Author: জন কার্টার

শুভ জন্মদিন প্রিয় তিমিরহনণের কবি …

মা কুসুমকুমারী দাশ এর বিখ্যাত কবিতা ” আমাদের দেশে হবে সেই ছেলে কবে, কথায় না বড় হয়ে কাজে বড়ো হবে!” – সত্যিকার অর্থেই কাজের মাধ্যমেই বড় হয়েছিলো ছোট্ট মেলু! রবীন্দ্র উত্তর যুগের প্রধানতম কবি হিসাবে স্বীকৃতিও পেয়েছিলেন তিনি! সদা অর্থকষ্টের মধ্যে থেকেও রচনা করে গেছেন বিখ্যাত সব কবিতা। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তীর্যক সমালোচনা ও মনোবেদনায় অধিকাংশ কবিতা ছিলো অপ্রকাশিত! মৃত্যুর পর প্রকাশিত প্রত্যেকটি কবিতায় পায় পাঠক জনপ্রিয়তা! প্রথমদিকে তার “ক্যাম্পে” কবিতাটি সমালোচনার শিকার হয়ে অশ্লীল হিসাবে চিহ্নিত হলেও পরবর্তীতে স্বীকৃতি পেয়েছেন শতাব্দীর “শুদ্ধতম কবি” হিসাবে! প্রেম আর প্রকৃতির অসম্ভব এক মিলন তাঁর প্রত্যেকটি কবিতায়! এইবাংলার রূপে এতোটায় বিমুগ্ধ ছিলেন যে...

যতদিন রবে পদ্মা, মেঘনা, গঙ্গা, যমুনা বহমানততদিন রবে কীর্তি তোমার শেখ মুজিবুর রহমান……..

”তিনি এক মহান ব্যক্তিত্ব। সবকিছু সত্ত্বেও শেখ মুজিব স্মরণীয় হয়ে থাকবেন এ জন্য যে, তাঁকে ছাড়া বাংলাদেশ কখনো বাস্তবে পরিণত হতো না।” (দি টাইমস, লন্ডন, ১৬ আগস্ট, ১৯৭৫) সময়টা ২০০৫ সাল সবে মাত্র ক্লাস ফাঁইভ-এ উঠেছি। প্রায়শই বন্ধুদের সাথে প্রচন্ড ঝগড়া লাগতো, আর ঝগড়ার বিষয় ছিল বঙ্গবন্ধু আর মুক্তিযুদ্ধ। সেসময় আমাদের সমাজ বই-এ মেজর জিয়াউর রহমানকে স্বাধীনতার ঘোষক হিসাবে উল্লেখ করা ছিল। মেজর জিয়ার ভাষণ, ”I, Major Ziaur Rahman, on behalf of Bangobondhu Sheikh Mujibur Rahman, hereby declare that the independent People’s Republic of Bangladesh has been established…….. ” থেকে সেসময় অতি সুন্দরভাবে ”On The behalf of Bangobondhu Sheikh Mujibur...

অতঃপর ভালবাসা (চন্দ্রার গল্প)…………

রিকশা থেকে নেমে চারদিকে ভালো করে দেখার চেষ্টা করল চন্দ্রা।সবকিছুই আগের মতই আছে তবে কেন জানি বুকের মধ্যে এক চাপা কষ্ট।কোন কিছু হারিয়ে ফেলার কষ্ট! এই জায়গাটা চন্দ্রার ভীষণ পছন্দের।রোজ বিকেল সে সময় পেলেই এই জায়গাটাতে বেড়াতে আসে। এই কোলাহল,ভিড়-ভাট্টা, গাড়ি-ঘোড়ার শব্দ ভীষণ রকমের পছন্দ করে চন্দ্রা। এগুলোর মধ্যে অসাধারণ রকমের এক ভালো লাগা আছে চন্দ্রার।কিন্তু আজ যেন তার কিছুই ভালো লাগছে না। চন্দ্রা হেঁটে চলছে ফুটপাতের উপর দিয়ে, ইচ্ছা ছিল চার রাস্তার মোড়ের টং দোকানে বসে চা খাবে কিন্তু নাহ্ এখন আর সে ইচ্ছা করছে নাহ্। চন্দ্রা ফুটপাত ঘেঁষা কফিশপ টাতে গিয়ে ঢুকল। দিনের এই সময় টা তে কফিশপের...

acquistare viagra in internet

September On Jessore Road: অ্যালেন গিন্সবার্গ; এক মহানুভব কবি………

আরউইন অ্যালেন গিন্সবার্গ সর্বাধিক পরিচিত অ্যালেন গিন্সবার্গ নামে।অ্যালেন গিন্সবার্গ একজন বিখ্যাত মার্কিন কবি ও গীতিকার।অ্যালেন গিন্সবার্গ ১৯৫০ সালের দিকে বিট প্রজন্মের সর্বাধিক পরিচিত একজন কবি। অ্যালেন গিন্সবার্গ ৩রা জুন ১৯২৬ সালে একটি ইহুদি পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন।তিনি নিউ-জার্সির প্যাটারসন এলাকায় বেড়ে ওঠেন।গিন্সবার্গ ১৯৪৩ সালে ইস্টসাইড হাই স্কুল থেকে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি হাই স্কুলে থাকা কালীন সময়েই তার শিক্ষকের সহায়তায় Walt Whitman পড়া শুরু করেন। গিন্সবার্গ কলোম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার পূর্বে কিছুদিন Montclair State College এ অধ্যয়ন করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত অবস্থাতেই ১৯৪৫ সালে অ্যালেন গিন্সবার্গ পড়াশুনার খরচ যোগাড় করার জন্য চাকরিতে যোগদান করেন। কলোম্বিয়াতে থাকা কালীন সময়েই গিন্সবার্গ Jester Humor...

buy kamagra oral jelly paypal uk
can your doctor prescribe accutane

গেরিলা যোদ্ধা; ও আমাদের মুক্তিযুদ্ধে গেরিলা যোদ্ধাদের অবদান……..

“দিন তোমাদের, রাত আমাদের/ রৌদ্র তোমাদের, বৃষ্টি আমাদের/ শহর তোমাদের,গ্রাম আমাদের”। গেরিলাদের কার্যপরিধি ঠিক এভাবেই ব্যাখ্যা করেছিলেন ইতিহাসের বিখ্যাত গেরিলা নেতা মাও সে তুং। গেরিলা একটি স্প্যানিশ শব্দ।যার অর্থ হল খুদে যোদ্ধা।গেরিলা শব্দটি মূলত দলছুট বা একক যোদ্ধার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হলেও কখনো কখনো গেরিলারা ছোট ছোট দল গড়ে তোলে।আবার কখনো কখনো গেরিলারা বিভিন্ন দল-উপদলে বিভক্ত হয়েও শত্রুপক্ষের প্রশিক্ষিত বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। গেরিলারা হল সেসব বেসামরিক যোদ্ধা যারা ভূমি ও ভৌগলিক সুবিধা ব্যবহার করে প্রতিপক্ষের উপর প্রভাব বিস্তার করে।এদের যুদ্ধ পদ্ধতি হয় অনেকটা ”হিট এন্ড রান” পদ্ধতিতে।গেরিলারা মূলত বিচ্ছিন্ন ভাবে শত্রুপক্ষের উপর আক্রমন পরিচালনা করে, এবং সহজেই শত্রুপক্ষকে বিপর্যস্ত করে...

achat viagra cialis france
zoloft birth defects 2013