Author: কিয়াস মাহমুদ

ভালবাসার গান আর গিটার

ছোটবেলা দেখতে নাকি খুব সুন্দর কিউট ছিলাম। সেই কারন বশত অনেকরকম সুযোগ বা অনেক রকম মজার মজার অভিজ্ঞতা পেয়েছি। ওহ আরেকটা কারণ না বললেই নয় তখন বাসায় ছিলো দশম শ্রেণী আর কলেজ পড়ুয়া দুই বোন। মূলত বোনদের কারনেই বাসা থেকেই বেরোলে পেতাম আলগা ফ্যাসিলিটি। ‘‘ভাইয়া কি খাবে ? ভাইয়া খেলবে ? ভাইয়া আমার বাসায় চলো’’ এমন আদর খুব স্বাভাবিক ছিল। এখন লিখতে লিখতে মনে হচ্ছে আসলে কিউট ছিলাম না বোনদের কারনেই পাড়ায় বড় ভাইরা বেশ খাতির করতে আসতো। এমনও হয়েছে জুম্মার নামায শেষে বড় ভাইরা কোলে করে ঘুরতে নিয়ে গেছে বাসায় দিয়ে গেছে বিকেলে, এই দিকে বাসার সবাই থানা /মেডিকেল...

para que sirve el amoxil pediatrico
venta de cialis en lima peru

এস.এস.সি. রেজিস্ট্রেশানের দিন

আজকে জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা দিন জীবনের প্রথম বোর্ড পরীক্ষার জন্য রেজিস্ট্রেশান করা। সবাইকে গতকালই বলে দেওয়া হয়েছে প্রিন্সিপাল স্যার এর উপস্থিতিতেই এই কাজটা সম্পাদন হবে, তাই প্রয়োজনীয় তথ্যাবলী যেমন বর্তমান ঠিকানা, স্থায়ী ঠিকানা, নামের বানান সঠিক ভাবে লিখে একটা কাগজে লিখে আনতে। বেশ আগের কথা মোবাইলের এর প্রচলন খুব একটা শুরু হয়নি। যে কেউ ইচ্ছা করলেই মোবাইলে ফোন করে কথা বলে, তথ্য ঠিক করে নেওয়ার উপায়টা খুব একটা সস্তা হয়নি। রেজিস্ট্রেশান এর দিন- একটু শীত শীত সকাল, ঠাণ্ডা পড়েছে। বেশি কনকনে না, সবে শীতের শুরু। আমাদের চোখেমুখে এখনও ঘুম। আমাদের সামনে একজন স্টাফ প্রত্যেকে রেজিস্ট্রেশান পেপার দিচ্ছে। আর রেজিস্ট্রেশান...

acne doxycycline dosage
metformin synthesis wikipedia

চাওয়া-পাওয়া

স্কুল জীবনের শেষ দিকের কথা, বরই আঁতেল মার্কা হাবলু টাইপ স্টুডেন্ট কাতারের যদি নাম চাওয়া হয়; আমার নাম আসবে সবার আগে। একবার খেলার মাঠ থেকে দূরে অনুষ্ঠানের শব্দ কানে আসতেই ছুটে গেলাম ওই দিকে গিয়ে দেখি বেশ গান বাজনা চলছে এ এক আরেক জগত। চেনা মানুষের সংখ্যা খুব কম যারা আছে অনেক দূরে, কথা বলা সম্ভব না; জিজ্ঞেস করা সম্ভব না যে, হচ্ছেটা কি ?? দাড়িয়ে রইলাম স্যারের বক্তৃতা চলছে, আমার ক্লাসের একজন বন্ধু (অনিক) আমার পিছে দেখে অবাক হই। কারন অনিকতো ছুটি হবার পরেই বাসায় চলে যায়, আর গোত্রেরের ও পার্থক্য থাকায় ভাল বন্ধু বলা যাবে না; শুধু ক্লাসমেট।...

missed several doses of synthroid

ফুল অফ কনফিউশান

কই যাই ?? যখন দেখি … চোখের সামনে ভুল হচ্ছে … ভুলগুলো এখন এতো স্বাভাবিক ??… ঠিক কিছু করতেই ভয় লাগে, অস্বাভাবিক লাগে দৃষ্টি কটু লাগে বরং ঠিক কিছু করতেই ….কেউ কাউকে বিশ্বাস করতে পারে না, ছেলে-মেয়ে, বাবা-মা যত সম্পর্ক আছে শুধুই শাময়িক চাওয়া-পাওয়ার। কারও আগে কেউ যেতে পারবে না, স্পেশাল কিছু করতে হলে করতে হবে লুকিয়ে। পাছে কেউ জেনে গেলে বিপদ, হতে পারে চুরি, লাগতে পারে কু দৃষ্টি, পিছু লাগতে পারে বিফলতা। কিন্তু কেনো ?? দশে মিলে কাজ করলে না ভাল হয় ?? সত্য এখন নাই, সত্য এর ভাঙ্গা-গড়া আছে… সত্য কে ভেঙ্গেচুরে মিথ্যার সাথে মিলিয়ে বলছে অতিসত্য। অবলীলায়...

metformin tablet
puedo quedar embarazada despues de un aborto con cytotec
will i gain or lose weight on zoloft