Author: কেপি

সিজিপিএ 3.72, অথচ থার্ড ইয়ারের ছাত্রটি ধীরে ধীরে মারা যাচ্ছে…

১. দিনদুপুরে ছাত্রদের হলের করিডোরে উবু হয়ে বসে একজন ছাত্র বমি করার চেষ্টা করছে, দৃশ্যটা খুব স্বাভাবিক নয়। রুদ্ধশ্বাসে অস্বাভাবিক দৃশ্যটা ওপর তলা থেকে দেখছিলো আরেকজন মানুষ। বমি করার চেষ্টা করেও পারছিলো না করিডোরের ছেলেটা। ওকে দুই পাশ থেকে ধরে রেখেছিলো দু’জন বন্ধু। কিছুক্ষণ পর তাদের প্রচেষ্টায় রুমে ফিরে গেলো অসুস্থ ছেলেটা। উৎসুক দর্শক ধরে নিলেন হঠাৎ শীতটা বেড়ে যাওয়ায় একজন অসুস্থ হয়ে গেছে। জ্বর-টর স্বাভাবিক ব্যাপার এসময়। কাঁধ ঝাঁকিয়ে ক্লাসের দিকে পা বাড়ালেন সবাই। কপাল ফেরে ঠিক সেদিনই ক্যাম্পাসে হাঙ্গামা, বাধ্য হয়ে হলগুলো খালি করে দেওয়ার নির্দেশ দিলেন কর্তৃপক্ষ। ব্যস্ততায় ভরে উঠলো হলগুলো, ব্যাগ গুছিয়ে সবাই ছুটছে স্টেশনে। হঠাৎ...

মুক্তিযুদ্ধ তথ্য অনুসন্ধানঃ Log-I ☠ শহীদ বনি আমিন ☠

    ০২ এপ্রিল, ২০১৫     সকাল ০৯:০০ সূর্য আকাশের এক কোণ থেকে ধীরে ধীরে মধ্য আকাশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল, আর আমরা এগিয়ে যাচ্ছিলাম সারদার দিকে। গতকাল রাজশাহীর তালাইমারিতে কথা হয়েছিল সাব-সেক্টর কমান্ডার ডাক্তার আব্দুল মান্নানের সাথে। তিনি বর্তমানে আমেনা ক্লিনিকের ব্যবস্থাপক। তাঁর মাধ্যমে চারঘাট অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধা জনাব মিজানুর রহমান আলমার সাথে আমাদের আজ দেখা করার কথা ছিল। বানেশ্বরে নেমে তাঁকে ফোন করলেন হিমু ভাই (সাব্বির)। ফোনে আলমা স্যার জানালেন তিনি এখন রাজশাহী অভিমুখে যাত্রা করেছেন। রবিবারের আগে তাঁর সাথে দেখা মিলবে না। কাজেই আমাদের পরবর্তী গন্তব্যঃ সারদার গোরশাহরপুর গ্রাম। এ গ্রামের ছেলে ছিলেন বনি আমিন, ৬৯ সিরিজের রাজশাহী ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ...

দ্য রেইপ

১. বিছানাতে শুয়ে আছে মেয়েটা । নগ্ন শরীর টিউবলাইটের আলোতে চক চক করছে । চোখ বোজা, বুকে কামড়ের দাগ । গলার কাছটা লাল হয়ে আছে । শেষবারের মত ওদিকে তাকিয়ে ঘরটা থেকে বের হয়ে আসে তারেক । দরজার ঠিক বাইরে দেওয়ালে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে আছে বন্ধু তিয়াস, তার দিকে তাকিয়ে বোকা বোকা একটা হাসি দিল ও । তারপর জানালার পর্দায় মুছে ছুরিটা ঢুকিয়ে রাখে পকেটে । ‘চেক অন ইয়োর পেশেন্ট প্লিজ, ডক্টর ।’, টলতে টলতে ফ্রিজের দিকে এগিয়ে যায় তারেক । কাঁধ ঝাঁকিয়ে দরজা খুলে ভেতরে ঢুকে পড়ে তিয়াস । মেয়েটার দুই হাটু ঝুলে আছে বিছানা থেকে । রক্তে ভেসে...

স্ল্যাং

‘শালার পুতেরে আজ ফাইড়া লামু ।’ তুষারের ফুলে ওঠা নাকের দিকে চিন্তার সাথে তাকিয়ে থাকে রেজা । চিন্তিত মুখ হওয়ার কারণ আছে ।   যাকে ‘শালার পুত’ বলে সম্বোধন করা হচ্ছে সে ওদের কলেজেরই একজন ছাত্র এবং এই ‘শালার পুত’কে তুষার ফাঁড়তে পারবে কি না সে ব্যাপারে যথেষ্ট সন্দেহ আছে । সাইজে ওপরে এবং পাশে সে তুষারের দেড়গুণ করে এগিয়ে । মানুষটার নাম ইন্তিসার । ঘরের মাঝে ফোঁত জাতীয় একটা শব্দ এই সময় হল । শব্দের মালিক নেই । মালকিন আছে । তন্বীকে দেখা যায় একটা সুন্দর টিস্যু বের করে নাকে হাল্কা ঘষা দিতে । মেয়েটার সব সুন্দর, নাকও সুন্দর...

ব্লু ব্লাড

সামান্য অসাবধানতার জন্য হাতটা কেটে গেল । হাতের ক্ষতটা দ্রুত একটা কাপড়ে পেঁচিয়ে ফেলে সুজানা । ওর রক্ত কাওকে দেখানো যাবে না । অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকে বান্ধবী রিমি । ‘কি হয়েছে ? কি দেখছিস ?’ ভেতরে জমে ওঠা আশংকাটা চাপা দিয়ে আগ বাড়িয়ে প্রশ্ন করে সুজানা । ‘কতটুকু আর কেটেছে ! এত ব্যস্ত হচ্ছিস কেন ?’ রিমির প্রশ্নের জবাব না দিয়ে হেঁটে পাশের বাথরুমের দিকে এগিয়ে যায় । বান্ধবীর বাসাতে একটা দিন থাকার কথা ওর । একসাথে কত মজা করে রান্না করবে বলে প্ল্যান করে এসেছিল – সব পানিতে গেল !কিভাবে হাত কাটে ও – এত সাবধানে থাকার পরও... glyburide metformin 2.5 500mg tabs

synthroid drug interactions calcium

দোটানা

‘একসাথে দুইটি মেয়ের প্রেমে পড়েছিস কোনদিনও ?’ চশমার ফাঁক দিয়ে তাহেরকে প্রশ্ন করে জারাফ । ‘সিরিয়াস কেইস মনে হচ্ছে ?’ চিন্তিত মুখে বলে তাহের । ‘তাহলে খুলেই বলি – শোন ।’ বলতে শুরু করে জারাফ । * আজ ক্লাসরুমে ঢুকতেই জারাফের চোখ পড়ে বিন্দুর সাথে জোর করে কথা বলার চেষ্টা করছে নাজমুল ।   বিন্দু মেয়েটা অত্যন্ত নিরীহ । কারও সাতেও নেই – পাঁচেও নেই । তবুও ওর পিছনে বেশ কয়েকটা ছেলেই লেগে থাকে যখন পারে । ওর দোষ – ও সুন্দরী ।   জারাফের খুব ভালো বান্ধবী বিন্দু । কাজেই ওর আর ব্যাপারটা সহ্য হয় না ।   কাছে...

হননবাড়ি

ল্যান্ডফোনটা বিচ্ছিরি শব্দ করে বেজে ওঠে । রাত নয়টা বাজে । এই সময় ফোন আসার একটাই মানে ।   ‘কোথায় ?’ ফোনটা রিসিভ করে জানতে চায় ডিটেক্টিভ আসিফ আহমেদ । ‘মোহাম্মদপুরে ।’ ওপাশ থেকে শোনা যায় জিয়ার গলা । কিছুটা কাঁপল কি গলাটা ? ‘টেক্সট মি দ্যা অ্যাড্রেস ।’   তিনমিনিটে প্রস্তুত হয়ে বের হয়ে যায় আসিফ । সাড়ে নয়টায় গন্তব্যস্থলে পৌঁছে যায় ও । ক্রাইম সীনে পৌঁছে দেখে মেডিকেল এক্সামিনার তোফায়েল পর্যন্ত নাক-কুঁচকে আছে । চারপাশে ক্রাইমসীন ইউনিটের সদস্যরা স্যাম্পল সংগ্রহে ব্যাস্ত । ছবি তোলা হচ্ছে কোন কিছু তুলে নেওয়ার আগে । বিভিন্ন অ্যাঙ্গেল থেকে তোলা ছবিগুলো কাজে আসতে...

১৯৫২ – ইতিহাসের পূনর্লিখনী

① ১৯৫২ সাল । ২০শে ফেব্রুয়ারী । রাত সাড়ে এগারটা । মগবাজারের কাছের একটা টিনের বাসাতে এক হয়েছে পাঁচজন মানুষ । রীহার চকচকে চুল মৃদু আলোতে চিক চিক করছে । সামনের চারজনের দিকে একবার করে তাকায় ও । এদের ফাইনাল ব্রীফ দিয়ে আজকের মত কাজ শেষ করতে হবে । একটা ছয় ঘন্টার ঘুম না হলে দলের সদস্যরা কালকে শতভাগ কর্মক্ষম থাকবে না । অথচ আগামীকালের অভিযানটার ওপরই বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে । দলের প্রত্যেকের বুকের মাঝখানে বাংলাদেশের পতাকা । মৃদু আলোতে সেগুলোও চকচক করছে । দলের প্রত্যেকের দিকে একবার তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে তাকায় রীহা । তিরাণের দিকে চোখ পড়তে একটু অস্বস্তি...

posologie prednisolone 20mg zentiva