাগলো। আমি কি পারবো? তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে আবার তাকালাম। উঁহু। পারতে হবে। সমস্ত শরীরের শক্তি দিয়ে রুদ্ধশ্বাসে দৌড় শুরু করলাম। কপাল থেকে কয়েকফোঁটা ঘাম ছুটে এসে মাটিতে পড়লো এবং ধূলো ভিজিয়ে জমাট করে দিলো। শেষ মুহূর্তে যখনই ধরে নিয়েছি পারবোনা, তখনই সশব্দে আঘাত করলাম। লোকাল বাসটি থামলো। আমি হাঁপাতে হাঁপাতে বাসে উঠে এলাম। প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে আমার এই কঠিন পরিশ্রমের কোনো সমীহ পেলাম না। কী আশ্চর্য। কেউই আমাকে বাহবা দিচ্ছেনা। সবাই যার যার কাজে ব্যস্ত। আমি মেনে নিতে পারছিলাম না। অন্তত কেউ তো আমার...

বোহেমিয়ান র‍্যাপশডি

প্রথমে একটা ত্রিভূজ আঁকুন। ABC. কোণ A এর মান এক সমকোণ। এই কৌণিক বিন্দুতে একটা মেয়েকে বসান। B ও C বিন্দুতে দুইটা ছেলেকে বসালেই আমরা পেয়ে যাবো কাঙ্খিত পীথাগোরাস। উপপাদ্য লিখে যদি আমরা একটা আস্ত গল্প পয়দা করতে যাই, প্রথমেই আমাদের কিছু সঙ্গা জেনে রাখা আবশ্যক। সেগুলো জেনে রাখলে গল্প পাঠে সবার সুবিধা হওয়ার কথা। প্রশ্নঃ হৃৎপিন্ড কাকে বলে? উত্তরঃ অবাধ্য ফ্যাক্টরি যেখানে সর্বদা ইট ভাঙার কাজ চলে তাকে হৃৎপিন্ড বলে। প্রশ্নঃ চোখ কাকে বলে? উত্তরঃ যে গোলকটি দেখেও না দেখার ভান করে থাকে তাকে চোখ বলে। প্রশ্নঃ কান কাকে বলে? উত্তরঃ যে পর্দা বিশিষ্ট শ্রবণাঙ্গ শুনেও না শুনার ভান...

একজন রবীন্দ্রনাথ এবং বাঙালির আবহমান সাংস্কৃতিক ভাবনা

পাকিস্তান আমলে পূর্ব বাংলা প্রদেশের অধিকাংশ মানুষই মুসলিম জাতীয়তাবাদের স্বার্থে রবীন্দ্রনাথ বিরোধী ছিলো। তাদের প্রিয় কবি হয়ে উঠেছিলো নজরুল ইসলাম। নজরুল সঙ্গীত সমূহকে দাবী করা হচ্ছিলো পাকিস্তানি জাতীয়তাবাদ বিকাশের ভাস্কর্য রূপে। বস্তুত সঙ্গীতের ক্ষেত্রে নজরুল ছিলেন সনাতনী। তিনি ভারতীয় গানের সনাতন রীতিকেই অগ্রসর করে নিয়ে গেছেন। তাঁর গানে ছিলো আসরের আমেজ, বেলোয়ারি কাচের আওয়াজে তাঁর গান মুখরিত ছিলো। অন্যদিকে রবীন্দ্রনাথ ছিলেন ঠিক উল্টো। তিনি বাঙালিকে আসর থেকে টেনে বের করে নিয়ে এসেছিলেন এবং সঙ্গীতকে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন ব্যক্তির কানে। ফলে, নজরুলের মাঝে আমরা একদিকে দেখতে পাই সাম্রাজ্যবিরোধীতা, অন্যদিকে একটি সামন্তবাদী সঙ্গীতচর্চার মাঝে নিজেকে বিলীন করে দেয়া। এই স্ববিরোধীতা কেন নজরুল করেছিলেন... kamagra pastillas

অবশেষে অমানুষ

মেয়েটার লাশ নিয়ে কোনদিকে যাবো কিছু বুঝতে পারছিনা। প্রচন্ড রাগ লাগছে নিজের উপর। বোকামি করে মেয়েটাকে মেরে ফেলাটা একটা শুয়োরের মত কাজ হয়েছে। “আমি একটা বুনো শুয়োর” চিৎকার করে কথাটা ছড়িয়ে দিলাম পুরো জঙ্গল এলাকায়। জঙ্গলে আমার অনেক বিশ্বস্ত প্রাণীর বাস। আশা করছি ওরা শুনবে কথাটা। যদিও নিজের ক্ষমতা সম্পর্কে আমার মাঝে কোনো সন্দেহ নেই। আমার দৃঢ় বিশ্বাস কষে একটা চড় মারলেই মেয়েটা জীবন্ত হয়ে যাবে। কিন্তু মারবো না। হারামজাদি মরুক। কিন্তু যেহেতু আমি এখন শুয়োর হয়ে গেছি তাই এই মুহুর্তে কি করা উচিত আমার? কিছুক্ষণ আগেও মেয়েটা আমার বন্ধু ছিল। বন্ধু ছিলো বলেই শত্রুতা করে তাকে মেরে ফেলেছি। শত্রুর...

জলচর মৎস্য হতে স্তন্যপায়ী মানুষ; বিবর্তনবাদের মহা নাটকীয়তার পরিণতি

আজকের একবিংশ শতাব্দীতে এসে জীব বিবর্তনের প্রমাণ সম্পর্কে পেশাদার বিজ্ঞানী- গবেষকদের কেউই একে অস্বীকার করতে পারবেন না। জীব জগতে প্রাণী ও উদ্ভিদের বিবর্তনগত উৎপত্তি এবং ক্রমবিকাশ নিয়ে বিজ্ঞানীরা যৌক্তিক অনুসিদ্ধান্তে এসেছেন যা অস্বীকারের কিছু নেই। বিবর্তনের প্রমাণ বস্তুত জীববিজ্ঞানের অন্যতম শক্তিশালী ও সর্বব্যাপী প্রমাণ এবং জীববিজ্ঞানের সকল শাখা থেকেই এই প্রমাণগুলো পাওয়া গেছে। ডারউইন এবং তার সমসাময়িক বিজ্ঞানীরা শারীরবিদ্যা, ভ্রূণবিদ্যা, জৈব ভূগোল ও প্রত্নজীববিজ্ঞান থেকে যথেষ্ট তথ্য পেয়েছিলেন। কিন্তু ডারউইনের সময় জীনের ধারণা আসেনি। জীন ধারণার অগ্রগতির পর জিনেটিক্স, বায়োকেমিক্যাল, অণুজীব বিজ্ঞান সহ বিভিন্ন অনুষদ থেকে বিবর্তনের শক্তিশালী প্রমাণ পাওয়া গেছে। বিবর্তন বস্তুত অপ্রমাণের মত কিছুই নয় আর। বিবর্তন এর...

amiloride hydrochlorothiazide effets secondaires

যুদ্ধ সাংবাদিকতা এবং বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ

যুদ্ধ সাংবাদিকতা প্রায়শই স্থান খুঁজে নেয় হলুদ সাংবাদিকতার আশ্রয়ে। সত্য মিথ্যার মিশ্রনে এমন সব প্রতিবেদন তৈরী করা হয় যুদ্ধের উপর যা সংবাদপত্রের নীতিকে সমর্থন করলেও, উহ্য থেকে যায় সাংবাদিকতার নীতিমালা কিংবা একজন মানুষ হিসেবে সাংবাদিকের নীতি। এ বিষয়ে একটি ঘটনা স্মরণ করা যেতে পারে। হলদে সাংবাদিকতার জনক হিসেবে পরিচিত, মার্কিন সাংবাদিক জগতের প্রবাদ পুরুষ উইলিয়াম র‍্যান্ডল্‌ফ হার্স্ট। তার ফটোগ্রাফার রেমিংটনের সাথে একটি টেলিগ্রাম বিনিময় হয়েছিলো ১৮৯৬ সালে। ১৮৯৬ সালে হার্স্ট তার সহকারী রেমিংটনকে হাভানা পাঠিয়েছিলেন, আমেরিকা-স্প্যানিশ যুদ্ধের রিপোর্ট বিশেষ করে “স্প্যানিশ বর্বরতা”র ছবি পাঠাতে। রেমিংটন সেখানে গিয়ে তো অবাক। তিনি টেলিগ্রামে হার্স্টকে জানিয়ে দিলেন, “এখানে পরিস্থিতি একেবারে শান্ত। যুদ্ধ হবার... all possible side effects of prednisone

can you tan after accutane

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ এবং ভারত চীন আমেরিকা সোভিয়েতের অবস্থানের সংক্ষিপ্ত আলোচনা

৩০ জানুয়ারী, ১৯৭১ সাল। লাহোরে একটি ভারতীয় যাত্রীবাহী বিমান অপহরণ করে নিয়ে আসে দুই যুবক। তারা ছিলো কাশ্মীরের লিবারেশান আর্মির সদস্য। এমনকি ভারতের এই বিমান অপহরণের পর তাদেরকে পাকিস্তানে বিরোচিত সম্মান জানানো হয়। পিপলস পার্টির নেতা জুলফিকার আলী ভুট্টো তাদের সাথে আলিঙ্গন করেন এবং তাদেরকে “মহান মুক্তিযোদ্ধা” বলে অভিনন্দন জানান। বিমানটি বিস্ফোরণে ধ্বংস করার পর যুবক দুটি আত্মসমর্পণ করে এবং পাকিস্তান তাদেরকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেয়। এই ঘটনার সূত্র ধরে ভারত তাদের আকাশসীমায় পাকিস্তানি বিমান চলচলের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। ফলে পাকিস্তানকে শ্রীলঙ্কান আকাশপথে বাংলাদেশে সৈন্য পরিবহণ করতে হয়। মূলত এটি ছিলো পাকিস্তানের প্রথম একটি বুদ্ধিবৃত্তিক পরাজয়। মূলত ৭০ এর সাধারণ...

can your doctor prescribe accutane

মহাশূন্যের “শূন্যতা” এবং কণা-প্রতিকণা

আজ মহাশূন্য নিয়ে আলাপ আলোচনা করা যাক। সত্যিকার অর্থে মহাশূন্য বলতে কি বুঝায়? কিংবা মৌলিক কণিকা গুলোর পারস্পরিক মিথস্ক্রিয়া কিভাবে এত বড় একটা বিশ্বজগতকে বিলিয়ন বিলিয়ন বছর ধরে স্থিতিশীল রাখছে? সেই সাথে শূন্য থেকে মহাবিশ্ব সৃষ্টি বিষয়ক সামান্য কথা। এরিস্টটলের অনেক অবৈজ্ঞানিক থিওরীর মাঝে একটা থিওরী ছিলো, প্রকৃতি শূন্যস্থান বিরোধী। তাঁর এই মতবাদ সতেরশ শতক পর্যন্ত টিকে ছিলো কারণ তার পরে যারাই শূন্যস্থান তৈরীর চেস্টা করেছেন তারাই সফলতা পাননি। ছোটো একটা স্ট্র দিয়ে আমরা যখন কিছু পান করি, তখন স্ট্রর মাঝের বাতাস টেনে নিই এবং ভেতরে ফাঁকা স্থানটি পূর্ণ করে তরল পানীয় উঠে আসে। ১৭শ শতকে বিজ্ঞানী টরসেলী সর্বপ্রথম এরিস্টটলের...

বিবর্তনবাদ , জীবের বংশানুক্রমিক ক্রমবিকাশ

প্রাণের দুইটি প্রধান সত্ত্বা থাকে। একটি হচ্ছে ইন্সট্রাকশান সেট। এবং অপরটি ইনস্ট্রাকশান গুলোকে ফলপ্রসু করার জন্য একটি বায়ো-কেমিক্যাল মেকানিজম। জীববিজ্ঞানের ভাষায় অন্যভাবে বলা যায় জেনেটিক্স এবং মেটাবলিজম। মহাবিশ্বে সবকিছুই মূলত ক্যায়োটিক ফেইজে ধাবিত হয়, যেটাকে ফিজিক্সের ভাষায় বলে এনট্রপি। মহবিশ্বের মাঝে যদি আমরা আলাদা একটি সিস্টেম বিবেচনা করি তাহলে সেই সিস্টেমে শৃঙ্খলার পরিমাণ বাড়তে পারে অর্থাৎ এনট্রপির মান কমতে পারে। সেটা শুধু ঐ সিস্টেমের জন্য প্রযোজ্য সামগ্রিক মহাবিশ্ব তার আওতাধীন নয়। কিন্তু বস্তুত, ঐ সিস্টেমে এনট্রপির মান যে হারে কমে পারিপার্শ্বিক সিস্টেমে তার চেয়ে অনেক বেশি হারে বাড়তে থাকে। ধরে নিই প্রাণের সৃষ্টি একটি সুশৃঙ্খল প্রক্রিয়া এবং এটি এনট্রপির বৃদ্ধির...

ধর্মভিত্তিক রাজনীতি বনাম রাজনীতির ধর্মহীনতা, গ্রহণযোগ্যতা এবং জামাত শিবির সম্পর্কিত সুসমাচার

বিশেষ করে আমাদের দেশে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি বলে যা পরিচিত সেটা নিয়ে প্রায়ই আমি ধাঁধায় পড়ে যাই। ব্যাপারটা মূলত ধর্মের অনুশাসনে রাজনীতি বলে পরিচিত হলেও প্রায়োগিক অর্থটা সম্পূর্ণ একশো আশি ডিগ্রি উল্টো। এর আড়ালে মূলত দুইটি ব্যাপার ঘটে। একটা হচ্ছে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি অন্যটা হচ্ছে রাজনীতির ধর্মায়ন। ব্যাপারটা যথেষ্ট হতাশার তারচেয়ে বেশি দুঃখজনক। কেন ধর্মভিত্তিক রাজনীতি থাকা উচিত নয়? এবং ধর্মভিত্তিক রাজনীতির বিষবৃক্ষ নিয়েই কিছু আলোচনা করার ইচ্ছা আছে নিজের সসীম দৃষ্টিজ্ঞান থেকে। আজ থেকে প্রায় ১৪৫০ বছর আগে রোমের সামন্তবাদী রাজারা প্রতিক্রিয়াশীল মৌলবাদী ক্যাথলিক চার্চের যাজকদের সহায়তায় প্রথম জনগনের উপর ধর্মের নামে অত্যাচার চালানোর বিধান রচনা করে। এ সময়ের আরেকটি...

শঙ্খনীল কারাগারে… (পার্ট ২)

জেলখানার প্রথম দিনেই মন খুব খারাপ ছিলো। কিছুক্ষণ পর পর কান্না করছি। আবার কিছুক্ষণ পর মজার কোনো ঘটনা মনে করার চেস্টা করছি। নিজের সাথে নিজেই হাসার চেস্টা করছি। আর সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে বাবা মায়ের জন্য অপেক্ষা করছি। একটা জিনিস বুঝতে পারলাম যে, আমি এমন একটা জায়গায় এসে পড়েছি, এখন যদি আমি শত চেস্টাও করি এখান থেকে বের হতে পারবোনা। যা করার বাইরের মানুষগুলোকেই করতে হবে। অদ্ভুত অনুভূতি হচ্ছিলো। বারবার মনে হচ্ছিলো বিচিত্র সব চিন্তাভাবনা। যেমন, আমি চিন্তা করছিলাম, আচ্ছা যদি এমন হয় যে, আমার কেইস ফাইলটা কোথাও হারিয়ে গেল তাহলে আমি এখান থেকে বের হতে পারবো? কিংবা ধরা যাক,...

nolvadex and clomid prices
ovulate twice on clomid
capital coast resort and spa hotel cipro

নারী অধিকার ; স্বাধীনতা নাকি সুবিধা?

নারী অধিকার ও আমাদের সমাজে নারীদের আইডিওলোজি নিয়ে অনেক ভেবে চিন্তে দেখেছি। কিছু কথা পরিষ্কার করা উচিত বলে মনে করি। প্রথমেই আসি, অধিকারের প্রশ্নে। অধিকার বলতে আসলে কি বুঝায়? স্বাধীনতা? নাকি প্রাপ্য সুবিধা নিশ্চিত করা? নাকি বেশি সুবিধা দেয়া? বস্তুত, সুবিধার পরিমাণ নয়। অধিকারের প্রশ্নটা এক জায়গাতে এসে যথেষ্ট কনফিউজিং। সেটা হচ্ছে অধিকার মানে কি স্বাধীনতা নাকি সুবিধা? নারীর এই মুহুর্তে স্বাধীনতা নাকি সুবিধা কোনটা প্রয়োজন সেটা আগে ক্লিয়ার করা প্রয়োজন। অনেকেই বলবেন, স্বাধীনতা আর সুবিধা দুটিই কেন একসাথে নয়? হ্যাঁ। অবশ্যই দুটি একসাথে। কিন্তু তার আগে যেসব সুবিধা নিশ্চিত করা হচ্ছে সেগুলোর স্বাধীনতা দিতে হবে। ধরুন, আপনার সামনে পাঁচটি...

অসম্পূর্ণ

চোখ থেকে দুই ফোঁটা রক্ত গড়িয়ে পড়ে রাজীবের ভাতের প্লেটে। সেই মুহূর্তে কামনায় জ্বলতে থাকা কুকুরটির চিৎকার রাজীবের কাছে প্রচন্ড অসহ্য লাগে। অবাধ্য কুকুরটি রাজীবের দীর্ঘদিনের গৃহপালিত শুয়োরটির কথা মনে করিয়ে দেয়। দুটাই নিমক হারাম। রাজীব ওদের মারতে গিয়েও মারতে পারেনা। কানে আঙুল চেপে ভাতের প্লেট সামনে নিয়ে বসে থাকে নিশ্চুপ। আজকে বারবার হাতঘড়ি দেখে মিথ্যা তাড়াহুড়ার বাহানা করছেনা রাজীব। দাঁত দিয়ে অত্যন্ত মনোযোগের সাথে নখও কাটতে দেখা যাচ্ছেনা তাকে। শক্ত করে নিচের ঠোঁট দাঁতে কামড়ে চেপে বসে থাকে রাজীব। শুয়োরের সাথে এক গৃহে বাস করার এটাই সমস্যা। ভাতের প্লেটটাকে সযত্নে উল্টে রেখে দেয় বিছানার উপর। তোষকের নিচে কুচকুচে কালো...

প্রার্থনা

তুই কি আমার সঙ্গী হবি? আধখাওয়া আমার চায়ের কাপে চুমুক দিয়ে ঠোঁট পুড়িয়ে ঝাড়ি দিয়ে ঢঙ্গী হবি? তোর যাতনায় চুমুক দিয়ে নষ্ট হবো,ক্লান্ত হবো। ঠিক তখনই ভেজা চোখের মাসকারা ঐ, আমার শার্টে মাখিয়ে দিয়ে জেলাস হাসা-হাসবি নাকি? বলবি হেসে,”সার্ফ এক্সেল! লাগবে নাকি?” একটু হেসে বলবো আমি, থাক না লেগে! কি আসে যায়! কার কি আসে! শারদ রাঙা ঐ নদীর কাশে,থাকবি জুড়ে? আর কতকাল?শুভ্র পাখি,কৃষ্ণ আঁখি- আঁকবি কাঁধে পবিত্র ফুল;কান্না ভেজা আলতো চুমোয় একটু খানি ‘তুই’মাখিয়ে ফ্রিজের শীতে জমিয়ে নিয়ে জ্বরের ঘোরে মাখবি চুলে? আমি না হয় থাকবো পড়ে,হাজার বছর রাত্রি যাপন; এক রাতের ঐ ফুলেল বাসর-কি আসে যায়? ধুত্তুরি ছাই!...

মাই প্রিসন; মাই প্রাইড (পর্ব-১)

“হাই ফ্রেন্ডস! ভূত এফ এম এর আজকের এপিসোডে স্বাগতম! আমি এমন একটি এপিসোড অনএয়ার করতে যাচ্ছি যেটা অনএয়ার হওয়ার পর আমার কোনো অনুশোচনা থাকবেনা, প্রাপ্তির নিশ্চয়তা থাকবেনা। যদি কখনো অনুধাবন করি যে,এটা বলে ভুল করেছি,সেটা আমাকে বিন্দু পরিমাণ ভাবাবে না। আমাকে সেটা বিসর্গ পরিমাণ নাড়াবেনা। যদি কখনো বুঝতে পারি যে,এটা প্রচার আমার ভালো হয়েছে,স্মৃতি গুলো জমে গেছে হিমালয়ের বরফের মত,তবুও আমার তৃপ্তির বরফ গলে কখনো নদী হয়েও বইবেনা। আমি এটা বলছি একরকম নিষ্প্রাণের মত;অনুভূতিহীন অ্যানিমেশনের মত,অনেকটা প্লেস্টেশানের কোনো গেইম চরিত্রের মত”। শুরু করছি রাসেল ভাই! “ছোটো বেলায় কাগজ টুকরো করে একটা খেলা খেলতাম। বাবু-পুলিশ-চোর-ডাকাত। লটারির মত। চারটি কাগজ ছড়িয়ে দেয়া...

কম্পিউটার গেইমিং রিভিউ :- এক এ ভূমিকা

কম্পিউটারের এই যুগে গেইমিং খুবই জনপ্রিয় একটা বিষয়। পরিমিত গেইমিং সত্যিই অবসর বিনোদনের চমৎকার একটি মাধ্যম। তবে অবশ্যই সেটা সীমিত পরিসরে। ঘন্টার পর ঘন্টা গেইম নিয়ে পড়ে থাকাটা বিভিন্ন রকমের মানসিক রোগ সৃষ্টি করতে পারে। অনেকে গেইমিং নিয়ে এপিলেপ্সিতেও ভুগে। যাই হোক, আমার আজকের এই পোস্ট গেইম রিভিউ নিয়ে। সচরাচর ব্লগে মুভি রিভিউ দেখা যায়। আমি গেইম নিয়েই লিখি! আশা করি গেইমারদের কাজে লাগবে ব্যাপারটা। এই রিভিউটা একটি সিরিজ হিসেবে থাকবে। তাই গেইম রিভিউ লিখার শুরুতেই আমি প্রাথমিক কিছু কথা বলে নিতে চাই গেইমিং নিয়ে। মূলত গেইমিং কম্পিউটার নিয়ে। তথা কনফিগারেশান নিয়ে। ব্যাপার গুলো অনেকেই হয়তো জানেন। তাও বলার প্রয়োজনে...

দ্য ইনক্রেডিবল ডাইন

মাথাটা অনেকক্ষণ ধরে ঝিঁঝিঁ করছে রবিনের। এর পিছনে অবশ্য আর্কিমিডিস স্যারের বিশাল এক অবদান আছে। আর্কিমিডিসকে আজ রাতে সে স্বপ্ন দেখেছে। স্বপ্নের কিছু অংশ – আর্কিমিডিস- রবিন,তুমি কি জানো আমি এক অসাম আবিষ্কার করেছি? রবিন- না। জানিনা। আর্কিমিডিস- কি বলতেছ তুমি? তুমি আমার বিখ্যাত আর্কিমিডিসের নীতিটা জানোনা? রবিন- খচর খচর করেন কেন? বললাম তো জানিনা। আর্কিমিডিস তখন রবিনকে তাঁর নীতিটা বুঝাতে শুরু করলেন। তারপর বললেন, “দেখলা? কি বিশাল এক আবিষ্কার করছি আমি?” রবিন বললো, “স্যার এটা কোন আবিষ্কারই না। বাংলা সিনেমায় প্রায়ই দেখি ভিলেন জলহস্তীকে লোহার ট্যাঙ্কে ভরে নদীতে ফেলে দিছে। এরপর ট্যাঙ্ক আপনার সূত্রকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ভাসতে ভাসতে নায়কের...

বিষন্ন দাঁড়কাক

কালো প্লাস্টিকের টিউনারটা ভেঙে বেরিয়ে এলো। গোল টিউনারটা গড়িয়ে কিছুদূর গিয়ে একসময় ভারসাম্য হারিয়ে ফেললো। শুনশান নিরবতা নেমে এসেছে হঠাৎ পুরো ঘরে। একটি তেলাপোকা আচমকা চমকে গিয়ে পুরনো কাঠের চেয়ারের নিচ হতে দৌড়ে বেরিয়ে গেল। তার কম্পমান পুঞ্জাক্ষীতে হয়তোবা ভয়ের অনুভূতি। কে জানে। এরপর ঘরে ধুপধাপ শব্দ। ফিরোজা এসে দাঁড়ালো দরজার কড়িকাঠের নিচে। তার চোখ একমূহুর্তের জন্য স্থির হয়ে গেল লাল টেপ লাগানো, বহিরাবরণের অস্তিত্ব হারানো ৪৩ বছরের পুরনো ট্রানজিস্টার সেটের দিকে। সেখান থেকে তখনো আবছা আবছা তরঙ্গ ভেসে আসছে। “দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর আপীলের রায়ে আমৃত্যু কারাদন্ড……” “ভেঙে ফেলাটা বোধহয় ঠিক হয়নি। এটা তোমার স্মৃতির একমাত্র ধারক ছিলো”,বললো ফিরোজা। চশমার...

venta de cialis en lima peru
can levitra and viagra be taken together